দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে আসন্ন টি-টোয়েন্টি সিরিজে মহেন্দ্র সিংহ ধোনি সুযোগ না পাওয়ায় আদৌ অবাক হননি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। ভারতের প্রাক্তন অধিনায়ক মনে করেন, তরুণ ঋষভ পন্থের উপরে ভরসা রেখে ঠিক কাজই করেছে টিম ম্যানেজমেন্ট।

ধোনির ক্রিকেট ভবিষ্যৎ কোন দিকে এগোচ্ছে, তা নিয়ে দেশজুড়ে জল্পনা চলছে। দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজে ধোনির দলে না-থাকাটা কি আপনাকে অবাক করেছে? এই প্রশ্নের জবাবে শনিবার নয়াদিল্লিতে সৌরভ বলেছেন, ‘‘একেবারেই নয়। আমি আশাও করিনি, দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজে ওকে দলে রাখা হবে।’’

ধোনির সুযোগ না পাওয়া নিয়ে সৌরভ বলেছেন, ‘‘ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি সিরিজের দল দেখেই বোঝা যাচ্ছিল, টিম ম্যানেজমেন্ট কী চাইছে। ওরা ঋষভকে সুযোগ দিতে চায়। এবং একেবারে ঠিকই করছে। ধোনি যখন তরুণ ছিল, তখন ওকেও একই ভাবে সুযোগ দেওয়া হত।’’ 

ধোনির প্রথম আন্তর্জাতিক অধিনায়ক এও মনে করেন, এই ঘোরালো পরিস্থিতিটা স্বয়ং বিরাট কোহালিকেই সামলাতে হবে। সৌরভের মন্তব্য, ‘‘ধোনির সঙ্গে কথা বলে বিরাট কী ভাবে পরিস্থিতিটা সামলাবে, সেটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। ধোনির থেকে কোহালি কী চায়, সেটা বলা বেশ কঠিন। কিন্তু এখনই ধোনির ভবিষ্যৎ নিয়ে কোনও মন্তব্য করা উচিত নয়।’’ সৌরভ আরও বলেন, ‘‘জানি না, ধোনি, নির্বাচক এবং টিম ম্যানেজমেন্টের মধ্যে কী কথাবার্তা চলছে। ঘটনা থেকে আমি অনেক দূরে আছি।’’

সৌরভ মনে করেন, প্রতিটি বড় অ্যাথলিটের জীবনে এই সময়টা আসে, যখন কঠিন একটা সিদ্ধান্ত নিতে হয়। ‘‘সবার জীবনেই এ রকম ঘটনা ঘটে। তা সে মারাদোনা, সাম্প্রাস, তেন্ডুলকর কী ধোনি— যে-ই হোক না কেন। একটা বয়সে পৌঁছনোর পরে এ রকম পরিস্থিতির মুখে পড়তেই হবে,’’ বলেছেন সৌরভ। ভারতের অন্যতম সেরা অধিনায়ক এও বলেন, ‘‘বিরাট এবং টিম ম্যানেজমেন্ট যদি চায় ধোনি খেলবে, তা হলে ও খেলবে। আর ওরা যদি ভবিষ্যতের দিকে তাকাতে চায়, তা হলে তাকাবে।’’ 

সৌরভ এও পরিষ্কার করে দিচ্ছেন, তিনি কোনও ভাবেই চান না ধোনির সঙ্গে ঋষভের তুলনা হোক। এই নিয়ে প্রশ্ন করা হলে সৌরভ সটান বলে দেন, ‘‘ঋষভ কোনও ভাবেই ধোনি নয়। এবং পরের তিন-চার বছরেও ধোনি হয়ে উঠবে না। ধোনিকে এই ধোনি হয়ে উঠতে ১৫ বছর সময় লেগেছিল।’’

আইপিএলে ঋষভের দল দিল্লি ক্যাপিটালসের মেন্টর সৌরভ অবাক হয়েছেন, কী ভাবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্টে ব্যর্থ হওয়ার পরে মিডিয়ায় ঋষভের দলে থাকা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল। ‘‘ধোনির সঙ্গে তুলনা না করলেও বলব, ঋষভ কিন্তু বিশেষ প্রতিভাবান,’’ মন্তব্য সৌরভের। 

তা হলে বাংলার ঋদ্ধিমান সাহার কী হবে? সৌরভ বলে দেন, ‘‘ঋদ্ধিমানকে এখন অপেক্ষা করতে হবে। বয়সটা এখানে বিচার্য নয়।’’