বিরাট কোহালিদের নতুন কোচ হওয়ার জন্য আবেদনপত্র পাঠিয়ে দিলেন রবি শাস্ত্রী। সরকারি ভাবে আবেদনপত্র জমা পড়ে যাওয়ার খবর সোমবার দুপুরে সারা ভারতে প্রথম ফাঁস হয় আনন্দবাজার ওয়েবসাইটে। 

এর আগে সাফল্যের সঙ্গে আঠেরো মাস কোহালিদের টিম ডিরেক্টর হিসেবে কাজ করেছেন শাস্ত্রী। সেটা তাঁকে অনেকের থেকে এগিয়ে রাখছে। মাঠের মধ্যে কোহালিদের পারফরম্যান্সে তফাত ঘটানোর পাশাপাশি ড্রেসিংরুমেও সৌহার্দের আবহ গড়ে তুলেছিলেন প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক।

এক বোর্ড কর্তা বলছিলেন, ‘‘রবি শাস্ত্রী ডিরেক্টর থাকাকালীন টিমের মধ্যে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। কোনও সঙ্ঘাত ছিল না টিমের মধ্যে। কোচ বনাম অধিনায়ক কখনও ব্যক্তিত্বের সঙ্ঘাত ঘটেনি।’’  

গত বছর শাস্ত্রীকে সরিয়েই অনিল কুম্বলেকে কোচ বেছে নিয়েছিল তিন সদস্যের ক্রিকেট অ্যাডভাইসরি কমিটি। তিন প্রাক্তন ক্রিকেটার রয়েছেন কমিটিতে। সচিন তেন্ডুলকর, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় এবং ভি ভি এস লক্ষ্মণ। এ বারও এই কমিটির হাতে কোচ নির্বাচনের দায়িত্ব ছেড়েছে ভারতীয় বোর্ড।

তবে আগের বারের সঙ্গে এ বারের তফাত, ভারতীয় দল এবং শীর্ষস্থানীয় বোর্ড কর্তাদের বক্তব্যও প্রাধান্য পাচ্ছে। কোহালি এবং ভারতীয় দলের সদস্যরা শাস্ত্রীকে ফেরত চান। বোরেড্র মধ্যেও কেউ কুম্বলে-বিতর্কের পর কোহালিদের মত না নিয়ে কোচ বাছার পক্ষপাতী নন। শাস্ত্রীর প্রতিদ্বন্দ্বীদের মধ্যে বড় নাম বীরেন্দ্র সহবাগ। বিদেশিদের মধ্যে আছেন টুম মুডি, রিচার্ড পাইবাস। ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রাক্তন ক্রিকেটার ফিল সিমন্স আবেদনপত্র পাঠিয়েছেন।  

আরও পড়ুন: ফিনিশার ধোনি শেষ, এখন দায়িত্ব ইনিংস গড়ার      

শাস্ত্রী এখনও লন্ডনে ছুটি কাটাচ্ছেন। তাঁর সঙ্গে এ দিন অনেক বার যোগাযোগ করার চেষ্টা করেএ পাওয়া যায়নি। তবে বিশ্বস্ত সূত্রে খবর, তিনি কয়েক দিন আগেই আবেদনপত্র পাঠিয়ে দিয়েছেন। আবেদনপত্র জমা দেওয়ার শেষ সময়সীমা ৯ জুলাই। ১০ জুলাই ইন্টারভিউ হবে।

শাস্ত্রীর ঘনিষ্ঠ মহল থেকে ইঙ্গিত, তিনি এ বারও সম্ভবত সশরীরে মুম্বই এসে ইন্টারভিউ দেবেন না। বোর্ডের বিজ্ঞপ্তিতে লেখা রয়েছে, প্রার্থীরা ‘স্কাইপ’-এ ইন্টারভিউ দিতে পারেন। সেই কারণে লন্ডনে বসে ভিডিও কলেই যোগ দিতে পারেন প্রাক্তন ডিরেক্টর। গত বার শাস্ত্রীর ইন্টারভিউয়ের সময় সৌরভের অনুপস্থিতি নিয়ে বিতর্ক হয়েছিল। তার পর সৌরভও পাল্টা তোপ দাগেন, শাস্ত্রীও যেন পরের বার ভারতীয় কোচের পদের জন্য ইন্টারভিউ দেওয়ার সময় সশরীরে উপস্থিত হন।

কে জানত এক বছরের মধ্যেই ফের ইন্টারভিউ নেবেন সৌরভ এবং আবারও ইন্টারভিউ দিতে আসবেন শাস্ত্রী। তবু বোর্ড থেকে চাপ না এলে সৌরভের পরামর্শ শাস্ত্রী শুনবেন বলে ইঙ্গিত নেই। ১০ জুলাই ইন্টারভিউয়ের পর সে দিনই নতুন কোচের নাম জানিয়ে দিতে পারে ভারতীয় বোর্ড।   

শাস্ত্রীকে ভোট গাওস্করের

ভারতের কোচ হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন রবি শাস্ত্রী। মনে করছেন প্রাক্তন ভারতীয় অধিনায়ক সুনীল গাওস্কর। সোমবার গাওস্কর বলেছেন,  ‘‘রবি দায়িত্বে থাকার সময়ই ২০১৪ সালে ভারতীয় ক্রিকেট দলের ঘুরে দাঁড়ানোটা শুরু হয়েছিল।’’ সঙ্গে তিনি যোগ করেন, ‘‘ইংল্যান্ডের কাছে ভারতের হারের পরে ভারতীয় বোর্ড রবিকে টিম ডিরেক্টরের দায়িত্ব নিতে বলেছিল। এর পরই হঠাৎ ভারতীয় দল উঠে দাঁড়াতে শুরু করে। রবি যখন আবেদনপত্র পাঠিয়ে দিয়েছে তখন ভারতীয় দলের কোচের পদে আসার দৌড়ে ওই এগিয়ে রয়েছে।’’