দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে বিশাখাপত্তনমে প্রথম টেস্ট ২০৩ রানে জিতে সোমবারেই পুণেতে চলে এল ভারতীয় দল। পুণেতে দ্বিতীয় টেস্ট শুরু হবে বৃহস্পতিবার।

তিন টেস্টের সিরিজ যাতে পুণেতেই জিতে নেওয়া যায়, তার জন্য ইতিমধ্যেই বদ্ধপরিকর ভারতীয় দল। প্রথম টেস্টে জয়ের ফলে ৪০ পয়েন্ট পেয়েছে ভারত। যার ফলে আইসিসি-র বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের পয়েন্ট তালিকায় ১৬০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছেন কোহালিরাই। তার পরে ৬০ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে রয়েছে নিউজ়িল্যান্ড ও শ্রীলঙ্কা। প্রথম পাঁচে থাকা বাকি দুই দল হল অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ড। এই দুই দলেরই পয়েন্ট ৫৬। ভারতের প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা এখনও কোনও পয়েন্ট সংগ্রহ করতে পারেনি। এই পরিস্থিতিতে ফ্যাফ ডুপ্লেসির নেতৃত্বাধীন দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে আগ্রাসী ক্রিকেট খেলে পুণেতেই টেস্ট সিরিজের নিষ্পত্তি করে ফেলতে চাইছে বিরাট কোহালির দল। পাশাপাশি, ভারতের সঙ্গে এ দিনই পুণেতে পা দেওয়া দক্ষিণ আফ্রিকা দলেরও লক্ষ্য সিরিজে সমতা ফিরিয়ে লড়াইয়ে ফিরে আসা।

বিশাখাপত্তনম থেকে পুণের উড়ানে ওঠার আগে বিমানবন্দরেই স্পিনার কুলদীপ যাদবের সঙ্গে ছবি তুলে টুইট করেন প্রথম টেস্টে দুই ইনিংসেই শতরানকারী ব্যাটসম্যান রোহিত শর্মা। যে ছবির সঙ্গে তিনি লিখে দেন, ‘‘পুণের পথে...।’’

বিশাখাপত্তনমে প্রথম ইনিংসে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে দ্বিশতরান করেছিলেন ওপেনার মায়াঙ্ক আগরওয়াল। ইতিমধ্যেই তাঁর ভয়ডরহীন ক্রিকেট খেলার প্রবণতা মন কেড়েছে প্রাক্তনদের। সোমবার মায়াঙ্কের প্রশংসায় উচ্ছ্বসিত প্রাক্তন ভারতীয় টেস্ট ক্রিকেটার ভি ভি এস লক্ষ্মণও। একটি টিভি চ্যানেলের অনুষ্ঠানে এ দিন লক্ষ্মণ বলেন, মায়াঙ্ক তাঁর আদর্শ বীরেন্দ্র সহবাগের মতোই আগ্রাসী ব্যাটিং করছেন। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে এই দ্বিশতরানের ইনিংস খেলার আগে গত বছর অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে জীবনের প্রথম টেস্ট সিরিজে জোড়া অর্ধশতরান করে নজর কেড়েছিলেন কর্নাটকের এই ব্যাটসম্যান। প্রাক্তন ভারতীয় স্পিনার হরভজন সিংহের মতে এই দ্বিশতরানের পরে মায়াঙ্ক নিজের জায়গা ভারতীয় দলে আরও মজবুত করে ফেললেন।

এ দিন মায়াঙ্কের প্রশংসা করতে গিয়ে লক্ষ্মণ বলেন, ‘‘মায়াঙ্ক একজন দক্ষ ওপেনার। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে যে ছন্দে ব্যাট করল, তা দেখে মনে হল ও যেন ঘরোয়া ক্রিকেটের চেনা মেজাজে ব্যাট করছে।’’ যোগ করেন, ‘‘সাধারণত ক্রিকেটাররা ঘরোয়া ও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আলাদা আলাদা ছন্দে খেলতে অভ্যস্ত। কিন্তু মায়াঙ্ক এতটাই প্রতিভাবান যে একই ছন্দে দুই ধরনের ক্রিকেটে খেলতে পারে। মানসিক ভাবে ও অত্যন্ত পোক্ত। রয়েছে ধারাবাহিকতা। সে কারণেই ওর আদর্শ বীরেন্দ্র সহবাগের মতো আগ্রাসী 

মেজাজে খেলছে।’’

আর এক প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার হরভজন সিংহের মতে, ঘরোয়া ক্রিকেটে দীর্ঘ সময় ভাল খেলার সুফল পাচ্ছে মায়াঙ্ক। তাঁর কথায়, ‘‘ঘরোয়া ক্রিকেটে প্রতিটি খুঁটিনাটি রপ্ত করে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পা দিয়েছে মায়াঙ্ক। বড় শট মারার সময়, ফরোয়ার্ড খেলার মুহূর্তে বা রিভার্স সুইপ মারার সময়ে ওর ফুটওয়ার্ক বলে দিচ্ছে কতটা আত্মবিশ্বাসী মেজাজে ক্রিজে এখন সময় কাটাচ্ছে মায়াঙ্ক।’’