সবাই জীবনের খারাপ সময় থেকে শিক্ষা নেয়। হার্দিক পাণ্ড্যও ব্যতিক্রম নন। সোমবার ১৬ বলে অপরাজিত ৩৭ রানের ইনিংস খেলে দলকে জিতিয়ে স্বীকার করলেন মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের অলরাউন্ডার। 

চলতি বছরের গোড়ার দিকে একটি চ্যাট শো-এ বিতর্কিত মন্তব্য করে তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন হার্দিক। তাঁকে সাময়িক ভাবে নির্বাসিতও করা হয়েছিল। বিষয়টি এখনও ভারতীয় বোর্ডের অম্বাডসমানের তদন্তাধীন। যদিও মনে করা হচ্ছে তাঁকে ক্লিন চিট দেওয়া হবে। যাই হোক, নিউজ়িল্যান্ড সিরিজে তিনি দলে ফিরে আসার পরে মাঠে আরও বেশি একাগ্র, দুরন্ত ছন্দেও আছেন। ‘‘সবার জীবনেই খারাপ সময় আসে। আমার ক্ষেত্রে বলতে পারি কিছুটা সময় পেয়ে নিজের ফিটনেসের উপরে জোর দিয়েছিলাম। এই সময়টা এখন আমায় অনেক সাহায্য করছে। কারণ মানসিকতার দিক থেকে নিজেকে আরও ভাল জায়গায় মনে হচ্ছে। সব কিছু ঠিকঠাক হচ্ছেও,’’ বলেছেন হার্দিক।  তাঁর পিঠের ব্যথা নিয়ে জানতে চাইলে বলেন, ‘‘পিঠের চোট এখন অনেক ভাল রয়েছে।’’ পাশাপাশি দলের ফিনিশারের ভূমিকা তিনি কতটা উপভোগ করেন তাও জানান হার্দিক। ‘‘গত চার বছর ধরেই এই কাজটা আমি করছি। যে কোনও দলেই খেলি না কেন, এটাই আমার ভূমিকা। নেটেও এই অনুশীলনটাই করেছি। পরিস্থিতি অনুযায়ী খেললেই যে রকম চাইছি ফলাফল পাওয়া যায়।’’

দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

শুধু মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের হয়েই নয়, আসন্ন বিশ্বকাপে ভারতীয় দলেও তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবেন বলে মনে করছেন অনেকে। সেই উদ্দেশে আইপিএলে ভালরকম প্রস্তুতি হচ্ছে তাঁর, এমনটাও মত অনেকের। ‘‘আত্মবিশ্বাস থাকা সব সময়ই গুরুত্বপূর্ণ। বিশ্বকাপ খুব বড় একটা মঞ্চ। এই প্রথম আমি বিশ্বকাপে খেলব। ক্রিকেট থেকে কিছু দিন দূরে ছিলাম। তাই মাঠে ফেরার পরে বলটা ঠিকঠাক মারতে পারাটা আমার কাছে খুব জরুরি।’’

হার্দিকের এই দুরন্ত ছন্দ দেখে আবার শ্রীলঙ্কার বোলার লাসিথ মালিঙ্গা মুগ্ধ। যিনি হার্দিকের মুম্বই ইন্ডিয়ান্স দলের সতীর্থও। সোমবারের ম্যাচের পারফরম্যান্স দেখে মালিঙ্গা বলেছেন, ‘‘দারুণ খেলছে হার্দিক। বিশ্বকাপে ওর বিরুদ্ধে বল করতে ভয় লাগছে। যদি আমাদের দল ওদের বিরুদ্ধে নামে তা হলে আমার ভয় থাকবে ওকে নিয়ে। কারণ, আমরা জানি ও খুব ভাল ছন্দে রয়েছে। ওকে আমাদের তখন আটকাতেই হবে। দ্রুত ওকে ফিরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করতে হবে।’’

মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের অধিনায়ক এবং হার্দিকের ভারতীয় দলের সতীর্থ রোহিত শর্মাও খুশি। ‘‘হার্দিক খুব ভাল হিটিং করছে এখন। এটা দলকে, একই সঙ্গে ওকেও এগিয়ে যেতে সাহায্য করছে। এটাই ও করে দেখাতে চেয়েছিল। কারণ আইপিএলে নামার আগে ওর হাতে প্রস্তুতির বেশি সময় ছিল না। তাই হার্দিকের নিজের কাছেই কিছু প্রমাণ করার ছিল। সেই ইচ্ছে থেকেই এ রকম পারফরম্যান্স বেরিয়ে আসছে। আমরাও আত্মবিশ্বাস পাচ্ছি এক জন আছে যে গুরুত্বপূর্ণ সময়ে ম্যাচ জেতানোর ক্ষমতা রাখে,’’ বলেন মুম্বই অধিনায়ক।