রবি শাস্ত্রীর কোচ হওয়া প্রায় নিশ্চিত। এ বার তাতে অনেকটা শীলমোহরের মতো কাজ করল সুনীল গাওস্করের মন্তব্য। তিনি বলে দিলেন, ভারতের পরবর্তি কোচ রবি শাস্ত্রীই। সোমবারই নিজের আবেদনপত্র বিসিসিআই-এ জমা দেওয়ার কথা সরকারিভাবে জানা গিয়েছে। ২০১৪ থেকে ২০১৬ পর্যন্ত ভারতের টিম ডিরেক্টর হিসেবে ছিলেন শাস্ত্রী। এর পর সরে যেতে হয় তাঁকে। তাঁর জায়গায় ভারতীয় দলের দায়িত্ব নেন অনিল কুম্বলে। এক বছর পর সরে যেতে হয়েছে তাঁকেও।

আবার নতুন কোচের খোঁজে নেমেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। আর সেখানেই উঠে এসেছে শাস্ত্রীর নাম। এ দিন গাওস্কর বলেন, ‘‘রবির হাত ধরেই ২০১৪তে ভারতীয় ক্রিকেট দলের ঘুরে দাঁড়ানোর শুরু। ইংল্যান্ডে ভারতের হারের পরই ওকে বিসিসিআই টিম ডিরেক্টর হওয়ার অনুরোধ করে। তার পরই ভাগ্য বদলাতে থাকে ভারতের। এ বার আবার ও আবেদন জানিয়েছে। সম্ভবত ওই আবার ফিরবে।’’

আরও খবর: কোচের আবেদনপত্র পাঠিয়ে দিলেন শাস্ত্রী, তাঁকেই ফেরত চায় দল

ভারতীয় দলও যে তাঁকেই চাইছে সেটাও পরিষ্কার হয়ে গিয়েছে। আগামী ১০ জুলাই মুম্বইয়ে ক্রিকেট অ্যাডভাইসরি কমিটির সামনে ইন্টারভিউ দিতে হবে নির্বাচিত প্রার্থীদের। ৯ জুলাই পর্যন্ত শেষ আবেদন জানানো যাবে কোচেপ পদের জন্য।শাস্ত্রী ছাড়াও এই তালিকায় রয়েছেন, বীরেন্দ্র সহবাগ, লালচাঁদ রাজপুত, টম মুডি, রিচার্ড পাইবাস ও ডোডা গনেশ। গাওস্কর বলেন, ‘‘সহবাগ ও মুডি আইপিএল-এ ভাল কাজ করেছে।কিন্তু সিএসি নিশ্চয় তাঁকেই বাছবে যার সঙ্গে ভারতীয় দলের সুবিধে হবে। আর আগে এই দলের সঙ্গে কাজ করার সুবাদে ও দ্রুত মানিয়েও নিতে পারবে।’’

শাস্ত্রীর সময়ে ভারত ২২ বছর পর শ্রীলঙ্কার মাটিতে টেস্ট সিরিজ জিতেছিল। এ ছাড়া ঘরের মাটিতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ৩-০তে সিরিজ জিতে নিয়েছিল। এর পর এশিয়া কাপ জয়। এর পরও ভারতের দায়িত্ব থাকতে চেয়েছিলেন শাস্ত্রী কিন্তু সৌরভ-সচিন-লক্ষ্মণের কমিটি বেছে নেয় কুম্বলেকে। যদিও বিরাট কোহালির সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি হওয়াতেই সরে যেতে হল কুম্বলেকে।