আসন্ন ফরাসি ওপেনে ইতিহাস গড়ার হাতছানি নোভাক জোকোভিচের সামনে। বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ে এক নম্বর যদি রোলঁ গ্যারোজ খেতাব জিততে পারেন, তা হলে খেলোয়াড় জীবনে দ্বিতীয় বার টানা চারটি গ্র্যান্ড স্ল্যাম অর্থাৎ ক্যালেন্ডার স্ল্যাম জিতবেন। অস্ট্রেলীয় কিংবদন্তি রড লেভার (১৯৬২, ১৯৬৯) ছাড়া যে কৃতিত্ব আর কারও নেই। ২০১৬ সালে জোকোভিচ প্রথম বার টানা চারটি গ্র্যান্ড স্ল্যাম জিতেছিলেন। সেই কৃতিত্ব ফের স্পর্শ করার দৌড়ে তাঁর প্রধান বাধা দু’জন রজার ফেডেরার এবং রাফায়েল নাদাল।

তিন বছর পরে ক্লে-কোর্ট মরসুমে ফেরা ফেডেরার (২০ টি স্ল্যাম) এবং নাদাল (১৭টি স্ল্যাম) হয়তো নোভাকের (১৫টি স্ল্যাম) চেয়ে গ্র্যান্ড স্ল্যাম দখলের লড়াইয়ে এগিয়ে রয়েছেন এবং কেরিয়ার স্ল্যামের কৃতিত্বও দেখিয়েছেন কিন্তু সার্বিয়ান তারকার মতো ক্যালেন্ডার স্ল্যাম তাদের নেই। ২০১৬ সালের মতো এ বারও উইম্বলডন, যুক্তরাষ্ট্র ওপেন এবং অস্ট্রেলীয় ওপেন জিতে রোলঁ গ্যারোজে নামবেন জোকোভিচ। তবে বিরল নজির কৃতিত্ব স্পর্শ করা পথে যে অনেক কাঁটা রয়েছে সেটা ভাল করেই জানেন জোকোভিচ। বিশেষ করে গত সপ্তাহে ইটালিয়ান ওপেনে যে ভাবে নাদাল ফাইনালে তাঁকে হারিয়েছেন তার পরে অনেকেই নাদালকেই এ বারও ফেভারিট ধরছেন। জোকোভিচও তাই। ‘‘নাদাল ট্রফি জয়ের দৌড়ে সবচেয়ে এগিয়ে। এ ব্যাপারে কোনও সন্দেহ নেই। তার পরে বাকি সবাই,’’ বলেছেন জোকোভিচ। বৃহস্পতিবার ড্র-এ যদিও জোকোভিচই শীর্ষবাছাই। 

এটাও ঘটনা যে জোকোভিচ যতই সতর্ক থাকুন পর্যুদস্ত হওয়ার পরেও তাঁকে স্বমহিমায় উঠে আসতে দেখা গিয়েছে গত বার। ২০১৮ ফরাসি ওপেনে ইটালির মার্কো চেখিনাতো সার্বিয়ার তারকাকে কোয়ার্টার ফাইনালে হারানোর পরে নোভাক এতটাই বিমর্ষ হয়ে পড়েছিলেন যে, ভেবেছিলেন উইম্বলডনে নামবেনই না। কিন্তু সেই হারের ধাক্কা কাটিয়েই এ বার ফরাসি ওপেনে এত বড় একটা নজির গড়ার সামনে এখন তিনি।

অবিশ্বাস্য প্রত্যাবর্তনের আর এক কারিগর রজার ফেডেরারের ক্ষেত্রেও ঠিক একই কথা প্রযোজ্য। তিনিও ২০১৫ মরসুমের পরে এ বার প্রথম ফরাসি ওপেনে নামবেন। এ বছর আবার তাঁর এক মাত্র ফরাসি ওপেন জয়ের ১০ বছর পূর্তি। যদি ৩৭ বছর বয়সি সুইস মহাতারকা ফের একই রকম চমক দেখাতে পারেন তা হলে সব চেয়ে বেশি বয়সে গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ী হিসেবে নজির গড়বেন। তা ছাড়া ক্লে কোর্টে তাঁর ছন্দ যে খারাপ নয় সেটাও দেখিয়ে দিয়েছেন ফেডেরার এ বার মাদ্রিদ এবং রোমে ম্যাচ পয়েন্ট বাঁচিয়ে যথাক্রমে গেইল মঁফিস এবং বোর্না চোরিচের বিরুদ্ধে জিতে। অবশ্য তিনি বলছেন, ‘‘খুব মজা লাগছে এ বার ক্লে কোর্টে নেমে। তবে সত্যি বলছি, খুব চ্যালেঞ্জিং মনে হচ্ছে না।’’

ছন্দে আছেন ক্লে কোর্টের সম্রাট নাদালও। যিনি ১২ নম্বর ফরাসি ওপেন জয়ের লক্ষ্যে নামবেন। রোলঁ গ্যারোজে নাদালের হার-জিতের পরিসংখ্যানও ৮৬-২। ফরাসি ওপেনে নামার আগেই গত সপ্তাহে ইটালিতে নবম খেতাব জিতেছেন তিনি।