• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

মঁফিলকে হারিয়ে অঘটন ভামব্রির

Yuki Bhambri
জয়ী: মঁফিলকে হারিয়ে ভামব্রির হুঙ্কার। ছবি: ইউএসএ টুডে স্পোর্টস

অঘটন ঘটিয়ে টেনিস বিশ্বের নজর কেড়ে নিলেন ভারতীয় টেনিসের উঠতি তারকা য়ুকি ভামব্রি। ওয়াশিংটনে এটিপি সিটি ওপেনে হারিয়ে দিলেন বিশ্বের ২২ নম্বর ও গতবারের চ্যাম্পিয়ন গেল মঁফিল-কে। যিনি এই টুর্নামেন্টে ষষ্ঠ বাছাই ছিলেন। বাছাই পর্ব থেকে টুর্নামেন্টের মূল পর্বে যোগ্যতা অর্জন করা এই ভারতীয় ফরাসি খেলোয়াড়কে দ্বিতীয় রাউন্ড থেকেই ছিটকে দিয়ে উঠে পড়লেন প্রি কোয়ার্টার ফাইনালে। 

ডেভিস কাপের দলে নিয়মিত থাকা ভামব্রির  এই নিয়ে এটা দ্বিতীয় অঘটন। এর আগে ২০১৪-য় চেন্নাই ওপেনে তিনি বিশ্বের ১৬ নম্বর ইতালির ফ্যাবিও ফগনিনিকে হারিয়েছিলেন। সে বার অবশ্য ফগনিনির ফিটনেস সমস্যা থাকায় পুরো ম্যাচ না খেলেই বেরিয়ে যান। সে দিক থেকে এটাই দিল্লির তারকার কেরিয়ারসেরা জয়। গেলকে এক ঘণ্টা ৫১ মিনিটে ৬-৩, ৪-৬, ৭-৫-এ হারানোর পর ভামব্রি বলেন, ‘‘অসাধারণ। প্রত্যেকটা পয়েন্ট জেতার জন্য মরিয়া চেষ্টা চালিয়েছি। নিজের সার্ভ ধরে রাখার উপর জোর দিয়েছিলাম। আগ্রাসী টেনিস খেলেছি। যেটা শেষ পর্যন্ত কাজে দিল।’’

আরও পড়ুন: ‘বুঝিয়ে দেবো যে আমি অপরাজেয়’, হুঙ্কার বোল্টের

পেশাদার সার্কিটে তেমন একটা সাফল্য নেই ভামব্রির। এটিপি ওয়ার্ল্ড টুরে এই নিয়ে দ্বিতীয়বার মূলপর্বে খেলছেন তিনি। আর দু’বারই অঘটন ঘটালেন তিনি। তবে বিশ্বর‌্যাঙ্কিংয়ে ৫০-এর মধ্যে থাকা খেলোয়াড়ের বিরুদ্ধে জয় আগেও পেয়েছেন। ২০১৫-য় চেক প্রজাতন্ত্রের জিরি ভেসিলিকে হারিয়েছিলেন তিনি। বড় নামের বিরুদ্ধে তাঁর এই সাফল্যের রহস্য জানতে চাইলে ভামব্রি বলেন, ‘‘কোনও নির্দিষ্ট ফর্মুলা নেই। উল্টো দিকে কোনও বড় নাম থাকলেও, আর পাঁচটা সাধারণ ম্যাচের মতো ধরলেই বাড়তি চাপটা থাকে না। নিজের উপর আস্থাটাও থাকা দরকার। আমার মধ্যে যে খেলাটা আছে, সে তো জানিই। বাকিটা সুস্থ ও সবল থাকার উপর নির্ভর করে। পুরোপুরি সুস্থ থাকার উপর জোর দিই আমি। আর এই ধরনের জয়গুলোই আমাকে বিশ্বাস করতে সাহায্য করে যে, সেরাদেরও হারাতে পারি।’’

শেষ ষোলোর ম্যাচটা তাঁর কাছে বদলার ম্যাচ। খেলবেন আর্জেন্তিনার গিদো পেলার বিরুদ্ধে। যিনি প্রথম রাউন্ডেই ছিটকে দিয়েছেন ভারতের রামকুমার রামনাথনকে। টুর্নামেন্টে বুধবার দিনটা ছিল ভারতেরই। ডাবলসেও রোহন বোপান্না ও তাঁর মার্কিন সঙ্গী ডোনাল্ড ইয়ং কোয়ার্টার ফাইনালে উঠলেন। বোপান্না তাঁর প্রাক্তন পার্টনার পাকিস্তানের আইসাম উল হক কুরেশি ও ড্যানিয়েল নেস্টরদের হারান। বোপান্নারা এই টুর্নামেন্টে ওয়াইল্ড কার্ড নিয়ে খেলছেন। তাঁরা এ দিন স্ট্রেট সেটে জেতেন। তবে কোয়ার্টার ফাইনালে তাঁদের কঠিন লড়াই। কারণ, সেমিফাইনালে উঠতে গেলে তাঁদের হারাতে হবে বিখ্যাত ব্রায়ান-ভাইদের, যাঁরা এই টুর্নামেন্টে চতুর্থ বাছাই। বব ও মাইক ব্রায়ানদের বোপান্নারা হারাতে পারলে সেটা হবে আর এক বড় অঘটন।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন