×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৪ জুন ২০২১ ই-পেপার

জখম পা নিয়ে নায়ক ওলিচ

ক্রোয়েশিয়ার জয়ে সুবিধা নেইমারদের

নিজস্ব প্রতিবেদন
২০ জুন ২০১৪ ০২:৫৯
সতীর্থের কাঁধে চেপে ওলিচের উচ্ছ্বাস। বৃহস্পতিবার গোলের পরে।

সতীর্থের কাঁধে চেপে ওলিচের উচ্ছ্বাস। বৃহস্পতিবার গোলের পরে।

জয়ের মেজাজে ক্রোয়েশিয়া। বুধবার রাতে ক্যামেরুনকে ৪-০ হারিয়ে বিশ্বকাপে টিকে থাকার ‘অক্সিজেন’ পেল নিকো কোভাচের দল। যে ম্যাচের আহত অবস্থায় নায়ক হলেন ইভিচা ওলিচ।

ঘটনাটা কী? ম্যাচ শুরুর আগেই ওলিচের হোটেল-ঘরের দরজা ভেঙে তাঁর পায় কাচ ফোটে। ক্যামেরুনের সঙ্গে ‘ডু ওর ডাই’ লড়াই শুরু হওয়ার শেষ প্রহরেও ডাক্তাররা ব্যস্ত ছিলেন তাঁকে সেলাই করতে। নিতে হয় ‘পেন কিলারও’। কিন্তু আহত অবস্থাতেও ১১ মিনিটের মাথায় গোল করে ক্রোয়েশিয়াকে ১-০ এগিয়ে দেন ওলিচ। ম্যাচ শেষে বলেন, “খুব খারাপ অবস্থায় খেলতে হয়। দলের চিকিৎসকদের ধন্যবাদ জানাতে চাই। তাঁরা দ্রুত চিকিৎসা না করলে খেলতেই পারতাম না।” তবে ম্যাচে খেললেও পরের তিন দিন অনুশীলন করতে পারবেন না ক্রোয়েশিয়া স্ট্রাইকার।

‘হেডবাট’ বিশ্বকাপে এতটাই জনপ্রিয় যে বর্তমানে তা নিজেদের ফুটবলারদের মধ্যেও হচ্ছে। ৩-০ পিছিয়ে থাকার সময় ক্যামেরুনের দুই ডিফেন্ডার আসু একোটো ও মৌকাঞ্জোর মাথা ঠুকে যায়। ম্যাচের পরে পরিস্থিতি শান্ত করতে মধ্যস্থতা করতে হয় স্যামুয়েল এটোকে। যিনি ড্রেসিং রুমে মজার ছলেই আসু একোটোর মাথায় জল ঢেলে দেন।

Advertisement

ওলিচ ছাড়াও ম্যাচের আর এক নায়ক মারিও মান্দজুকিচ। চোট থেকে ফিরেই জোড়া গোল করলেন বায়ার্ন স্ট্রাইকার। তাও আবার দ্বিতীয়ার্ধে বারো মিনিটের মধ্যে। জয়ের সৌজন্যে তিন পয়েন্ট ছাড়াও বিশ্বকাপে আশা টিকিয়ে রাখল কোভাচের দল। যাঁর মতে ক্যামেরুন ভাগ্যবান ছিল মোটে চার গোল খেয়ে। ব্যবধান আরও বেশি হতে পারত। বলেন, “প্রথম দশ মিনিট ভাল না খেললেও বাকি ম্যাচটায় শুধু আমাদের দাপট ছিল। এই গরমের মধ্যেও ফুটবলাররা যা খেলল ওদের প্রশংসা না করে আর পারছি না।”

ক্রোয়েশিয়ার জয়ে অনেকটাই সুবিধা হল ব্রাজিলের। যাদের নক আউট যেতে হলে চাই শুধু একটা ড্র। পাশাপাশি শেষ ষোলোয় নাম লেখাতে হলে মেক্সিকোর বিরুদ্ধে জিততেই হবে মদরিচদের। যে প্রসঙ্গে কোভাচ যোগ করেন, “আমাদের মতো মেক্সিকোর প্লেয়াররাও খুব আবেগপ্রবণ। প্রথম দুটো ম্যাচে ভাল খেলেছে ওরা। কিন্তু আমরাও জানি এই ম্যাচ কতটা গুরুত্বপূর্ণ। তৈরি আছি শেষ ষোলোয় পৌঁছতে।”

পাশাপাশি ক্যামেরুন ম্যাচের আগে বৃহস্পতিবার চাপমুক্ত ভাবেই গোটা দিন কাটাল ব্রাজিল। নেইমার যেমন আড্ডা দিলেন প্রাক্তন প্রেমিকা ব্রুনা মারকেজিন ও বন্ধুদের সঙ্গে। হাল্ক আবার বান্ধবীর জন্য ফুল কিনতে ব্যস্ত ছিলেন। দানি আলভেজ আবার ব্যক্তিগত সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং অ্যাকান্টে ভিডিও পোস্ট করলেন তাঁর হেয়ারস্টাইল নিয়ে। আর স্কোলারি? বিশ্বকাপের চাপ কয়েক মিনিটের জন্য ভুলে দলের কোচ পরিবারের সঙ্গে সময় কাটান সমুদ্রসৈকতে।

Advertisement