সামনেই বিশ্বকাপ। বেশির ভাগ দেশই তাদের সেরা ১৫ জনকে বেছে নিয়েছে। ভারতও তাদের সেরা ১৫ জনের দল ঘোষণা করেছে। যেখানে নেই ঋষভ পন্থ। প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় আগেই বলেছিলেন, তিনি নির্বাচক হলে ঋষভ পন্থকে তাঁর দলে রাখতেন। কিন্তু বিশ্বকাপের পরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নিতে পারেন মহেন্দ্র সিংহ ধোনি। তাঁর যোগ্য উত্তরসূরি হিসেবে দিল্লি ক্যাপিটালস দলের উপদেষ্টার চোখে সেরা কে?

বুধবার মধ্য কলকাতার এক পাঁচ তারা হোটেলে রাউন্ড টেবল সাক্ষাৎকারে বসে সৌরভ বলে দিলেন, ‘‘সারা জীবন কেউ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে পারে না। ধোনি, দীনেশ কার্তিকও কোনও এক সময় অবসর নেবে। তাই আমার মতে ঋষভই পরিবর্ত হিসেবে এগিয়ে।’’

বিশ্বকাপে সুযোগ না পাওয়ার পরে হতাশ হয়ে পড়েছিলেন ঋষভ। সংবাদমাধ্যমের সামনে যা স্বীকারও করেছন তরুণ উইকেটকিপার। সেই সময়ে ঋষভের আত্মবিশ্বাস ফিরিয়ে আনার কাজ কতটা কঠিন ছিল? সৌরভ বলছিলেন, ‘‘ঋষভকে বলার কী আছে? মাত্র কুড়ি বছর বয়স। এখনও প্রচুর বিশ্বকাপ খেলার সময় আছে ওর কাছে। ও সেটা বুঝতে পেরেছে।’’ 

শুধু ঋষভ নয়। সৌরভের মুখে প্রশংসা শোনা গেল পৃথ্বী শয়েরও। বর্তমানে ভারতীয় টেস্ট দলের ওপেনার পৃথ্বী। সেই সঙ্গে সৌরভের দলেও শিখর ধওয়নের সঙ্গে ইনিংস শুরু করছেন। সৌরভ জানিয়ে দিলেন, ভবিষ্যতে সব ফর্ম্যাটেই ভারতের হয়ে ওপেন করার রসদ রয়েছে পৃথ্বীর। সৌরভের কথায়, ‘‘এখনও কুড়ি বছরের গণ্ডিও পেরোয়নি। তবুও টেস্টে ওপেন করছে। প্রচণ্ড প্রতিভাবান ক্রিকেটার। ভবিষ্যতে ভারতের হয়ে সব ফর্ম্যাটে ওকে ওপেনার হিসেবে দেখা যাবে।’’ 

সৌরভ যে দলের উপদেষ্টা, সেখানে পৃথ্বী, ঋষভ, শ্রেয়স আইয়ার, মনজ্যোৎ কলরাদের সঙ্গে কাজ করতে হচ্ছে। ভারতীয় ক্রিকেটের ভবিষ্যৎ বলে ধরা হচ্ছে যাঁদের। উপদেষ্টা হিসেবে তাদেরকে ঠিক দিশায় এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার এই কাজ কতটা কঠিন? সৌরভের উত্তর, ‘‘কোনও কাজ আমি চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখি না। ওদের সঙ্গে কাজ করার প্রত্যেক মুহূর্ত আমি উপভোগ করি। কোনও বিষয় আমার কাছে চ্যালেঞ্জ নয়। চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখিই না। কঠিন সময়ে বিভিন্ন উপায় খুঁজে নেওয়ার চেষ্টা করি। সেটাই আমার কাজ করার ধরন।’’

আইপিএল রমরমিয়ে চললেও হাতে গোনা বাংলার ক্রিকেটারেরা টিমটিম করে জ্বলছেন। মহম্মদ শামি, ঋদ্ধিমান সাহা, শ্রীবৎস গোস্বামী ও প্রয়াস রায়বর্মণের মধ্যে শুধুমাত্র শামি প্রত্যেক ম্যাচে খেলছেন কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের হয়ে। বাকিরা সুযোগই পাচ্ছেন না। বঙ্গ ক্রিকেটপ্রেমীদের সব চেয়ে বড় প্রশ্ন, আইপিএলে বাংলার ক্রিকেটারদের দেখতে পাওয়া যাচ্ছে না কেন? সৌরভের উত্তর, ‘‘আইপিএলে বাংলার ক্রিকেটারেরা আগে খেলেছে। যেমন আমি, ডিন্ডা, মনোজ অনেক দিন ধরে খেলেছি। এ বারও চারজন রয়েছে। শামি কিন্তু ওদের মধ্যে দুরন্ত পারফর্ম করে চলেছে। আমি মনে করি ঋদ্ধিরও সুযোগ পাওয়া উচিত।’’ সঙ্গে যোগ করেন, ‘‘আইপিএলে সুযোগ পাওয়া সোজা নয়। জায়গা করে নিতে হবে। আশা করি, ভবিষ্যতে বাংলা থেকে অনেক বেশি ক্রিকেটার আইপিএলে সুযোগ পাবে।’’

সামনেই বিশ্বকাপ। তার আগে বেশির ভাগ দেশ তাদের সেরা ১৫ জনের নাম ঘোষণা করেছে। শুধুমাত্র ওয়েস্ট ইন্ডিজ এখনও পর্যন্ত তাদের দল ঘোষণা করেনি। প্রাক্তন ভারতীয় অধিনায়কের নজরে কোন চার দল সেমিফাইনালে খেলতে পারে? সৌরভ বলছিলেন, ‘‘উত্তরটা খুবই কঠিন। কিন্তু আমি মনে করি, ভারত এ বারের অন্যতম সেরা দল। বলা যায় চ্যাম্পিয়ন হওয়ারও দাবিদার। আইপিএলের পারফরম্যান্স দেখে বিবেচনা করলে চলবে না।’’

কিন্তু কোন চার দল তাঁর ফেভারিট? সৌরভের সাফ জবাব, ‘‘ভারত, অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, পাকিস্তানকে শেষ চারের রাস্তায় এগিয়ে রাখছি। দেখা যাক বাকিটা মেলে কি না।’’

আইপিএলে বিরাট কোহালির রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর সে ভাবে জিততে পারছে না। তার প্রভাব কি বিশ্বকাপে কোনও ভাবে পড়তে পারে? ‘‘কখনওই না। আইপিএলের পারফরম্যান্স দেখে বিশ্বকাপ বিবেচনা করা উচিত নয়। আইপিএলে কোহালির দল হয়তো হারছে। কিন্তু বর্তমানে ভারত অধিনায়ক হিসেবে কোহালির পারফরম্যান্স দেখলে যে কেউ আশ্চর্য হয়ে যাবেন। কত ম্যাচ জিতেছে বলুন তো। কুলদীপ যাদবকে নিয়েও অনেকে মনে করছেন ও উইকেট পাচ্ছে না বলে বিশ্বকাপে সফল হতে পারবে না। কিন্তু ইংল্যান্ডে কুলদীপ সফল হবেই। এ বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই।’’