• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

রণবীর কপূরের সঙ্গে কোনও বন্ধুত্ব নেই, বললেন অর্জুন কপূর

Arjun Kapoor
অর্জুন কপুর। ছবি: আইএসএল।

অর্জুন কপুরের হঠাৎ এমন মন্তব্যে রীতিমতো চাঞ্চল্য বলিউডে। সেই বক্তব্য রনবীরের কাছে পৌঁছলেও কোনও উত্তর নেই। সব মিলে কানাঘুঁষো কী হল দুই নায়কের মধ্যে। বন্ধুত্ব তো বেশ জম্পেশই ছিল। তা হলে হঠাৎ অর্জুন কপুরের এমন কড়া মন্তব্যের কারন কী?

অর্জুন কপুর অবশ্য নিজেই তার খোলসা করলেন। অর্জুন-রনবীর বন্ধুত্ব আপাতত চার মাসের জন্য বন্ধ। তার কারন অবশ্যই আইএসএল সিজন ফোর। সম্প্রতি এফসি পুণে সিটির সহ-মালিকানা নিজের নামে করে নিয়েছেন অর্জুন। আর রনবীর তো এতদিন ধরেই মুম্বইয়ের সঙ্গে রয়েছেন। এ বার আইএসএল-এর মহারাষ্ট্র ডার্বি দেখবে দুই কপুরের লড়াই। যে কারনে আপাতত বন্ধু বিচ্ছেদ। আর তা প্রকাশ্যেই জানিয়ে দিলেন আইএসএল-এর নবাগত সদস্য অর্জুন।

আরও পড়ুন

লিংডো খেলতে পারে ইউরোপে, মত রবি কিনের 

ইন্ডিয়ান সুপার লিগের ওয়েব সাইটকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে অর্জুন বলেন, ‘‘যতদিন না আইএসএল শেষ হচ্ছে ততদিন আমি আর রনবীরের বন্ধু নই। ওর দল মুম্বই সিটি এফসি আর আমার পুণে। আমাদের মধ্যে আইএসএল-এর লড়াইয়ের পাশাপাশি থাকবে মহারাষ্ট্র ডার্বি। তাই এই মুহূর্তে যে আমার দু’জন দুই মেরুতে দাঁড়িয়ে থাকব এটাই স্বাভাবিক। এই লড়াইটা কিন্তু জমে যাবে।’’ রনবীরের সঙ্গে লড়াই যেমন উপভোগ করছেন অর্জুন তেমনই প্রাণের খেলা ফুটবলের সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে উত্তেজিত তিনি। বলেন, ‘‘আমি সব সময়ই ভাবতাম ফুটবল দলের অংশ হব। আর হঠাৎ করেই আমি এখন একটি দলের কো-ওনার হিসেবে কথা বলছি। আমার নিজের ভাগ্যকেই বিশ্বাস হচ্ছে না।’’

মালিকানা পেয়েই নতুনভাবে ভাবতে শুরু করে দিয়েছেন অর্জুন। আপাতত পুরো মনটাই দিতে চান ফুটবলে। নিজের ইমেজকে কাজে লাগানোর পাশাপাশি তিনি সমর্থকদের এটাও বিশ্বাস করাতে চান তাঁর এই জায়গায় পৌঁছনোর যোগ্যতা ছিল। শুধু বলিউড সেলিব্রিটি বলে চলে আসেননি। এর সঙ্গে তিনি আইএসএল-এর নতুন ফর্ম্যাটেরও প্রশংসা করেছেন। বলেন, ‘‘দীর্ঘ লিগ অনেক ভাল। কারন প্লেয়ারদের উপর অনেক চাপ পড়ে যায়। যাতায়াতের ধকল থাকে সঙ্গে ৯০ মিনিট খেলা, প্র্যাকটিস। আর সেটা একমাসের মধ্যে শেষ করে দেওয়া। কিন্তু দীর্ঘ লিগ হলে প্লেয়ারদের জন্য সুবিধে।

আরও পড়ুন

রিয়ালের জয়, তবু অস্বস্তি রোনাল্ডোর

গত মরসুমে বেশ কয়েকটি পুণের ম্যাচে দেখা গিয়েছে অর্জুন কপুরকে। এ বার তিনি মালিক তাই লক্ষ্যও স্থির। বলেন, ‘‘আপাতত লক্ষ্য নক-আউটে পৌঁছনো। এই বিশ্বাস নিয়েই শুরু করতে হবে। অতীতে যা হয়েছে সেটাকে পিছছনে ফেলেই এগোতে হবে। আমার মতে ধারাবাহিকতা সাফল্যের মূল মন্ত্র। যেটা লিগের ১৮টি ম্যাচে ধরে রাখতে হবে।’’ এফসি পুণে সিটি তাদের আইএসএল শুরু করছে ২২ নভেম্বর  দিল্লি ডায়নামোসের বিরুদ্ধে ম্যাচ। আর তার ঠিক এক সপ্তাহ পরেই দেখা যাবে মহারাষ্ট্র ডার্বি। নাম বদলে এই মরসুমে সেটা হয়ে গিয়েছে ‘কপুরস ডার্বি’।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন