নাপোলি ২          •         লিভারপুল ০

চেলসি ০         •            ভ্যালেন্সিয়া ১

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের প্রথম ম্যাচেই অন্ধকার নামল লিভারপুল ও চেলসি শিবিরে। নাপোলি কাঁটায় ফের বিদ্ধ মহম্মদ সালাহ-রা! ঘরের মাঠে ভ্যালেন্সিয়ার বিরুদ্ধে হারল ফ্র্যাঙ্ক ল্যাম্পার্ডের দল।

গত মরসুমেও চ্যাম্পিয়ন্স লিগে এক গ্রুপে ছিল লিভারপুল ও নাপোলি। সে বারও ঘরের মাঠে য়ুর্গেন ক্লপের দলকে ১-০ হারিয়ে চমকে দিয়েছিল দিয়েগো মারাদোনার স্মৃতিবিজড়িত ক্লাব। মঙ্গলবার রাতে জিতল ২-০। হারের জন্য অবশ্য রেফারিকেই কাঠগড়ায় তুললেন লিভারপুল ম্যানেজার ক্লপ।

নেপ‌ল্‌সে প্রথমার্ধ গোলশূন্য ছিল। ম্যাচ শেষ হওয়ার আট মিনিট আগে বিতর্কিত পেনাল্টি থেকে গোল করে নাপোলিকে এগিয়ে দেন দ্রিস মের্তেনস। নিজেদের পেনাল্টি বক্সের মধ্যে লিভারপুলের অ্যান্ড্রু রবার্টসন ফাউল করেন খোসে মারিয়া কাইয়াখনকে। সরাসরি পেনাল্টির নির্দেশ দেন রেফারি। সাংবাদিক বৈঠকে ক্ষুব্ধ ক্লপ বলেছেন, ‘‘কোনও মতেই পেনাল্টি ছিল না। অ্যান্ড্রু বাধা দিতে যাওয়ার আগেই ও লাফিয়ে উঠে পড়ে যায়।’’ তিনি যোগ করেছেন, ‘‘মানুষ ভুল করতেই পারে। এই পরিস্থিতিতে ভিএআর (ভিডিয়ো অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি) প্রযুক্তির সাহায্য নিলেই পুরো বিষয়টা পরিষ্কার হয়ে যেত।’’ মিনিট দশেক বাদেই ফের্নান্দো লোরেন্তের গোলে ফের এগিয়ে যায় নাপোলি। হতাশ ক্লপ বলেছেন, ‘‘এই হার অত্যন্ত দুঃখজনক। প্রচুর গোলের সুযোগ তৈরি করেও তার সদ্ব্যবহার করতে পারিনি।’’ 

ল্যাম্পার্ডও হতাশ। চেলসির ম্যানেজার হিসেবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে অভিষেক একেবারেই সুখকর হল না তাঁর। প্রথমবার ‘দ্য ব্লুজ’-কে হারাল স্প্যানিশ ক্লাব। তবে হারের জন্য চেলসি সমর্থকেরা কাঠগড়ায় তুলছেন রস বার্কলেকে। ৭৪ মিনিটে রদ্রিগো মাচাদোর গোলে এগিয়ে যায় ভ্যালেন্সিয়া। ৮৪ মিনিটে পেনাল্টি বক্সের মধ্যে ডিফেন্ডার ড্যানিয়েল ওয়াসের হাতে বল লাগে। ভিএআর প্রযুক্তির সাহায্য নিয়ে পেনাল্টির নির্দেশ দেন রেফারি। কিন্তু বার্কলের শট পোস্টে লাগে।