স্ট্রেট গেমে জিতে এশীয় ব্যাডমিন্টন চ্যাম্পিয়শিপের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠলেন পি ভি সিন্ধু ও সাইনা নেহওয়াল। চিনের উহানে বৃহস্পতিবার দাপট নিয়ে জিতে পুরুষ বিভাগের শেষ আটে পৌঁছলেন সমীর বর্মাও।

লন্ডন অলিম্পিক্সের ব্রোঞ্জজয়ী সাইনাই বৃহস্পতিবার দিনের শেষ ম্যাচটা খেললেন। দক্ষিণ কোরিয়ার কিম গা ইউনকে হারাতে তাঁর লাগল ৩৮ মিনিট। জিতলেন ২১-১৩, ২১-১৩। কোয়ার্টার ফাইনালে তাঁর কাজটা বেশ কঠিন। কারণ, সাইনাকে খেলতে হবে জাপানের আকানে ইয়ামাগুচির বিরুদ্ধে। জাপানি প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে মুখোমুখি লড়াইয়ে সাইনার জয়-হারের পরিসংখ্যান ২-৭। শেষ ছ’বারের লড়াইয়ে সাইনা মাত্র এক বারই হারাতে পেরেছেন ইয়ামাগুচিকে। ২০১৮-র অক্টোবরে ডেনমার্ক ওপেনে।

প্রতিযোগিতার চতুর্থ বাছাই সিন্ধু এ দিন হারালেন ইন্দোনেশিয়ার চোইরুন্নিসাকে। তাঁর জিততে সময় লাগল আরও কম। ৩৩ মিনিট। সিন্ধু জিতলেন ২১-১৫, ২১-১৯। সাইনার থেকে কোয়ার্টার ফাইনালে সিন্ধুর কাজটা তুলনায় সহজ। কারণ, বিশ্বের ছ’নম্বর ভারতীয় তারকা খেলবেন চিনের অবাছাই খেলোয়াড়ের চাই ইয়ানইয়ানের বিরুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার পুরুষ বিভাগে সমীরের লড়াইটা ছিল হংকংয়ের এনজি কা লং অ্যাঙ্গাসের সঙ্গে। যে লড়াই সমীর জিতলেন ২১-১২, ২১-১৯ ফলে। তবে সমীরের পক্ষে সেমিফাইনালে ওঠা খুবই কঠিন। কারণ কোয়ার্টার ফাইনালে তাঁর সামনে পড়েছেন প্রতিযোগিতার দ্বিতীয় বাছাই চিনের শি ইউকি।

মিক্সড ডাবলস থেকে ভারতীয় জুটি উৎকর্ষ অরোরা ও করিশমা ওয়াডকর দ্বিতীয় রাউন্ডে হেরে এ দিন বিদায় নিলেন। এই জুটিকে হারিয়েছে ইন্দোনেশীয় জুটি হাফিজ় ফয়জ়ল এবং গ্লোরিয়া ইমানুয়েলে উইডজাজার। তাঁরা হারেন ১০-২১, ১৫-২১ ফলে। বিদায় নিয়েছে ভারতের আর এক মিক্সড ডাবলস জুটি বেঙ্কট গৌরব প্রসাদ-জুহি দেবাঙ্গনও। চিনা জুটি ইলু ওয়াং-দনপিং হুয়াংয়ের বিরুদ্ধে তাঁরা কার্যত দাঁড়াতেই পারেননি।

মেয়েদের সিঙ্গলসে শীর্ষবাছাই চেন উফেই দ্বিতীয় রাউন্ডে লড়াই করে হারালেন ইন্দোনেশিয়ার গ্রেগোরিয়া মারিসকা তুংজং-কে ১৫-২১, ২১-১৪, ২১-১৫। শুক্রবার কোয়ার্টার ফাইনালে উফেই মুখোমুখি হবেন জাপানের আইয়া ওহোরির। সেই লড়াই জিতলে তিনি শেষ চারে সাইনা অথবা ইয়ামাগুচির মুখোমুখি পড়তে পারেন। এ ছাড়া দ্বিতীয় বাছাই নজোমি ওকুহারাকেও কোয়ার্টার ফাইনালে কড়া চ্যালেঞ্জ সামলাতে হতে পারে চিনের হি বিংজিওয়ায়ের বিরুদ্ধে।

এ দিন, প্রথম গেম সহজেই জেতার পরে ইন্দোনেশিয়ার প্রতিদ্বন্দ্বী সিন্ধুকে শক্ত লড়াইয়ের মুখে ফেলে দিয়েছিলেন। এক সময় দ্বিতীয় গেমে সিন্ধু ১৫-৯ এগিয়ে গিয়েছিলেন। সেখান থেকে চোইরুন্নিসা ১৭-১৭ করে ফেলেন। শুধু তাই নয়, এর পরে দুটো পয়েন্ট তুলে নিয়ে ১৯-১৭ এগিয়েও যান চোইরুন্নিসা। কিন্তু সিন্ধু এই সময়ে টানা চার পয়েন্ট তুলে নিয়ে ইন্দোনেশিয়ার তারকার কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠার আশা শেষ করে দেন। তবে, সিন্ধুকে সতর্ক হতে হবে শেষ আটের লড়াইয়েও। কারণ, তাঁর প্রতিপক্ষ ১৯ বছর বয়সি ইয়ানইয়ান দু’বারের জুনিয়র বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন।