• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ফের কলমডী কেন, আইওএ-কে শো-কজ ক্রীড়ামন্ত্রকের

Kalmadi-Choutala
সুরেশ কালমাদি ও অভয় চৌটালা। ছবি: পিটিআই।

Advertisement

আইওএ-এর সিদ্ধান্তে রীতিমতো বিরক্ত কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রক। মঙ্গলবার এই খবর আসতেই ক্রীড়ামন্ত্রী টুইট করে তাঁর বক্তব্য পরিষ্কার করে দেন। বিজয় গোয়েল টুইটে লেখেন, ‘‘ক্রীড়াক্ষেত্রে স্বচ্ছতা খুব গুরুত্বপূর্ণ। যতদিন না কলমডী ও চৌটালাকে সারানো হচ্ছে ততদিন আমরা আইওএর সঙ্গে কোনও সম্পর্ক রাখব না। এটা মেনে নেওয়া যায় না।’’  আর ক্রীড়ামন্ত্রকের তরফে বুধবার শো-কজ করা হল ইন্ডিয়ান অলিম্পিক্স অ্যাসোসিয়েশনকে।

ইন্ডিয়ান অলিম্পিক্স অ্যাসোসিয়েশনে আবার ফিরিয়ে আনা হয়েছে সুরেশ কলমডীকে। এই খবর সামনে আসতেই নড়েচড়ে বসেছে কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রক। ২০১০এ দিল্লি কমনওয়েলথ গেমস দুর্নিতির পরই সরে যেতে হয়েছিল কলমডী অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েশনকে। ১০ মাস জেলও খাটতে হয়েছিল। যদিও পরে ছেড়ে দেওয়া হয় তাঁকে। মঙ্গলবার চেন্নাইয়ে আইওএ-এর বার্ষিক সাধারণ সভায় কলমডী ও চৌটালাকে আজীবন সভাপতি করে দেওয়া হয়।

যদিও যা খবর তাতে কলমডী আইওএ-এর দেওয়া পদ গ্রহন করেননি।

১৯৯৬ থেকে ২০১১ পর্যন্ত ইন্ডিয়ান অলিম্পিক্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতির পদে ছিলেন কলমডী। ২০১২ থেকে ২০১৪ পর্যন্ত সেই পদ সামলান অভয় সিংহ চৌটালা। এর পর আন্তর্জাতিক অলিম্পিক্স কমিটি আইওএ-কে নির্বাসিত করে। কারণ চার্জশিটে নাম থাকা কাউকে অ্যাসোসিয়েশনের নির্বাচনে রাখা হয়েছিল। আইওএ-এর নিয়ম অনুযায়ী এরকম কাউকে নির্বাচনে প্রতিনিধিত্ব করতে দেওয়া যাবে না। এর পর ২০১৪তে চৌটালাকে সরিয়ে দেওয়ার পর নির্বাসন তুলে নেয় আইওসি। আইওএ-এর সহ-সভাপতি তারলোচন সিংহ বলেন, ‘‘আইওএ-এর কাউকে আজীবন সভাপতি নির্বাচন করার জন্য কারও অনুমতির দরকার নেই। সর্বসম্মতিতেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’’ 

আরও খবর: আইওএ কুর্সিতে কলমডীর ফেরা নিয়ে বিতর্ক তুঙ্গে

যা যা ঘটল

• সুরেশ কলমডী ও অভয় চৌটালাকে ইন্ডিয়ান অলিম্পিক্স অ্যাসোসিয়েশনের আজীবন সভাপতি করা হল।

• দু’জনের নাম ঘোষণা হতেই চাপ সৃষ্টি হতে থাকে আইওএ-এর উপর। কালমাদির উকিল জানিয়ে দেন আইওএ-এর দেওয়া পদ নিতে অস্বীকার করেছেন কালমাদি। দুর্নিতিমুক্ত না হয়ে কোনও পদে যাবেন না বলেও জানিয়ে দিয়েছেন তিনি।

• ক্রীড়ামন্ত্রক শো-কজ করল ইন্ডিয়ান অলিম্পিক্স অ্যাসোসিয়েশনকে। ক্রীড়ামন্ত্রী বিজয় গোয়েল জানিয়ে দিলেন, যতদিন পর্যন্ত কলমডী ও চৌটালা থাকবেন ততদিন আইওএ-এর সঙ্গে কোনও রকম সম্পর্ক রাখবেন ক্রীড়ামন্ত্রক।

• আন্তর্জাতিক হকি ফেডারেশনের সভাপতি নারিন্দর বাত্রাও এই সিদ্ধান্তে রীতিমতো বিরক্ত। এটা যদি বদল না হয় তা হলে অলিম্পিক্স অ্যাসোসিয়েশন থেকে সরে দাঁড়াবেন তিনি।

• কলমডীর তরফ থেকে অবশ্য এই পদ গ্রহণ না করার কথাই বলা হয়েছে। তিনি জানিয়ে দিয়েছেন, যতদিন পর্যন্ত না তিনি পুরোপুরি দোষমুক্ত হচ্ছেন ততদিন কোনও পদে বসবেন না।

• অভয় চৌটালা তাঁর নির্বাচনের পক্ষে যুক্তি দিয়েছেন। তাঁর মতে, তাঁর এতদিনের কাজের ফলেই তাঁকে এই পদ দেওয়া হয়েছে। আইওএ সদস্যদের ভোটেই এখানে পৌঁছেছেন তিনি।

• কলমডী ও চোটালার আগে একজনকেই আজীবন সভাপতির পদ দেওয়া হয়েছিল। তিনি বিজয় কুমার মালহোত্র।

• এই বছরই হরিয়ানা অলিম্পিক্স অ্যাসোসিয়েশনের হেড করা হয়েছে চৌটালাকে। এই বছরের নভেম্বরেই সম্পত্তি সংক্রান্ত বিষয়ে সিবিআই-এর জেরার মুখে পড়েছিলেন তিনি।

• ইন্ডিয়ান অ্যামেচার বক্সিং ফেডারেশনের সভাপতি ছিলেন চৌটালা। সেই সংস্থার নির্বাচনে চৌটালা অন্যায়ভাবে হস্তক্ষেপ করেছিলেন। যার পর ওয়ার্ল্ড বডি থেকে নির্বাসিত করা হয় আইএবিএফ-কে। 

 

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন