এমনটা নতুন কোনও ঘটনা নয়। কাতার বিশ্বকাপ ঘিরে কম বিতর্ক হয়নি। বিভিন্ন স্টেডিয়ামে কাজ করতে গিয়ে মৃত্যু হয়েছে একাধিক শ্রমিকের। আবারও শ্রমিকের মৃত্যু নতুন প্রশ্ন তুলে দিল কাতার বিশ্বকাপের প্রস্তুতি নিয়ে। মঙ্গলবার কাতারে মৃত্যু হয়েছে ২৩ বছরের এক নেপালি শ্রমিকের। আয়োজকদের তরফে এক বার্তায় জানানো হয়েছে, বিশ্বকাপের জন্য তৈরি ওয়াকরা স্টেডিয়াম প্রকল্পে কাজ করার সময় মৃত্যু হয়েছে এই শ্রমিকের।

এই শ্রমিকের মৃত্যু নিয়ে শুরু হয়েছে তদন্ত। তদন্তের পরই জানানো হবে কী কারনে এই শ্রমিকের মৃত্যু হল। এর বাইরে আয়োজকদের তরফে আর কিছু জানানো হয়নি। এর আগেও এই আল ওয়াকরা স্টেডিয়ামে এক নেপালি শ্রমিক কাজ করা সময় মারা গিয়েছিল। ২০১৬র অক্টোবরে ২৯ বছরের অনিল কুমার পাসমানের মৃত্যু হয়েছিল স্টেডিয়ামের ভিতরেই লড়ির ধাক্কায়।

২০১৭র জানুয়ারির পর আবার বিশ্বকাপ সাইটে কোনও মৃত্যু ঘটল। সে বার খলিফা আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে কাজ করার সময় মারা গিয়েছিলেন ব্রিটিশ শ্রমিক জ্যাক কক্স। সেই সময় প্রশ্ন উঠেছিল কাজের খারাপ যন্ত্রপাতি ও কাজের পরিবেশ নিয়ে। যা নাকি খুবই ভয়ঙ্কর। এ ছাড়া প্রথম থেকেই শ্রমিকদের প্রতি দুর্ব্য়বহার নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠেছে কাতার বিশ্বকাপের আয়োজকদের বিরুদ্ধে। বেসরকারি সূত্রের খবর বলছে ২০২২ বিশ্বকাপ প্রক্লপে কাজ করতে গিয়ে ১২০০ শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। যা আয়োজকরা স্বাভাবিকভাবেই অস্বীকার করেছে।

আরও পড়ুন
লজ্জার হারের ময়নাতদন্ত: প্রাথমিক পাঠ ভুলেই বিলেতে ভরাডুবি