বুধবারই ছিল তাঁর ৪৬তম জন্মদিন। আর সেই বিশেষ দিনেই স্বার্থ সঙ্ঘাত নিয়ে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের অম্বাডসমানের নোটিশ পেলেন সচিন তেন্ডুলকর। একই অভিযোগে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের অম্বাডসমান ও নীতি আধিকারিক ডি কে জৈন নোটিস পাঠিয়েছেন ভি ভি এস লক্ষ্মণকেও।

দু’জনেই বোর্ডের ক্রিকেট পরামর্শদাতা কমিটির সদস্য হয়েও আইপিএলের দুই ফ্র্যাঞ্চাইজি দল মুম্বই ইন্ডিয়ান্স ও সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে মেন্টরের দায়িত্ব পালন করছেন। এ বারের আইপিএল চলাকালীন এটা স্বার্থ সঙ্ঘাতের তৃতীয় ঘটনা। এর আগে সিএবি প্রেসিডেন্ট, ক্রিকেট উপদেষ্টা কমিটির সদস্য ও দিল্লি ক্যাপিটালসের পরামর্শদাতা হিসেবে দায়িত্ব পালন করায় এই অভিযোগ উঠেছে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে। সৌরভ, সচিন ও লক্ষ্মণ তিনজনেই বোর্ডের ক্রিকেট পরামর্শদাতা কমিটির সদস্য।

বোর্ডের অম্বাডসমান প্রাক্তন বিচারপতি জৈন তাঁর নোটিশে তেন্ডুলকর ও লক্ষ্মণ দু’জনকেই ২৮ এপ্রিলের আগে এই অভিযোগের ভিত্তিতে তাঁদের লিখিত বক্তব্য জানাতে বলেছেন। একই সঙ্গে বোর্ডকেও তাদের বক্তব্য জানাতে বলেছেন তিনি। সৌরভের পরে সচিন ও লক্ষ্মণও স্বার্থ সঙ্ঘাতের নিয়ম লঙ্ঘন করছেন, এ ব্যাপারে অভিযোগ করেছিলেন মধ্যপ্রদেশ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের এক সদস্য সঞ্জীব গুপ্তা।

তেন্ডুলকর ও লক্ষ্মণকে নোটিশে বোর্ডের অম্বাডসমান লিখেছেন, ‘‘বোর্ডের নিয়মাবলীর ৩৯ নম্বর ধারায় স্বার্থ সঙ্ঘাতের যে নিয়ম রয়েছে, আপনাদের বিরুদ্ধে তা লঙ্ঘনের অভিযোগ জমা পড়েছে বোর্ডের নীতি আধিকারিকের কাছে। ২৮ এপ্রিলের আগে এ ব্যাপারে আপনাদের লিখিত বক্তব্য জানান।’’ একই সঙ্গে তিনি জানিয়ে দিয়েছেন, যদি নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ওই দুই ক্রিকেটার লিখিত বক্তব্য না পাঠান, তা হলে ভবিষ্যতে বোর্ড কোনও পদক্ষেপ করলে সে ব্যাপারে তাঁদের আবেদনের কোনও জায়গা থাকবে না।

যদিও এ প্রসঙ্গে তেন্ডুলকর ও লক্ষ্মণের তাঁদের কোনও প্রতিক্রিয়া এখনও জানাননি।