জামাইকে একটা কথাই বলতে চান মহম্মদ হোসেন— ‘‘তুমি সেলেব্রিটি হতে পারো, তারকা হতে পারো। কিন্তু দু’বছরের মেয়েটার কী হবে, ভাবলে না!’’ তাঁর দাবি, মেয়ে হাসিন জাহানের সঙ্গে ফোনে কথা হলেও জামাইয়ের সঙ্গে এখনও যোগাযোগ করে উঠতে পারেননি। জামাই— অর্থাৎ ভারতীর দলের তারকা পেসার মহম্মদ শামি।

পরিবহণ ব্যবসায়ী মহম্মদ হোসেন এলাকায় পরিচিত ‘মন্টুবাবু’ নামে। বৃহস্পতিবার সিউড়ি শহরের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সোনাতোড়পাড়ার বাড়িতে বসে তিনি বলেন, ‘‘এত দিন ধরে এত কিছু হচ্ছে, আগে এক বারও আমাদের জানায়নি হাসিন। বুধবার সকালে পড়শিদের কাছে প্রথম সব কিছু শুনি। আমাকে ফোনও করেনি শামি বা ওর বাড়ির কেউ।’’ মেয়ের পদক্ষেপে তা-ই অবাক হয়েছিলেন মহম্মদ হোসেন। তাঁর কথায়, ‘‘মেয়ে বাড়াবাড়ি করে ফেলেছে বলে মনে হয়েছিল। মিতবাক, শান্ত স্বভাবের জামাই এমন করতে পারে বলে বিশ্বাস করতে পারিনি। কিন্তু গত রাতে মেয়ের সঙ্গে কথা বলে ভুল ভাঙে।’’

শামির শ্বশুর জানান, মোবাইল ফোনে অন্য মহিলার সঙ্গে জামাইয়ের অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ছবি তাঁকে পাঠান হাসিন। সঙ্গে কথাবার্তার ‘স্ক্রিন-শট’। মহম্মদ হোসেনের কথায়, ‘‘এর পর আর মেয়েকে দোষ দিতে পারছি না। দু’বছর ধরে ওকে অনেক অত্যাচার সহ্য করতে হয়েছে। জামাইয়ের হাতে-পায়ে ধরেছে। কাজ হয়নি। শুনেছি, দক্ষিণ আফ্রিকা সফর থেকে ফিরে মেয়ের উপরে অত্যাচার আরও বাড়িয়ে দিয়েছিল শামি।’’

আরও পড়ুন: বোর্ডের দ্বারস্থ হতে পারেন ক্ষিপ্ত হাসিন

মঙ্গলবার রাতে মহম্মদ শামির বিরুদ্ধে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ তোলেন তাঁর স্ত্রী হাসিন। একাধিক নারীর সঙ্গে শামি বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়েছেন বলে দাবি করেন। মহম্মদ হোসেন জানান, তিন মেয়ের মধ্যে মেজ হাসিন। এক ছেলেও রয়েছে তাঁর। ২০১২ সালে আইপিএল টুর্নামেন্টে চিয়ারলিডার হয়েছিলেন হাসিন। ওই সময়েই শামির সঙ্গে সম্পর্কের শুরু। সেই সালেই বিয়ের কথা পাকা হয় দু’জনের। ২০১৩ সালে হয় বিয়ে।

আরও পড়ুন: স্ত্রীর মানসিক অবস্থা ঠিক নেই, জবাব শামির

হাসিনের বাবা বলছেন, ‘‘আমার স্ত্রী (নাজমা খাতুন) অসুস্থ বলে খবরটা চেপে রেখেছিলাম। কিন্তু গত রাতে মেয়েকে ফোন করার পরে ও সব শুনেছে।’’ মেয়ের পাশে দাঁড়াতে দু-এক দিনের মধ্যেই কলকাতায় যাবেন মহম্মদ হোসেন। সঙ্গে যাবেন হাসিনের মা, দাদাও।

মহম্মদ হোসেনের কথায়, ‘‘আমি চাই না ওঁদের সংসারটা ভেঙে যাক। কিন্তু চাই, জামাই ভুল স্বীকার করুক। এমন কাজ আর করবে না, তা-ও বলুক। বড় মানুষ হলেই অন্যায় করার ছাড়পত্র জোটে না। সেটা ওর বোঝা দরকার। বেবোর (হাসিন-শামির মেয়ে) কথা এক বারও কি ও ভেবে দেখল না!’’