সৌজন্য আইএসএল। তার সুবাদে  শহরে জবরদস্ত এক ফুটবল সপ্তাহের সূচনা করে দিয়ে গেলেন তিনি।

তিনি রিভাল্ডো ভিটর বোরবা ফেরেইরা। গত এক যুগ গোটা ফুটবল বিশ্ব যাঁকে চেনে রিভাল্ডো নামে। শুধু ব্রাজিলের জার্সিতে নয়, বার্সেলোনা ও এসি মিলানেও তাঁর সম্মোহনী ফুটবল রাতের ঘুম কেড়েছে কলকাতার ফুটবল পাগল জনতারও।

আইএসএলের ভরা মরসুমে আন্তর্জাতিক ফুটবলারদের আনাগোনা শহরে। রবিবার রাতেই দ্বিতীয় বারের জন্য কলকাতায় পা দিলেন উরুগুয়ের দিয়েগো ফোরলান। আটলেটিকো কলকাতার বিরুদ্ধে ফোরলানদের মঙ্গলবারের ম্যাচ দেখতে রবীন্দ্র সরোবরে আসার কথা বিখ্যাত ফরাসি বিশ্বকাপার থিয়েরি অঁরির।

জমজমাট ফুটবল সপ্তাহের ঢাকে কাঠি অবশ্য এ দিন সকালেই বাজিয়ে দিলেন রিভাল্ডো। বেলা সাড়ে এগারোটা থেকে সন্ধে সাড়ে ছ’টা—সাত ঘণ্টার ঝটিকা সফরে রোনাল্ডো, রোনাল্ডিনহোদের সতীর্থ মিডফিল্ডার অবশ্য মিডিয়া এবং শহরের ফুটবল জনতার থেকে দূরেই থাকলেন। তবে এই ভারত সফর যে তাঁর মন জয় করেছে তা গোপন করেননি বিশ্বকাপ ও ব্যালন ডি’অর জয়ী ব্রাজিলিয়ান। বিমাবন্দরে পা দিয়ে তিনি বলে দেন, ‘‘ভারতের আতিথেয়তায় আমি মুগ্ধ। ব্রাজিল ও ভারত এই দুই দেশ আরও কাছাকাছি এলে ভাল হবে।’’

বিমানবন্দর থেকে রিভাল্ডো সোজা চলে যান বাইপাসের ধারে যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গন লাগোয়া হোটেলে। যেখানে ছিলেন দিল্লি ডায়ানামোস ফুটবলাররা। তাঁদের সঙ্গে আলাপচারিতার পর বিকেলে দিল্লি দলের সঙ্গে এক আলোচনা সভায় যোগ দেন রিভাল্ডো। যেখানে জামব্রোতা থেকে সৌভিক চক্রবর্তীদের সঙ্গে আড্ডা তো দিলেনই। দিল্লির টিম সূত্রে খবর, ফুটবলারদের সকলের সঙ্গেই দেদার সেলফি তোলা, টি-শার্টে সাক্ষর দেন রিভাল্ডো। তাঁর ফুটবল-আলোচনা শুনে অভিভূত দিল্লির প্লেয়াররা। সৌভিক চক্রবর্তী যেমন সেই আলোচনা থেকে বেরিয়ে বললেন, ‘‘রিভাল্ডো আমাদের খেলা নিয়ে আলোচনা করছেন! মনে হচ্ছিল স্বপ্ন দেখছি। উনি বললেন, শনিবার কলকাতার বিরুদ্ধে তোমাদের খেলা দিল্লিতে টিভিতে দেখলাম। ব্যাড লাক। এ রকম হয়। তোমরা ভালই খেলেছো। কলকাতা ম্যাচ ভুলে পরের ম্যাচ নিয়ে ভাবো। তোমাদের রেজাল্ট ভালই হবে।’’

এর পর বিমানবন্দরের দিকে রওনা দেন গত বছর সব রকমের প্রতিযোগিতামূলক ফুটবল থেকে অবসর নেওয়া রিভাল্ডো। কলকাতায় আসার আগে দিল্লিতে সুব্রত কাপ ফাইনালের প্রধান অতিথি হয়েছিলেন। দিল্লি ডায়ানামোসের অ্যাকাডেমিতেও খুদে ফুটবলারদের পরামর্শ দিয়ে এসেছেন।

চলতি আইএসএলে দিল্লির কোচ হিসেবে প্রথমে রিভাল্ডোর নামই শোনা গিয়েছিল। কিন্তু পরে কোচ হয়ে যান বিশ্বকাপজয়ী ইতালীয় জামব্রোতা। আগামী বছর কি আইএসএলে কোচ হিসেবে দেখা যেতে পারে বিশ্বকাপজয়ী রিভাল্ডোকে? এ দিন সেই সম্ভাবনাকে উসকে দিয়েছেন স্বয়ং ব্রাজিলিয়ানই। শহর ছাড়ার আগে বলে গিয়েছেন, ‘‘আশা করছি খুব তাড়াতাড়ি ভারতে ফিরে আসব।’’