বিশাখাপত্তনমে প্রথম টেস্টে দল নির্বাচনে ভুল করেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। এমনই মনে করেন অনিল কুম্বলে। প্রাক্তন লেগস্পিনারের মতে, ২০১৫ সালে ভারত সফরের ভূতই তাড়া করছে প্রোটিয়াদের। আর সেই কারণেই তিন স্পিনারে দল সাজিয়েছিলেন ফাফ দু’প্লেসিরা।

চার বছর আগে ভারতে চার টেস্টের সিরিজ খেলতে এসেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। আর সেই সিরিজে স্পিন-সহায়ক উইকেটে টিম ইন্ডিয়া ৩-০ গুঁড়িয়ে দিয়েছিল প্রোটিয়াদের। কুম্বলের মতে, সেই সিরিজের আতঙ্ক থেকেই এ বার কেশব মহারাজ, ডেন পিদেত ও সেনুরান মুথুস্বামী— তিন স্পিনারে দল সাজিয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। আর তা করতে গিয়েই ভারসাম্য নষ্ট হয়েছে।

এক ক্রিকেট ওয়েবসাইটকে কুম্বলে সাফ বলেছেন, “বেশ কিছু দল এ দেশে এসে ভারতীয় দলের ভারসাম্যের সঙ্গে পাল্লা দিতে যায়। যার ফলে নিজেদের ভারসাম্য নষ্ট হয়ে যায়। এ বার দক্ষিণ আফ্রিকারও ঠিক তাই হয়েছে। জানি না ওরা প্রথম টেস্টের পিচে ঠিক কী দেখেছিল যে পিচ মারাত্মক ঘূর্ণি হয়ে উঠবে বলে ভেবেছিল। হয়তো ওদের মাথায় ছিল ২০১৫ সালের কথা। সেই ভূতই দল বেছে নেওয়ার সময় ওদের মনে পড়েছিল। তার জন্যই তিন স্পিনার খেলানো হয়েছিল।”

আরও পড়ুন: একমাত্র টেস্ট গড়িয়েছিল তিন দিন, এ বার কেমন হবে ‘পুওর’ পুণে পিচ?​

আরও পড়ুন: জাহিরকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে ভিডিয়ো পোস্ট করে বিতর্কে জড়ালেন হার্দিক​

কিংবদন্তি স্পিনারের মতে, “হাতে তিনজন দক্ষ স্পিনার থাকলে, যাঁরা কি না ম্যাচ জেতানোর ক্ষমতা ধরেন, তবেই একমাত্র তাঁদের খেলানো যায়। না হলে যে ২০ উইকেট নিতে পারবে, তেমন ভারসাম্যই রাখা উচিত দলে। প্রোটিয়ারা ভুল করেছিল পিচ বুঝতে। আর তার জন্যই ওরা তিন স্পিনার খেলিয়েছিল।” বৃহস্পতিবার থেকে পুণেয় শুরু সিরিজের দ্বিতীয় টেস্ট। কুম্বলে বলেছেন, “দক্ষিণ আফ্রিকাকে সবার আগে নিজেদের বোলিং লাইন আপ ঠিক করতে হবে। বোলারদের যাতে উইকেট নেওয়ার মতো দেখায়, সেটা নিশ্চিত করতে হবে। প্রথম টেস্টে খুব অল্প সময়েই প্রোটিয়া বোলারদের বিপজ্জনক দেখিয়েছে ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের সামনে। কোন কম্বিনেশনে গেলে ভারতের ২০ উইকেট নেওয়া যাবে, এটা ভাবতে হবে ওদের।”