ভারতীয় পেস বোলার মহম্মদ শামির স্ত্রী হাসিন জাহানকে গ্রেফতার করল উত্তরপ্রদেশ পুলিশ। সোমবার ভোররাতে উত্তরপ্রদেশের আমরোহা থেকে তাঁকে গ্রেফতার করে পুলিশ। অভিযোগ, তিনি পরিবারের বাধা সত্ত্বেও জোর করে শামির পৈত্রিক বাড়িতে ঢোকার চেষ্টা করেন।

পুলিশ সূত্রে খবর, রাতভর নাটকের পর শেষ পর্যন্ত শামির পরিবারের নালিশের ভিত্তিতে শান্তিভঙ্গের অভিযোগে গ্রেফতার করা হয় হাসিনকে। এ দিন তাঁকে মহকুমা আদালতে পেশ করা হবে। হাসিনের অন্যতম আইনজীবী অনির্বাণ গুহঠাকুরতা সোমবার জানিয়েছেন, ‘‘হাসিন রবিবার আমাকে জানিয়েছিলেন যে তিনি আমরোহাতে গিয়েছেন। সেখানে তিনি তাঁর শ্বশুরবাড়ি যাবেন এটাও তিনি জানিয়েছিলেন। সেখানে ভোটার লিষ্টে তাঁর নাম রয়েছে।” যদিও দ্বিতীয় দফায় আমরোহাতে নির্বাচন হয়ে গিয়েছে। তার পর তিনি কেন শ্বশুরবাড়িতে গিয়েছিলেন তা এখনও স্পষ্ট নয়।

তবে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, রবিবার বিকেল থেকেই শুরু হয় অশান্তি। হাসিন তাঁর মেয়ে বেবোকে নিয়ে হাজির হন শামির পৈত্রিক বাড়িতে। সেখানে ঢুকতে গেলে তাঁকে শামির পরিবার বাধা দিলে শুরু হয় বচসা। হাসিন দাবি করেন ওই বাড়িতে থাকার অধিকার রয়েছে তাঁর। সেই বচসা এবং অশান্তি গভীর রাত পর্যন্ত গড়ায়। সূত্রের খবর, শামির পরিবারের তরফ থেকে খবর দেওয়া হয় পুলিশে। পুলিশের সামনেই চলতে থাকে বচসা। শেষ পর্যন্ত এ দিন ভোর রাতে শামির পরিবার হাসিনের বিরুদ্ধে জোর করে বাড়িতে ঢোকা এবং অশান্তি পাকানোর অভিযোগ করে।

আরও খবর: হার্দিক হ্যারিকেন সত্ত্বেও যে সব কারণে মুম্বই বধ করল কলকাতা

আরও খবর:  প্রাক্তন চিয়ারলিডার, ফিজিয়োথেরাপিস্ট, অ্যাথলিট...ইনি জাক কালিসের বোন

এর আগে হাসিন শামির দাদার বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা করেছিলেন। কলকাতা পুলিশ সেই মামলায় ইতিমধ্যে চার্জশিটও জমা দিয়েছে। সেই চার্জশিটে শামির দাদাকে শ্লীলতাহানির অভিযোগে অভিযুক্ত করা হয়েছে। রবিবার আমরোহাতে যে বাড়িতে গিয়েছিলেন হাসিন সেই বাড়িতেই থাকেন শামির ওই দাদা।

শামির সঙ্গে হাসিনের বিবাহবিচ্ছেদ এবং খোরপোশের মামলা চলছে। অনির্বাণ সোমবার জানিয়েছেন, রবিবারের পর তাঁর সঙ্গে হাসিনের কোনও যোগাযোগ হয়নি।