• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

কল্যাণীতে হারের জের, আলেয়ান্দ্রোকে ‘গো ব্যাক’, সমর্থকদের হেনস্থার শিকার সঞ্জিৎ সেন

Alejandro Menendez
এতদিন ছিলেন ম্যাজিশিয়ান। হারের পরে মেনেন্ডেজকে শুনতে হল গো ব্যাক ধ্বনি।

প্রিয় দল নিয়ে অসন্তোষ ক্রমশ বাড়ছিল সমর্থকদের মনে। আই লিগ যত এগোচ্ছে, ততই লিগের দৌড় থেকে পিছিয়ে পড়ছে ইস্টবেঙ্গল। গোয়ায় চার্চিল ব্রাদার্সের কাছে হারতে হয়েছে ইস্টবেঙ্গলকে।

বুধবার ঘরের মাঠে গোকুলম এফসি-ও মাটি ধরিয়ে গেল আলেয়ান্দ্রো মেনেন্ডেজের ছেলেদের। ম্যাচ হারের পরে সমর্থকদের সহ্যের সীমা মাত্রা ছাড়ায়।

ক্ষুব্ধ সমর্থকদের হাতে হেনস্থা হতে হয় কোয়েস ইস্টবেঙ্গলের সিইও সঞ্জিৎ সেনকে। তাঁর দিকে উড়ে আসে চড়। কোচ আলেয়ান্দ্রো মেনেন্দেজকেও শুনতে হয় ‘গো ব্যাক’ ধ্বনি। অথচ স্পেনীয় কোচের উপরেই এতদিন আস্থা দেখিয়েছিলেন সমর্থকরা। এ দিন মোহভঙ্গ হয় স্পেনীয় কোচে। 

 আরও পড়ুন: হেনরি-মার্কাস কাঁটায় বিদ্ধ ইস্টবেঙ্গল, ডার্বি ম্যাচের আগে লজ্জার হার কোলাডোদের

দল নির্বাচন নিয়ে সন্তুষ্ট ছিলেন না সমর্থকরা। হাইমে কোলাডোদের পারফরম্যান্স খুশি করতে পারছিল না সমর্থকদের। বিদেশি স্ট্রাইকার মার্কোস দে লা এসপাড়াকে প্রতিটি ম্যাচেই নিষ্প্রভ দেখাচ্ছে। ফুটবলারদের সব রকমের সুবিধা দেওয়া হলেও মাঠের ভিতরে নিজেদের মেলে ধরতে পারছেন না লাল-হলুদ ফুটবলাররা। 

বুধবার গোকুলমের বিরুদ্ধে দল হারার পরেই অশান্ত হয়ে ওঠেন সমর্থকরা। রেফারির শেষ বাঁশির পরে গ্যালারিতে বসে থাকা সঞ্জিৎবাবুর সঙ্গে তর্কাতর্কিতে জড়িয়ে পড়েন ক্ষুব্ধ সমর্থকরা। পরিস্থিতি হয়ে ওঠে উত্তপ্ত। সমর্থকদের হাতে মার খেতে হয় কোয়েস-ইস্টবেঙ্গলের সিইও-কে। পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ডার্বি ম্যাচের আগেই অস্বস্তি বাড়ছে লাল-হলুদে। 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন