• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

‘সচিনের লিগে দারুণ মজা হবে’

মোহালিতে টেস্ট ম্যাচের উইকেট কোথায় হয়েছে, প্রশ্ন সৌরভের

3-2
সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় সল্টলেকের মাঠে একটু ঝালিয়ে নিচ্ছেন সমাবেশে যোগদানের আগে। —নিজস্ব চিত্র।

সচিন তেন্ডুলকরের অল স্টারস সিরিজ খেলতে দিনকয়েকের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের বিমান ধরবেন। তার আগে শুক্রবার এবং শনিবার পুরোদমে নেট করবেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। এবং তিনি মনে করছেন, সচিন-শেন ওয়ার্নের লিগটা দারুণ মজার হবে।

‘‘বেশ একটা রিইউনিয়নের মতো হবে ব্যাপারটা। ভাল মজা হবে,’’ এ দিন সল্টলেক যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় মাঠে প্রায় ঘণ্টাখানেক নেট করে উঠে বলছিলেন সিএবি প্রেসিডেন্ট। নেটে যিনি অনেকক্ষণ শ্রীবৎস গোস্বামীকে নিয়ে পড়ে থাকলেন। স্পিনার খেলার সময় স্টান্স কেমন থাকবে, ব্যাট কী ভাবে কতটা উঠবে, দেখিয়ে দিলেন। পরে বলছিলেন, ‘‘শুধু শ্রীবৎস নয়, ব্যাটিং নিয়ে সবার সঙ্গেই আমি কথা বলেছি। তবে শ্রীবৎসকে নিয়ে বলতে পারি, ও ভাল করবে।’’

আর তিনি? তিন বছর আগে আইপিএল ছেড়ে দেওয়ার পর এই প্রথম ভরা গ্যালারির সামনে স্টান্স নেবেন। কী মনে হচ্ছে সচিনের লিগ নিয়ে? ‘‘নেটে তো ভালই ব্যাটে-বলে লাগছে। ম্যাচেও হয় কি না, দেখি,’’ বলে সহাস্য সংযোজন, ‘‘সচিন শুনেছি প্রচুর প্র্যাকটিস করছে। তবে আমরা সবাই এখন প্রাক্তন, তাই আমরা সবাই-ই এক জায়গায়!’’ ওয়াসিম আক্রমের সুইং বোলিং আবার সামলাতে হবে। সেটা নিয়ে কী ভেবেছেন সৌরভ? শুনে হাসতে হাসতে বললেন, ‘‘আরে এই আক্রম কি পুরনো আক্রম? এই আক্রমকে সামলানো অনেক সহজ হবে!’’

শনিবার নিউ ইয়র্কের সিটি ফিল্ডে উদ্বোধনী ম্যাচে নেই সৌরভ। ১২ ও ১৫ নভেম্বর, সিরিজের পরের দুটো ম্যাচে খেলবেন। সচিন গত কালই নিউ ইয়র্কে বলেছেন যে, প্রদর্শনী ম্যাচ দেখতে মাঠে থাকবেন প্রায় এক হাজার তরুণ ক্রিকেটার। জানিয়েছেন, তাঁরা নিজেরা তরুণদের বিশেষ ক্লাস নেবেন। সচিন বলেছেন, ‘‘আমরা তরুণদের রাস্তা দেখানোর জন্য, উৎসাহ দেওয়ার জন্য তৈরি আছি। সবাই আমার সঙ্গে রয়েছে। এ বার তরুণদেরও এগিয়ে আসতে হবে।’’

অল স্টারস সমাবেশ। নিউ ইয়র্ক থেকে কলকাতা। টিম বাসে সচিন-লারাদের পুনর্মিলন। ছবি: টুইটার।

তারকাখচিত সিরিজের আর এক প্রধান উদ্যোক্তা শেন ওয়ার্ন বলেছেন, উদ্বোধনী সিরিজে ভাল সাড়া পেলে আগামী তিন বছরে পনেরোটা ম্যাচের আয়োজন করতে চান। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রতি মরসুমে অন্তত তিনটে করে ম্যাচ খেলতে চান তাঁরা। ওয়ার্ন জানিয়েছেন, বেসবল-প্রিয় যুক্তরাষ্ট্রে ক্রিকেটকে জনপ্রিয় করতে ডেভিড বেকহ্যামের মডেল অনুসরণ করবেন তাঁরা। ‘‘এখানে সকার অত জনপ্রিয় ছিল না। কিন্তু ডেভিড বেকহ্যাম আসার পরে সকার হঠাৎ প্রচণ্ড জনপ্রিয় হতে শুরু করেছে,’’ বলে ওয়ার্ন আরও যোগ করেছেন, ‘‘মনে হয় না আমরা বিরাট ঝুঁকি নিচ্ছি। মনে হয় মার্কিন জনতা ক্রিকেটের জন্য একদম তৈরি।’’ সচিন আবার বলেন, ‘‘পরের বছর এসে যদি দেখি এখানে একটা ছোট ছেলে বেসবল ব্যাটের সঙ্গে ক্রিকেট ব্যাট নিয়েও খেলছে, খুব ভাল লাগবে।’’

এ দিন অল-স্টারস সিরিজের পাশাপাশি মোহালিতে ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা টেস্ট নিয়েও বলেন সৌরভ। বিশেষ করে মোহালির বাইশ গজের প্রসঙ্গে তাঁর সাফ মন্তব্য, ‘‘এটা টেস্ট ক্রিকেটের উইকেট নয়। দেখে মনে হচ্ছে এটা চতুর্থ দিনের পিচ হয়েছে। তবে এই সিরিজে হোম অ্যাডভান্টেজ খুব গুরুত্বপূর্ণ। ভারত যে সেটা পাচ্ছে, সেটাই সবচেয়ে বড় ব্যাপার।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন