কলকাতা লিগের শুরুতেই চার স্প্যানিশ ফুটবলারকে মাঠে নামাতে চাইছে মোহনবাগান। ক্লাব সূত্রের খবর, সামনের সপ্তাহেই অনুশীলনে যোগ দেওয়ার কথা নতুন চুক্তি হওয়া বাকি দুই বিদেশি মিডিয়ো জোসেবা বেইতিয়া ও ফ্রান গঞ্জালেস। 

গোয়ার শিবির শেষে আজ শুক্রবার শহরে ফিরছেন কিবু ভিকুনা। সোমবার থেকে মোহনবাগান মাঠে ফের শুরু অনুশীলন। দশ দিনে তিনটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছে মোহনবাগান। বৃহস্পতিবার শেষ প্রস্তুতি ম্যাচে ক্যালাঙ্গুটা এফ সি-র বিরুদ্ধে নজর কাড়লেন স্প্যানিশ স্ট্রাইকার সালবা চামারো। নিজে গোল তো করলেনই, করালেন আরও একটি। শিল্টন পালরা জিতলেন ৬-১ গোলে। চামারো ছাড়াও গোল করলেন নোংদম্বা নায়রেম, সুরাবুদ্দিন মল্লিক, ধনচন্দ্র সিংহ জেসন ভাজ ও দীপ সাহা। সবুজ মেরুণ অ্যাকাডেমির ফুটবলার দীপও নজর কেড়েছেন স্প্যানিশ কোচের। ৩২ জন ফুটবলারের সঙ্গে সেসা গোয়ার দু’জনকে ট্রায়ালে ডেকেছিলেন মোহনবাগান কোচ। এঁদের মধ্য থেকে ২৭ জনকে বেছে কলকাতা লিগের আগে নিজেদের মাঠে শেষ সপ্তাহের প্রস্তুতি শুরু করবেন ভিকুনা। সেখানে চার স্প্যানিশ ফুটবলারকে চান তিনি। প্রস্তুতি ম্যাচে জয়ের হ্যাটট্রিক করার পর দলের ছেলেদের খেলায় খুশি মোহনবাগান কোচ বলে দিয়েছেন, ‘‘চূড়ান্ত অনুশীলন শুরু করব বাছাই দলকে নিয়ে। তাতে চার বিদেশি ফুটবলারকে চাইছি। সে রকমই বলেছি ক্লাবকে। লিগের শুরু থেকেই সব বিদেশিকে নিয়েই মাঠে নামতে চাই।’’

এ দিকে মোহনবাগান যখন আবাসিক শিবির ও প্রস্তুতি ম্যাচ খেলে শহরে ফিরছে, তখন ইস্টবেঙ্গল কোচ কবে অনুশীলনে যোগ দেবেন তা নিয়েই ধোঁয়াশা রয়েছে। বাকি তিন বিদেশি কবে আসবেন বা কোনও আবাসিক শিবির হবে কি না তা জানাতে পারেননি ফুটবল দল পরিচালনার দায়িত্বে থাকা বিনিয়োগ সংস্থার পদাধিকারীরা। 

লাল-হলুদ কর্তারা অবশ্য ক্লাবের  শতবর্ষ উদযাপনের অনুষ্ঠান সফল করতে সব শক্তি নিয়ে মাঠে নেমেছেন। বুধবারের শতবর্ষের সাংবাদিক সম্মেলনে হাজির ছিলেন খাইমে কোলাদো-সহ জনা দশেক ফুটবলার। বিনিয়োগকারী সংস্থার কর্তাদেরও আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। কিন্তু সংস্থার প্রধান কর্তারা বাইরে থাকায় উপস্থিত থাকতে পারেননি বলে জানা গিয়েছে। তবে ২৮ জুলাই ক্লাবের শতবর্ষের মশাল মিছিলে বর্তমান ও অতীত দিনের কয়েকশো ফুটবলারকে উপস্থিত করার চেষ্টা চলছে। কুমারটুলি পার্ক থেকে মিছিলের সূচনা করবেন সুকুমার সমাজপতি। ক্লাবে তা গ্রহণ করার কথা ভাইচুং ভুটিয়ার।

জুলাইয়ের শেষ সপ্তাহে শুরু হবে কলকাতা লিগ এবং অগস্টের শুরুতে ডুরান্ড। দুই প্রধান শেষ পর্যন্ত ফেডারেশনের বিরুদ্ধে ‘যুদ্ধে’ কতটা সফল হবে তা সময় বলবে। তবে কলকাতা লিগ ও ডুরান্ড নিয়ে এ বার প্রচন্ড আগ্রহ তৈরি হয়েছে ময়দানে। কারণ ভারতীয় ফুটবলের স্প্যানিশ জোয়ারে এ বার সামিল হয়েছে দুই প্রধান। ডার্বির ইতিহাসে প্রথমবার ইস্টবেঙ্গল এবং মোহনবাগান ডাগ আউটে থাকবেন স্প্যানিশ কোচ। শুধু তাই নয় দু’দলের আট খেলোয়াড়ের মধ্যেও সাত ফুটবলার খেলবেন স্পেনের। ইস্টবেঙ্গল তাদের পুরানো দুই ফুটবলার কোলাদো এবং বোরখা গোমেজের সঙ্গে নিয়েছে আর এক স্প্যানিশ মার্তি ক্রিসপিকে।