• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ইতিহাস গড়ে টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাপুয়া নিউ গিনি

Papua New Guinea
বিশ্বকাপে পৌঁছনোর আনন্দে পাপুয়া নিউ গিনির সাপোর্ট স্টাফরা।

প্রথম বার বিশ্বকাপ খেলবে পাপুয়া নিউ গিনি। রবিবার দুবাইয়ে কেনিয়াকে ৪৫ রানে হারিয়ে টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলার ছাড়পত্র জোগাড় করল তারা। আগামী বছর অস্ট্রেলিয়ায় হবে টি টোয়েন্ট বিশ্বকাপ। সেখানে ভারত, পাকিস্তান, অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে লড়তে দেখা যাবে পাপুয়া নিউ গিনিকেও।  

রবিবার প্রথমে ব্যাট করে পাপুয়া নিউ গিনি ১১৮ রানে অল আউট হয়ে যায়। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ১৮.৪ ওভারে ৭৩ রানে শেষ হয়ে যায় কেনিয়া। বিশ্বকাপের টিকিট পাওয়ার জন্য শুধু জিতলেই হত না, নেদারল্যান্ডস-স্কটল্যান্ড ম্যাচের দিকেও তাকিয়ে থাকতে হয়েছিল পাপুয়া নিউ গিনিকে।

স্কটল্যান্ডের বিরুদ্ধে ১২.৩ ওভারে নেদারল্যান্ডস জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় রান তুলে নিলে বিশ্বকাপে আর খেলা হত না পাপুয়া নিউ গিনির। শেষ পর্যন্ত ১৭ ওভারে জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় রান তুলে ম্যাচটা জেতে ডাচরা। ফলে বিশ্বকাপের দরজা খুলে যায় পাপুয়া নিউ গিনির সামনে। 

আরও পড়ুন: ‘ঋষভ আমাদের ভবিষ্যৎ আর ঋদ্ধিমান বর্তমান’

প্রথমে ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই বিপর্যয়ের মুখে পড়েছিল পাপুয়া। এক সময়ে চার ওভারে ছ’ উইকেট হারিয়ে ধুঁকছিল তারা। দলের এই বিপর্যয়ের মুখে রুখে দাঁড়ান নরম্যান ভানুয়া। তিনি ৪৮ বলে ৫৪ রান করেন। তাঁর জন্যই পাপুয়া নিউ গিনি ১১৮ রানে পৌঁছয়। জবাবে ব্যাট করতে নেমে কেনিয়ার ইরফান করিম (২৯), কলিন্স ওবুয়া (১০) ও আমন গাঁধী (অপরাজিত ১৪) কেবল দু’ অঙ্কের রানে পৌঁছন। বাকিরা এলেন আর গেলেন। পাপুয়া নিউ গিনির বোলারদের দাপটে কেনিয়া থেমে যায় মাত্র ৭৩ রানে। পোকানা ও ভালা ৩টি করে উইকেট নেন। ভানুয়া ও রাভু নেন ২টি উইকেট। 

 

আগামী বছর টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলবে ১৬টি দেশ। ইতিমধ্যেই ১২টি দেশ খেলার ছাড়পত্র পেয়ে গিয়েছে। বাকি চারটি দেশের জন্য এখন অপেক্ষা।  

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন