• রাজীব ঘোষ
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

রান থাকুক, না থাকুক ধোনি নিয়ে উৎসাহে খামতি নেই

MS DHONI
টি-টোয়েন্টি দলে না থাকায় ধোনিকে নিয়ে বিতর্কের ঝড় উঠেছে। —ফাইল চিত্র।

আক্ষরিক অর্থেই গ্রিনফিল্ড। কেরলের রাজধানীর অদূরে পবিত্রম-এ এই ক্রিকেট স্টেডিয়ামের গাঢ় সবুজ আউটফিল্ড ও সাজসজ্জার বাহুল্য মনে রাখার মতো। মঙ্গলবার বিকেলে সেই গ্রিনফিল্ড স্টেডিয়ামে ঢোকার আগে দেখা গেল এক ভারতীয় ক্রিকেট তারকার বিশাল কাট আউট তৈরি হচ্ছে। 

মুম্বইয়ে ব্যাটে ঝড় তোলা রোহিত শর্মা, অম্বাতি রায়ডু? না জীবনের সেরা ফর্মে থাকা বিরাট কোহালি, কার কাট আউট হতে পারে? না এঁদের কেউই না। ৩৫ ফুট উঁচু এই কাট আউট মহেন্দ্র সিংহ ধোনির! বিস্ময়কর হলেও সত্যি। 

গত আট মাস ধরে যিনি রানের মরুভূমিতে হাঁটছেন। টি-টোয়েন্টি দলে না থাকায় যে ধোনিকে নিয়ে বিতর্কের ঝড় উঠেছে। যখন সারা দেশে প্রাক্তন ভারত অধিনায়কের অবসরের দাবি তুলছেন বহু ক্রিকেটপ্রেমী, তখন সাগর পারের এই শহরে তাঁর বিশাল কাট-আউট দেখে তো অবাক লাগবেই। 

আরও পড়ুন: লাগল মাত্র ০.০৮ সেকেন্ড! অবিশ্বাস্য স্টাম্পিং ধোনির, দেখুন ভিডিয়ো

আগমন: মিশন ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সিরিজ জয়ের লক্ষ্যে তিরুঅনন্তপুরমে পৌঁছল ভারত। বিমানবন্দরে মহেন্দ্র সিংহ ধোনি। মঙ্গলবার। ছবি: পিটিআই।

শহরটা চেন্নাই হলে না হয় ভাবা যেত তাঁদের ‘থালাইভা’-কে ধোনিভক্তরা হারাতে চান না বলেই এই পাগলামি। কিন্তু চেন্নাইয়ের ধোনি-উন্মাদনার ঝড় যে সাতশো কিলোমিটার দূরেও এসে আছড়ে পড়েছে, তাও বিস্মিত করার মতোই।

আরও পড়ুন: #মিটু: বোর্ডের সিইওকে নিয়ে তোপ সৌরভের

বৃহস্পতিবার ধোনির ব্যাটে রান-ফোয়ারা দেখার আশায় রয়েছে এই দক্ষিণী শহর। যেখানে ওয়ান ডে ক্রিকেট ফিরছে ৩০ বছর পরে। সেই সুযোগও পাবেন ধোনি। কারণ, তিরুঅনন্তপুরমের এই মাঠেও ব্যাটিং সহায়ক উইকেট তৈরি করেছে কেরল ক্রিকেট সংস্থা। মঙ্গলবার পড়ন্ত বিকেলে যেখানে গিয়ে দেখা গেল পিচ পরিচর্যার কাজ চলছে। সে জন্য বেঙ্গালুরু থেকে এসেছেন দক্ষিণাঞ্চলের কিউরেটর এস শ্রীরামও। 

আঞ্চলিক কিউরেটর কিছু বলতে না চাইলেও তাঁর এক সহকারী এ দিন জানান, ভাল ব্যাটিং ও প্রচুর রান তোলার পক্ষে আদর্শ এই উইকেট। গত চার ম্যাচে দুই দলের ব্যাটসম্যানরা যে রকম হাতের সুখ করেছেন, সিরিজের শেষ ম্যাচেও তেমনই করতে পারেন বলে তাঁদের ধারণা। ওয়ান ডে-তে ভারতের হয়ে দশ হাজার রান থেকে এক ধাপ দূরে থাকা ধোনি এই খবরে আশাবাদী হতেই পারেন। 

