• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

গুয়ার্দিওলার বায়ার্ন তিন গোল খেল

Pep Guardiola
হতাশ ফুটবলের ‘ফেরারি’। ছবি: এএফপি।

কোচিং কেরিয়ার নিয়ে কোনও দিন প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়নি তাঁকে। জয়ের পর জয়। ট্রফির পর ট্রফি।  ঠিক এ রকম ভাবেই তো ফুটবলবিশ্ব চেনে পেপ গুয়ার্দিওলাকে। কথাই আছে, ‘‘কোনও দলের ডাগআউটে গুয়ার্দিওলা থাকা মানে গ্যারেজে ফেরারি থাকা!’’ কিন্তু বুধবার রাত দেখল অন্য এক গুয়ার্দিওলাকে। মাথা নিচু। গোমড়া মুখ। কোনও উত্তর যেন খুঁজে পাচ্ছেন না। তাঁর চোখের সামনেই অসংখ্য ভুল করে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম পর্বে ১-৩ হেরে বসল বায়ার্ন মিউনিখ। তাও আবার ‘দুর্বল’ এফসি পোর্তোর বিরুদ্ধে।

ভুলগুলো তৈরি করলেন গুয়ার্দিওলার ফুটবলাররাই। তিন মিনিটের মধ্যেই ‘সুইপার কিপার’ ম্যানুয়েল ন্যয়ারের ফাউল ট্যাকলের সৌজন্যে পেনাল্টি পায় পোর্তো। স্পট কিক থেকে গোল করেন পর্তুগালের হারিয়ে যাওয়া তারকা রিকার্ডো কোয়ারেসমা। যদিও আসল দোষী জাবি আলোন্সো। যাঁর ভুল সামাল দিতেই গোলকিপার ন্যয়ারকে এগিয়ে এসে ট্যাকল করতে হয়েছিল। কিছুক্ষণ পরেই ফের কোয়ারেসমার গোলে ২-০ এগোয় পোর্তো। তবে খারাপ শুরুর করেও থিয়াগো আলকানতারার গোলে ব্যবধান কমায় বায়ার্ন। যে অ্যাওয়ে গোলই হয়তো  টুর্নামেন্টে জার্মান দলের টিকে থাকার অক্সিজেন। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে গোল করে পোর্তোর গত কালের জয় নিশ্চিত করেন জ্যাকসন মার্তিনেজ।

ম্যাচ শেষে প্রশ্ন উঠে যায়, আদৌ গুয়ার্দিওলা ভাল কোচ, না কি এত দিন স্রেফ ভাল দল পেয়ে এসেছেন স্প্যানিশ কোচ? যদিও এক প্রকার চ্যালেঞ্জ জানিয়ে গুয়ার্দিওলা বলেছেন, দ্বিতীয় পর্বে ছবি পাল্টাবে। ‘‘আজ খুব খারাপ রেজাল্ট হল। কিন্তু আমরা ফেরার চেষ্টা করব। এখনই হার মানছি না।’’ হারের কারণ হিসাবে দলের চোট সমস্যাকে দায়ী করছেন গুয়ার্দিওলা। রিবেরি, রবেন, সোয়াইস্টাইগারের মতো তারকা ফুটবলাররা না থাকায় সমস্যা হয়েছে জানিয়ে গুয়ার্দিওলা বলেছেন, ‘‘জানতাম ওই চোটগুলো নিয়ে জেতা কঠিন হবে।’’ বায়ার্নয়ের স্পোর্টিং ডিরেক্টর মাথিয়াস স্যামারও বলেছেন, ‘‘বড় ক্লাবের গুণ হচ্ছে সব সমস্যা দূরে রেখে প্রত্যাবর্তন করা।’’ যদিও  শোনা যাচ্ছে, এ বছর চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিততে না পারলে কোচিং কেরিয়ারে প্রথম বার হয়তো বরখাস্ত হওয়ার স্বাদ পেতে হবে বার্সার প্রাক্তন কিংবদন্তি কোচ গুয়ার্দিওলাকে। আর তাঁকে সই করাতে এখন থেকেই ওঁত পেতে বসে রয়েছে ম্যাঞ্চেস্টার সিটি। ম্যানুয়েল পেলিগ্রিনির সঙ্গে মরসুম শেষেই ‘গোল্ডেন হ্যান্ডশেক’ করবে হয়তো ম্যান সিটি।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন