দীর্ঘ সময় ভারতীয় দলের বাইরে ছিলেন তিনি। কিন্তু প্রত্যাবর্তনে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে চলতি সিরিজের প্রথম টেস্টেই তুলে নিয়েছেন আট উইকেট।

বিরাট কোহালির দলের সেই অফস্পিনার আর অশ্বিনের পারফরম্যান্স নিয়ে উচ্ছ্বসিত আর এক ভারতীয় অফস্পিনার হরভজন সিংহ। ৬৬ টেস্টে এই মুহূর্তে অশ্বিনের উইকেটের সংখ্যা ৩৫০। তিনি অনিল কুম্বলেকে (৭৭ টেস্টে ৩৫০ উইকেট নিয়েছিলেন কুম্বলে) ছাপিয়ে এই মুহূর্তে ভারতের দ্রুততম সাড়ে তিনশো উইকেট শিকারি। সেই অশ্বিনের প্রশংসা করেই এ দিন হরভজন একটি টিভি চ্যানেলে বলেন, ‘‘আমাকেও পিছনে ফেলে দেবে অশ্বিন।’’

ভারতীয় ক্রিকেটের ইতিহাসে সেরা তিন উইকেট শিকারির মধ্যে দু’জনই স্পিনার। সবার উপরে রয়েছেন অনিল কুম্বলে (৬১৯ উইকেট)। তার পিছনে রয়েছে কপিল দেব (৪৩৪ উইকেট) ও হরভজন সিংহ (৪১৭ উইকেট)। এ দিন সেই প্রসঙ্গ তুলে এনে হরভজন বলে দেন, ‘‘যদি নিজেকে ফিট রাখতে পারে, তা হলে যে ছন্দে খেলছে, তাতে ছ’শো উইকেট পেরিয়ে যাবে অশ্বিন।’’

এ দিকে, মঙ্গলবারেই পাকিস্তানের অভিনেত্রী বীনা মালিকের সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় তর্কে জড়িয়ে পড়েন হরভজন। সম্প্রতি রাষ্ট্রপুঞ্জে প্ররোচনামূলক ভাষণ দিয়েছিলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এ দিন সে প্রসঙ্গে হরভজন টুইট করেন, ‘‘রাষ্ট্রপুঞ্জের ভাষণে পাক প্রধানমন্ত্রী পরমাণু যুদ্ধের ইঙ্গিত দিলেন। এক জন প্রাক্তন ক্রীড়াবিদের ভাষণে ‘রক্তস্নান’, ‘শেষ যুদ্ধ’-এর মতো শব্দ যদি থাকে, হিংসা আরও বাড়বে। একজন ক্রীড়াবিদ হিসেবে আশা করি, পাক প্রধানমন্ত্রী শান্তি প্রতিষ্ঠায় উদ্যোগী হবেন।’’ যা দেখে বীনা মালিক পাল্টা টুইট করেন, ‘‘ইমরান খান শান্তির কথাই বলেছেন। তিনি বাস্তব পরিস্থিতি ও তার ভয়াবহতার উল্লেখ করেছেন। পরিস্থিতির কথা বলতে চেয়েছেন। তুমি  কি ইংরেজি ঠিক করে বুঝতে পার না?’’ কিন্তু সেখানে ‘সিওরলি’ বানান ভুল করেছিলেন বীনা। ‘ই’ অক্ষরটি বাদ পড়েছিল। যা নিয়ে  হরভজন পাল্টা টুইট করেন, ‘‘দেখো এর ইংরেজি! এর পরে ইংরেজিতে কিছু টুইট করলে আগে নিজে সেটা পড়ে নিয়ো।’’