পি আর সৃজেশের বাবা পি ভি রবীন্দ্রন গুরুতর অসুস্থ। তাই হকি বিশ্বকাপের জাতীয় শিবির থেকে কেরলে উড়ে গেলেন ভারতীয় দলের গোলরক্ষক। তবে শনিবার কানাডা ম্যাচের আগেই তিনি দলের সঙ্গে যোগ দেবেন। বৃহস্পতিবার ভুবনেশ্বরে জাতীয় দলের সঙ্গে তাঁর অনুশীলন করারও কথা।

শনিবার কানাডার বিরুদ্ধে ম্যাচেই পরিষ্কার হয়ে যাবে, কোন দেশ পুল ‘সি’ থেকে সরাসরি কোয়ার্টার ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে। কোনও কারণে ভারত যদি তাদের পুলে শীর্ষস্থান না পায়, তা হলে খেলতে হবে ক্রসওভার পর্যায়ে। সে ক্ষেত্রে আকাশদীপ সিংহদের লড়াইটা হবে পুল ডি-এর যে কোনও একটি দলের সঙ্গে। যেখানে রয়েছে জার্মানি, নেদারল্যান্ডস, মালয়েশিয়া ও পাকিস্তান। জার্মানির খেলা দেখতে বুধবার কলিঙ্গ স্টেডিয়ামে উপস্থিত ছিলেন লিয়েন্ডার পেজ। প্রসঙ্গত তাঁর বাবা ভেস পেজ ভারতের একজন প্রাক্তন হকি তারকা। লিয়েন্ডার  বলেছেন, খেলা দেখতে দেখতে তাঁর নিজের হকি অলিম্পিয়ান বাবার কথাই মনে পড়ছিল। এখন দেখার কানাডার বিরুদ্ধে ভারতীয় দলকে উৎসাহ দিতে লিয়েন্ডার গ্যালারিতে হাজির থাকেন কি না।  যে ম্যাচে কানাডাকে বড় ব্যবধানে হারানোটাই প্রধান লক্ষ্য হরেন্দ্র সিংহের।

পুল ‘সি’-র দ্বিতীয় ম্যাচে ভারত ৫-০ হারায় দক্ষিণ আফ্রিকাকে। পরের ম্যাচ ২-২ ড্র করে বেলজিয়ামের সঙ্গে। বেলজিয়াম তাদের শেষ ম্যাচ খেলবে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে। রেড লায়ন্সেরও লক্ষ্য থাকবে বড় ব্যবধানে জয়। তবে ভারত আগেই দক্ষিণ আফ্রিকাকে পাঁচ গোল দেওয়ায় বেশ সুবিধাজনক অবস্থায় আছে। বুধবার ওড়িশা পুলিশ ভারতীয় হকি দলকে সংবর্ধিত করল কলিঙ্গ স্টেডিয়ামের ফ্যান পার্কে। সেখানে ভারতীয় দলের কোচ হরেন্দ্র জানালেন, কানাডা ম্যাচের আগে ক’দিন বিরতি থাকায় সৃজেশকে তাঁরা ছাড়তে পেরেছেন। 

এ দিকে কিংবদন্তি হকি তারকা অস্ট্রেলিয়ার রিক চার্সওয়ার্থ মন্তব্য করেছেন, ‘‘এ বারের প্রতিযোগিতায় ভারত এতটাই ভাল খেলছে যে চোখ সরানো যাচ্ছে না।’’ বিশেষ করে তিনি মুগ্ধ, বেলজিয়ামের ম্যাচে সিমরনজিৎ সিংহের গোল দেখে। তাঁর কথা, ‘‘ওই গোলটা দেখে আমার ক্রিকেটে উইকেরক্ষকের কথাই মনে পড়ছিল। উইকেটরক্ষক যেমন ক্যাচের বলের জন্য অপেক্ষা করতেই থাকে। তারপর হঠাৎ সেই ক্যাচটা আসে এবং উইকেরক্ষককে ঝাঁপিয়ে পড়তে হয়। সিমরনজিতও তেমনই প্রকৃত স্ট্রাইকারের মতো অপেক্ষা করেছিল স্টিকটা মাটিতে ঠেকিয়ে। যদি ও সোজা দাঁড়িয়ে থাকত তা হলে কিন্তু গোলটা করতে পারত না।’’