• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

স্বপ্নভঙ্গের যন্ত্রণা ভুলে ইতিহাসের খোঁজে হরমনপ্রীত

Team in good shape, says Harmanpreet Kaur while searching history
প্রত্যয়ী: প্রস্তুতি ও অভিজ্ঞতাই অস্ত্র হরমনপ্রীতের। ফাইল চিত্র

 মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অধিনায়কদের ফটোশুট ছিল সোমবার। প্রত্যেক দলের অধিনায়কদের নিয়ে টৌরাঙ্গার চিড়িয়াখানায় ছবি তোলে আইসিসি। ২১ ফেব্রুয়ারির মহারণের আগে ফুরফুরে মেজাজে ভারতীয় অধিনায়ক হরমনপ্রীত কৌর। 

২০১৭ সালে আইসিসি-র পঞ্চাশ ওভারের বিশ্বকাপের ফাইনালে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে হেরে স্বপ্নভঙ্গ হয়েছিল তাঁর। ওয়ান ডে দলের নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতেন। তবুও হারের পরে মাঠেই কেঁদে ফেলেছিলেন হরমনপ্রীত। এখন তিনি অধিনায়ক। দায়িত্বও অনেক বেশি। তাই হরমনপ্রীত জানিয়ে দিলেন, দেশকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ তুলে দিলে স্বপ্নপূরণ হবে তাঁর।

২০১৭-র পর থেকে তিন বছর সময় পেয়েছেন হরমনপ্রীত। এই তিনটি বছরে প্রস্তুতিতে কোনও ফাঁক রাখেননি। অভিজ্ঞতাও সঞ্চয় করেছেন প্রচুর। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সেই অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে দেশকে ট্রফি কি এনে দিতে পারবেন তিনি? হরমনপ্রীত বলেছেন, ‘‘প্রত্যেক দিন আমাদের দল ধীরে ধীরে তৈরি হচ্ছে। অনুশীলনে কেউই কোনও ধরনের ফাঁকি দিচ্ছে না। বিপক্ষকে ভয় পাওয়ার কোনও প্রশ্নই নেই।’’

বর্তমান ভারতীয় দলে তরুণ ক্রিকেটারের সংখ্যা বেশি। জেমাইমা রদ্রিগেজ, শেফালি বর্মা, রিচা ঘোষ এখনও ২০ বছর পেরোননি। তাঁদের সঙ্গেই স্মৃতি মন্ধানা, দীপ্তি শর্মা, বেদা কৃষ্ণমূর্তি, শিখা পাণ্ডে, রাজেশ্বরী গায়কোয়াড়দের অভিজ্ঞতা যুক্ত হবে। হরমনপ্রীত নিজেও রয়েছেন। খাতায় কলমে যে কোনও বড় দলকে টেক্কা দেওয়ার ক্ষমতা রয়েছে এই দলের।

হরমনপ্রীত যদিও শুধু লড়াই করে ফিরে যেতে চান না। ২০১৭-র ব্যর্থতা ভোলাতে চান দেশকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দিয়ে। তাঁর কথায়, ‘‘বিশ্বকাপ জিততে পারলে খুব ভাল লাগবে। মনে করব, জীবনের অন্যতম বড় প্রাপ্তি এটি।’’ ২০১৭ বিশ্বকাপের স্মৃতি টেনে বলেছেন, ‘‘ফাইনালে ওঠার পরেও বুঝিনি দেশে আমাদের নিয়ে উন্মাদনা হয়েছে। পরিবারের কেউও বুঝতে দেয়নি। আমাদের উপরে চাপ সৃষ্টি করতে চায়নি কেউ। কিন্তু ভারতে পৌঁছে বুঝতে পারি, আমরা হেরে যাওয়ায় সমর্থকেরা কতটা কষ্ট পেয়েছেন। এ বার তাঁদের জন্য ট্রফি নিয়ে ফিরতে পারলে দারুণ লাগবে। কথা দিলাম, প্রত্যেকে নিজেদের উজাড় করে দেবে।’’

হরমনপ্রীতের দলে রয়েছেন বাংলার রিচাও। মাত্র ১৬ বছর বয়সে ভারতীয় দলে অভিষেক হয়েছে তাঁর। ঝুলন গোস্বামীর উপদেশ নিয়ে অস্ট্রেলিয়া উড়ে গিয়েছেন রিচা। তাঁর সাফল্যের দিকে তাকিয়ে রয়েছেন বাংলার ক্রিকেটপ্রেমীরা। 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন