• ইন্দ্রজিৎ সেনগুপ্ত
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

গোলাপি বলে পেসাররা বেশি সাহায্য পাবেন, মত কোহালির

VK
প্রত্যয়ী: এ ভাবেই লক্ষ্যভেদ করতে চান। বুধবার ইনদওরে অধিনায়ক কোহালি। এপি

Advertisement

ইডেনে দিনরাতের টেস্টের প্রচার এই শহর থেকেই শুরু হয়ে গিয়েছে। বুধবার বিকেলে হোলকার স্টেডিয়ামে বিজ্ঞাপন বোর্ডে গোলাপি আলো জ্বালিয়ে দেওয়া হল। জায়ান্ট স্ক্রিনের গোলাপি আলো রাঙিয়ে দিয়ে গেল মাঠের প্রত্যেক কোণ। যেন ইনদওরেই বসেছে ইডেনের আসর। 

স্টেডিয়ামের বাইরে রাস্তাতেও আকর্ষণীয় দৃশ্য নজরে পড়ল। ইনদওরের স্থানীয় ট্রাফিক পুলিশ রঞ্জিত সিংহ ‘মুনওয়াক’ করে রাস্তার ভিড় সরাচ্ছেন। মাইকেল জ্যাকসনের ভক্ত এই ট্রাফিক পুলিশ বরাবরই ক্রিকেটভক্ত। এক সময় ক্রিকেট খেলতেনও। তাই হোলকার স্টেডিয়ামের আশেপাশেই ডিউটি করতে পছন্দ করেন। বলছিলেন, ‘‘কাজ শুরু করার পর থেকে অনেক তরুণদের আহত ও নিহত অবস্থায় রাস্তা থেকে তুলেছি। চেষ্টা করি, এই নাচের মাধ্যমে তাঁদের সতর্ক করতে।’’

ইডেনের গোলাপি বলের টেস্টে ব্যাটসম্যানদের মুনওয়াকের ভঙ্গিতেই যে নাচতে হতে পারে, সেই ইঙ্গিত  আবার দিয়ে গেলেন ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহালি। গোলাপি বলের বিরুদ্ধে আগে কখনও তিনি খেলেননি। মঙ্গলবারই প্রথম থ্রো-ডাউনের সাহায্যে গোলাপি বলের বিরুদ্ধে ১৫ মিনিট ব্যাট করেন। 

বুধবার সাংবাদিক বৈঠকে কোহালি বলেন, ‘‘গোলাপি বলে প্রথম বার ব্যাট করে মনে হয়েছে, লাল বলের থেকে তা অনেক বেশি সুইং করে। অতিরিক্ত ল্যাকার থাকার জন্য বল দ্রুত পুরনো হয় না। সিমটাও অনেক পোক্ত। একেবারে শেষ পর্যন্ত বলের উপরে নজর রাখতে হয়।’’ সঙ্গে যোগ করেন, ‘‘উইকেট থেকে সাহায্য পেলে পেসাররা এই বলে সমস্যা তৈরি করতে পারে। যদিও বল পুরনো হলে বা শিশির পড়লে কী হবে, সেই অভিজ্ঞতা আমার নেই।’’

প্রস্তুতি: গোলাপি বলে অনুশীলন মোমিনুল হকের। এএফপি

শেষ অস্ট্রেলিয়া সফরে অ্যাডিলেডে দিনরাতের টেস্ট খেলার প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিল ভারত। কিন্তু ২২ নভেম্বর ইডেন টেস্ট নিয়ে কোহালির প্রতিক্রিয়া, ‘‘সবাই খুব উৎসাহী। টেস্ট ক্রিকেটের জৌলুস ফেরানোর জন্য হয়তো একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ।’’ বুধবার যদিও গোলাপি বলের বিরুদ্ধে অনুশীলন করেননি অধিনায়ক। কিন্তু মঙ্গলবার গোলাপি বল সামলানোর পরেই তিনি লাল বলের বিরুদ্ধে নেট করতে চলে গিয়েছিলেন। ভারতের বাকি ব্যাটসম্যানেরা যদিও থ্রো-ডাউনেই গোলাপি ও লাল বল মিশিয়ে অনুশীলন করেন। এ ধরনের অনুশীলনের গুরুত্ব কী? বিরাটের উত্তর, ‘‘রিফ্লেক্স পরীক্ষার জন্যই এই উদ্যোগ। লাল বলের বিরুদ্ধে খেলার পরে গোলাপি বল সহজে দেখা যায় না। এত দিন লাল বলে টেস্ট খেলার পরে ম্যাচেও এই সমস্যা হতে পারে। সেই সমস্যায় যাতে পড়তে না হয়, তাই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।’’

বাংলাদেশ অধিনায়ক মোমিনুল হকেরও গোলাপি বলের বিরুদ্ধে খেলার অভ্যাস এত দিন ছিল না। তাই বুধবার গোলাপি বলে কয়েকটি থ্রো-ডাউন নিতে দেখা গেল তাঁকে। বলে গেলেন, ‘‘দলের কেউই গোলাপি বলের বিরুদ্ধে খেলেনি। তাই ইডেন টেস্টের আগে যথেষ্ট প্রস্তুতি নেওয়ার পরিকল্পনা আমাদের রয়েছে।’’

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন
বাছাই খবর

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন