মহেন্দ্র সিংহ ধোনি ছিলেন বলেই বিরাট কোহালি তিন নম্বরে ব্যাট করার সুযোগ পেয়েছেন। ব্যাটিং অর্ডারে তিন নম্বর জায়গা যে কোনও দলের মেরুদণ্ড।

ধোনি নেতৃত্বে থাকার সময়েই নাকি কোহালিকে তিন নম্বরে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। ভারত অধিনায়কের সেই দিনগুলো ভালই মনে রয়েছে। নতুন কোনও ক্রিকেটারকে সাধারণত তিন নম্বর পজিশন ছাড়া হয় না। সেখানে ধোনি তিন নম্বরে পাঠিয়েছিলেন নবাগত কোহালিকে। অগ্রজর প্রতি কৃতজ্ঞতা উজাড় করে কোহালি বলছেন, ‘‘আমি যখন দলে প্রথম সুযোগ পাই, তখন ব্যাটিং অর্ডার ঘুরিয়ে ফিরিয়ে ব্যবহার করার সুযোগ ছিল। আমার সামনে সুযোগ আসায় তার সদ্ব্যবহার করি। কিন্তু, ধোনির কাছ থেকে যে সমর্থন পেয়েছিলাম, সেটাই ছিল বড় ব্যাপার। তিন নম্বরে ব্যাট করার সুযোগ আমাকে ধোনিই করে দিয়েছিল।’’

ধোনির কাছ থেকে শুরুর দিকে যে সমর্থন পেয়েছিলেন কোহালি, তার জন্য এখনও কৃতজ্ঞ তিনি। ইদানীং কালে ধোনিকে প্রবল সমালোচনার মুখে পড়তে হচ্ছে। যা দেখে ব্যথিত কোহালি। তিনি বলছেন, ‘‘অনেকে ধোনিকে সমালোচনা করছেন, এটা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক ব্যাপার। আমার কাছে আনুগত্যটাই বড় ব্যাপার।’’

আরও পড়ুন: টানা হারে রক্তাক্ত প্রাক্তন নাইট অধিনায়ক, দিলেন পুরনো দলকে জয়ে ফেরার মন্ত্র

আরও পড়ুন:  দল নির্বাচন না মানসিকতা, ঠিক কোন জায়গায় সমস্যা হচ্ছে প্রায় ছিটকে যাওয়া নাইটদের

ধোনি ও কোহালির মধ্যে বন্ধুত্বের বন্ধন দৃঢ়। টানটান ম্যাচের সময়ে দেখা গিয়েছে, ধোনির হাতে দল পরিচালনার দায়িত্ব ছেড়ে দিয়ে কোহালি বাউন্ডারি লাইনে দাঁড়িয়ে। উইকেটের পিছন থেকে ধোনি দল পরিচালনা করেন। কোহালি নেতৃত্বে থাকাকালীন বহু ম্যাচ ধোনি উতরে দিয়েছেন। কোহালি বলছেন, “আমাদের একে অপরের প্রতি বিশ্বাস ও শ্রদ্ধা রয়েছে।’’ তারই প্রতিফলন হয় খেলার মাঠে।

ধোনির অগাধ অভিজ্ঞতা সম্পর্কে কোহালি বলছেন, ‘‘ধোনির ম্যাচ রিডিং অসাধারণ। এক নম্বর বল থেকে ৩০০ নম্বর বল পর্যন্ত খেলাটা খুব ভাল বোঝে। ওর মতো একজনকে দলে পাওয়াকে আমি বিলাসিতা বলছি না, তবে ধোনিকে স্টাম্পের পিছনে পাওয়ায় আমি ভাগ্যবান।’’

ধোনি না থাকলে আজকের কোহালিকে পাওয়াই যেত না। কোহালি এখন দেশের ক্রিকেটে মহীরূহ হয়ে উঠেছেন। তাঁর ব্যাটেই বিশ্বকাপ জেতার স্বপ্ন দেখছে ভারত।