ওয়ান ডে-র পরে টি-টোয়েন্টি সিরিজ। যেখানে ধোনি খেলছেন না। কয়েকটি সূত্রের খবর, বিশ্বকাপের কথা মাথায় রেখে ওই সময় ঝাড়খণ্ডের হয়ে রঞ্জি ট্রফিতে বেশ কয়েকটি বাছাই করা ম্যাচে খেলতে পারেন তিনি। পয়লা নভেম্বর থেকে রঞ্জিতে নামছে ঝাড়খণ্ড। তাদের গ্রুপে আছে হরিয়ানা, রাজস্থান, উত্তরপ্রদেশের মতো শক্তিশালী দল। ধোনি খেললে কাদের বিরুদ্ধে মাঠে নামেন, সেটাই দেখার।

রবিবার মুম্বইয়ের ব্রেবোর্ন স্টেডিয়ামের নেটে যে ভাবে ব্যাটিং অনুশীলন করেছিলেন, তাতে প্রায় আড়াই মাস ছুটিতে যাওয়ার আগেই ফর্মে ফেরার বার্তা ছিল স্পষ্ট। কিন্তু সোমবারের ম্যাচেও তা হয়নি। রোহিত, রায়ডুরা যে মঞ্চ মাতিয়ে যান, সেই মঞ্চে ২৩ রান করার পরে একটি বল ফ্লিক করতে গিয়ে শর্ট ফাইন লেগে ক্যাচ দিয়ে ফেলেন। অথচ আগের দিন ব্রেবোর্নের নেটে টানা লেগ স্টাম্পে আসা বলই খেলে গিয়েছিলেন তিনি। 

স্টাম্পের পিছনে অবশ্য কোনও সমস্যা নেই। সোমবার রবীন্দ্র জাডেজার বলে কিমো পলকে যে ক্ষিপ্রতায় স্টাম্পড করলেন, তা অবিশ্বাস্য। প্রতিক্রিয়ার জন্য ০.০৮ সেকেন্ড সময় নেন তিনি। কিন্তু এই ক্ষিপ্রতা ব্যাটে দেখা যাচ্ছে না কেন? প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক ও নির্বাচক প্রধান দিলীপ বেঙ্গসরকর মঙ্গলবার মুম্বই থেকে ফোনে ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলার পরিকল্পনায় সায় দিয়ে বলেন, ‘‘মানসিক সমস্যা সব ব্যাটসম্যানেরই কোনও না কোনও সময়ে হয়। একটা ভাল ইনিংস খেললেই তা কেটে যায়। তবে এই সিরিজের পরে প্রয়োজনে ঘরোয়া ক্রিকেটেও খেলতে হবে। যাতে ম্যাচের মধ্যে থাকতে পারে।’’ সুনীল গাওস্করও এ দিন এক টিভি চ্যানেলে বলেছেন, ‘‘বিশ্বকাপে ধোনিকে অবশ্যই দরকার।’’ যা শুনে ধোনিভক্তরা আবার সরব হয়েছেন। 

তিরুঅনন্তপুরম বিমানবন্দরে বিরাট কোহালি। ছবি: পিটিআই।

ধোনির ছোটবেলার দুই কোচ চঞ্চল ভট্টাচার্য ও কেশব বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিশ্বাস, এই সমস্যা কাটিয়ে উঠবেই তাঁদের প্রিয় ছাত্র। মঙ্গলবার রাঁচি থেকে চঞ্চল ফোনে বললেন, ‘‘কেউ দেখছে না, কি অসাধারণ কিপিংটা করছে ও। ব্যাটিংয়ে মনস্তাত্বিক চাপ সব সময়ই থাকে। সেই চাপটা কাটিয়ে উঠতে ওর বেশি সময় লাগবে না।’’ 

কেশবের বিশ্বাস বৃহস্পতিবারের ম্যাচে বড় রান করবেন। রাঁচি থেকে এ দিন ফোনে তিনি বলেন, ‘‘সামনে ও যে বিশ্রামটা পাবে, দেখবেন, সেই সময়টাতে নিজেকে তৈরি করে কী ভাবে ফিরে আসে। এই বিশ্রামটা ওর এখন খুব দরকার। যারা বলছে ধোনি শেষ, তাদের এটাও ভাবা উচিত, দলকে বেশি রান দিতে না পারলেও স্টাম্পের পিছনে ও কত রান বাঁচাচ্ছে।’’ 

এ দিন বিমানবন্দরে বসে থাকা ধোনির ছবিতে তাঁর বাঁ হাতে ব্যান্ডেজ দেখা যাওয়ায় আবার নতুন করে তোলপাড় শুরু হয়েছে, তা হলে কি ধোনি চোট পেয়েছেন? ভারতীয় দল  থেকে অবশ্য এমন কোনও খবরের সত্যতা স্বীকার করা হয়নি। তিরুঅনন্তপুরম তাই আশায়, ধোনিকে ফর্মে ফিরিয়ে আনবে এই শহর। 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন