• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

অলিম্পিক্স নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন

অ্যাথলিটের বুকে বন্দুক জুডোকার মুখে ঘুষি

olympics
এই ছবি পোস্ট করেন রাশিয়ান অ্যাথলিট এভজেনি। ছবি: রয়টার্স।

সমুদ্রসৈকতে বেড়াতে গিয়ে ফোন চুরি হয়ে যাচ্ছে। চোরের পিছনে ছুটতে গিয়ে তার সঙ্গীর ঘুষি পড়ছে মুখে।

অ্যাথলিটের বুকে রাইফেলের নল ঠেকিয়ে দুই কিশোর দাবি করছে, পকেট খালি করে দাও। না হলে...।

অলিম্পিক্স যত এগোচ্ছে, নতুন রেকর্ড ভাঙাগড়ার পাশাপাশি প্রকাশ্যে আসছে নানা বিতর্কও। যার মধ্যে সবচেয়ে বেশি শিরোনামে উঠে আসছে নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন।

রাশিয়ান সাঁতারু এভজেনি করোতিশকিন তো ব্যাপারটা নিয়ে রীতিমতো সাংবাদিকসুলভ ব্যবহার করেছেন। দুই বন্দুকধারী হাসিমুখ কিশোরের ছবি আপলোড করে তিনি দাবি করেন, ইপানেমা সমুদ্রসৈকতে বেড়ানোর সময় ওই দু’জনের সঙ্গে দেখা হয় তাঁর। এভজেনিকে তারা বলে, পকেটে যা আছে চুপচাপ সব বের করে তাদের দিয়ে দিতে। সেটা করেন এভজেনি, এবং তার পর নাকি দু’পক্ষের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ বিদায় হয়।

‘‘আজ রেস্তোরাঁয় যাওয়ার সময় ইপানেমা বিচের কাছে আমার সব জিনিস চুরি হয়ে গিয়েছে। পকেটে যা কিছু ছিল, সে সবের বিনিময় দারুণ একটা গল্প পেলাম যেটা চিরকাল মনে থাকবে। গল্পের দাম বেশি নয়, কিন্তু উত্তেজক,’’ লিখেছেন তেত্রিশ বছরের এভজেনি। তাঁর পোস্ট দেখে অনেক ভক্ত তাঁর প্রতি সমবেদনা জানালেও অনেকে প্রশ্ন তোলেন, চুরি হওয়ার সময় তিনি কী ভাবে ছবি তোলার অবকাশ পেলেন?

কালসিটে নিয়ে মিডিয়ার সামনে টিশেল্ট। ছবি: টুইটার।

লন্ডনে একশো মিটার বাটারফ্লাইয়ে রুপোজয়ী এভজেনি এ বার রাশিয়ান অলিম্পিক্স ট্রায়ালের এক দিন আগে হঠাৎ অবসর নেন। এখানে তিনি নিছকই দর্শক।

অলিম্পিক্সে হিংসার উদাহরণ আরও আছে। গেমসের নিরাপত্তারক্ষা প্রধানই তো উদ্বোধনী অনুষ্ঠান থেকে বেরনোর সময় চার-পাঁচ জন চোরের কবলে পড়েন। রোয়িং ইভেন্ট দেখতে যাওয়া পর্তুগালের শিক্ষামন্ত্রীকে ছুরি দেখিয়ে তাঁর টাকাপয়সা চুরি করা হয়।

বেলজিয়ান জুডোকা ডার্ক ফান টিশেল্ট আবার চোর তাড়া করতে গিয়ে ঘুষি খেলেন। ৭৩ কেজিতে এ বারের ব্রোঞ্জ-জয়ী ডার্ক তাঁর ট্রেনিং পার্টনারের সঙ্গে ইপানেমা বিচে সেলিব্রেট করছিলেন। হঠাৎ তাঁর সঙ্গীর ফোন ছিনতাই হয়। চোরের পিছনে ছোটেন ডার্ক এবং চোরের সঙ্গী তাঁর মুখে ঘুষি মারে। যার ফলে চোখের তলায় কালসিটে পড়ে যায় ডার্কের। বত্রিশ বছরের জুডোকাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়, যদিও তাঁর চিকিৎসার দরকার পড়েনি। উল্টে কালসিটে আর হাসি নিয়ে মিডিয়ার সঙ্গে দেখা করেন ডার্ক।

সংগঠকদের দাবি, পঁচাশি হাজার সৈন্য এবং পুলিশ অলিম্পিক্সের জন্য রিওয় মোতায়েন করা হয়েছে। যে সংখ্যাটা লন্ডন গেমসের দ্বিগুণ। তবু চুরি-ছিনতাই-হিংসার নিত্যনতুন ঘটনা ঘটেই চলেছে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন