বল বিকৃতির কথা মেনে নিল শ্রীলঙ্কা শিবির। শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক দীনেশ চন্ডীমল, কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংঘে ও ম্য়ানেজার আসাঙ্কা গুরুসিনহা আইসিসির নিয়ম ভঙ্গের কথা মেনে নিয়েছেন। আইসিসি এক বার্তায় এই তথ্য জানিয়ে বলেছে, ‘‘যা হয়েছে সেটা ক্রিকেটের স্পিরিটের বিরোধী।’’  এই কেসের জন্য বিচার বিভাগীয় কমিশনার হিসেবে মাইকেল বেলফকে নিযুক্ত করা হয়েছে। যাতে সঠিকভাবে এর বিচার হয়।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টেস্টের দ্বিতীয় দিনের ঘটনা। শ্রীলঙ্কা অধিনায়ক চন্ডীমলকে দেখা যায় মুখ থেকে বের করে বলের গায়ে কিছু লাগাচ্ছেন। যার পর চন্ডীমলকে দুটো সাসপেনশন পয়েন্টের সঙ্গে ম্যাচ ফি-র ১০০ শতাংশ কেটে নেওয়া হয়। এই  সাসপেনশন পয়েন্টের জন্য এক টেস্ট ও দুটো ওডিআই বা দুটো টি২০ ম্যাচে নির্বাসিত হতে পারে। যেটা আগে হবে।

ওই ম্যাচের ম্যাচ রেফারি জাভাগল শ্রীনাথ বলেন, ‘‘এটা নিশ্চিত যে দীনেশ চন্ডীমল বলে একধরণের আর্টিফিশিয়াল সাবস্টেন্স লাগিয়েছে। যেটাকে সালিভা বলা হয়। যেটা তৈরি হয় কিছু চিবনোর পর যে লালাটা বের হয় তা থেকে। সেটা নিয়ে বলে লাগালে তা আইসিসির আইনিরে বিরোধী।’’ চন্ডীমল বৃহস্পতিবারই তাঁর এক টেস্ট নির্বাসনের বিরুদ্ধে আবেদন জানিয়েছিলেন। কিন্তু তাতে শাস্তি মকুবের মতো কিছু পাননি শ্রীনাথ। একদিন পরই সবাই মেনে নিলেন যে তাঁরা আইন বিরুদ্ধ কাজ করেছেন।

আরও পড়ুন
শাস্তির বিরুদ্ধে আইসিসির কাছে আবেদন চন্ডীমলের