• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

৮৩-র বিশ্বজয়ীদের অভিনন্দন, টুইটে তাল ঠোকাঠুকি শাস্ত্রী-যুবির

Ravi and Yuvi
যুবি ও শাস্ত্রীর ঠোকাঠুকি টুইটারে। —ফাইল চিত্র।

লর্ডসের বারান্দায় বিশ্বকাপ হাতে কপিলদেব নিখাঞ্জ। ১৯৮৩ সালে আজকের দিনেই প্রবল শক্তিশালী ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়েছিল ভারত।

সেই বিশ্বজয়ের ৩৭ বছর পূর্তি আজ। দেশের ক্রিকেটভক্তরা অভিনন্দন জানাচ্ছেন কপিলের দলকে। যুবরাজ সিংহও সোশ্যাল মিডিয়ায় ৮৩-এর দলকে অভিনন্দন জানান। কিন্তু সে দিনের কোনও তারকাকেই তিনি ট্যাগ করেননি। ভারতীয় দলের হেড কোচ রবি শাস্ত্রী পঞ্জাবতনয়কে উল্লেখ করে লেখেন, ‘ধন্যবাদ, জুনিয়র। তুমি আমাকে এবং কপিলকে ট্যাগ করতে পারতে।’ 

যুবরাজের সঙ্গে শাস্ত্রীর টুইটারে এই ধরনের আলাপচারিতা নতুন নয়। কপিলদের বিশ্বকাপ জয়ের ২৮ বছর পরে মহেন্দ্র সিংহ ধোনির নেতৃত্বে ওয়াংখেড়েতে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয় ভারত। ‘প্লেয়ার অব দ্য সিরিজ’ হয়েছিলেন যুবরাজ।

 

২০১১ সালের সেই বিশ্বজয়ের ৯ বছর পূর্তি হয়ে গিয়েছে মাস দুয়েক আগে। সেদিন ভারতীয় দলকে সোশ্যাল মিডিয়ায় অভিনন্দন জানিয়েছিলেন স্বয়ং শাস্ত্রী। অভিনন্দন বার্তায় সচিন তেন্ডুলকর ও বিরাট কোহালি ছাড়া কাউকেই ট্যাগ করেননি তিনি। তাঁর সেই পোস্টের পরে ভারতের ‘হেড কোচ’-কে উল্লেখ করে যুবরাজ টুইট করেন, ‘সিনিয়র, আমাকে আর মাহিকে তো ট্যাগ করতে পারতে।’ 

এ দিন কাউকে ট্যাগ না করা যুবির টুইটের পরে পঞ্জাবতনয়ের মতো করেই শাস্ত্রী লিখেছেন, তাঁকে ও কপিলকে তো ট্যাগ করাই যেত।যুবরাজের কাছে উত্তর যেন তৈরিই ছিল। শাস্ত্রীকে উদ্দেশ করে পঞ্জাবতনয় লেখেন, ‘মাঠের ভিতরে ও বাইরে তুমি কিংবদন্তি। কিন্তু কপিল একেবারেই অন্য ধরনের একজন মানুষ।’ 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন