তাঁর চুলের ছাঁট এবং খেলা নিয়ে যে সমালোচনা হচ্ছে সে সম্পর্কে প্রচন্ড বিরক্ত পল পোগবা। ডেনমার্কের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার খেলতে নামার আগে ফ্রান্সের বোহেমিয়ান ফুটবলার রীতিমতো ক্ষোভে ফেটে পড়লেন এবং বলে দিলেন, ‘‘আমি কিছুতেই বুঝতে পারি না যে আমাকে নিয়ে সব সময় কেন সবাই এত নেতিবাচক কথাবার্তা বলে। আমার মনে হয় এটা ফরাসি অথবা ইউরোপিয়ানদেরই মানসিকতা। চুলের ছাঁট নিয়ে আমার কোনও মাথাব্যথা নেই। মাঠে কী করলাম সেটাই আসল। ’’

দিদিয়ের দেশঁর দলের মিডিও এ দিন সাংবাদিকদের সামনে এসে ফের নানা বিতর্কিত কথা বলতে শুরু করেন। ‘‘আমি যখন গোল করি এবং নাচি তখন কেউ কিছু বলে না। আবার যখন আমি নাচি এবং দল জিততে পারে না তখন সমালোচনা শুরু হয়,’’ বলে দিয়েছেন ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের বিতর্কিত মিডিও। পাশাপাশি তাঁর মন্তব্য, ‘‘অনেকেই মনে করেন আমি যা করি সব নজর কাড়ার জন্য। দেখানোর জন্য। ঠিক আছে, সেটা আমি করি। আমি কোনও সমালোচনাকে পাত্তা দিতে রাজি নই। আমি সব সময় হাসি। আমার প্রশংসা করলেও হাসব। সমালোচনা করলেও হাসব। তাতে কে কী বলল তা নিয়ে যায় আসে না।’’

জুভেন্তাস থেকে রেকর্ড অর্থে ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডে সই করা পোগবা এ দিন ইঙ্গিত দিয়েছেন, এটাই তাঁর শেষ বিশ্বকাপ। ‘‘এখন আমি ২৪। হয়তো ২৯ বছরে বিশ্বকাপে খেলতে পারব না।’’ যে ভাবনাকে অবশ্য পাত্তা দেননি ফ্রান্স কোচ দেশঁ।

ফ্রান্সের জার্সিতে তাঁর এবং অন্তরঙ্গ বন্ধু আঁতোয়া গ্রিজম্যানের খেলা নিয়ে যে সমালোচনা হচ্ছে তা নিয়েও নানা কথা বলেন তিনি। ম্যাঞ্চেস্টার কোচ জোসে মোরিনহোর সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক নিয়েও মুখও খুলেছেন এদিন। বলে দিয়েছেন, ‘‘ওটা একেবারেই ছোটখাটো ব্যাপার। আমি ওনাকে দারুণ ভালবাসি। আমি ওকে সব সময় মিস করছি।’’

সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় শুরুতেই মোরিনহোকে উদ্দেশ করে পোগবা বলে ফেলেন, ‘‘আপনি আমাকে জানেন। আমি বড় বড় কথা বলতে ভালবাসি না। সাংবাদিকদের সঙ্গে কথাও বলি না। জানি আপনি আমাকে ভালবাসেন। আপনাকে আমার আরও কিছু দেওয়ার আছে।’’