Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৫ অগস্ট ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

বলবন্তকে ভারতীয় ফুটবলের ভবিষ্যত্‌ বলছেন মাতেরাজ্জি

আইএসএলে প্রথম ভারতীয় ফুটবলার হিসেবে গোল করার নজির তো বটেই। মার্কো মাতেরাজ্জির ম্যানেজার হিসেবে অভিষেক ম্যাচে জয় নিশ্চিত করার কারিগরও তিনি। আ

নিজস্ব প্রতিবেদন
১৭ অক্টোবর ২০১৪ ০৩:৫১
Save
Something isn't right! Please refresh.
বলবন্তের উচ্ছ্বাস। বুধবার গোলের পরে।

বলবন্তের উচ্ছ্বাস। বুধবার গোলের পরে।

Popup Close

আইএসএলে প্রথম ভারতীয় ফুটবলার হিসেবে গোল করার নজির তো বটেই। মার্কো মাতেরাজ্জির ম্যানেজার হিসেবে অভিষেক ম্যাচে জয় নিশ্চিত করার কারিগরও তিনি। আর সে জন্যই মারগাওয়ে এফসি গোয়াকে ২-১ গোলে হারানোর পরেই বলবন্ত সিংহের প্রশংসায় পঞ্চমুখ ইতালির বিশ্বকাপজয়ী প্রাক্তন ডিফেন্ডার ও চেন্নাইয়ান ম্যানেজার মাতেরাজ্জি। তাঁর কথায়, “শুরুর দশ মিনিট খুব কঠিন ছিল। কিন্তু তার পরে আর কোনও সমস্যা হয়নি। তার জন্য বলবন্ত আর এলানোকে অসংখ্য ধন্যবাদ। আমি ভারতীয় ফুটবলের উজ্জ্বল ভবিষ্যত্‌ দেখতে পাচ্ছি বলবন্তের মধ্যে।”

যে কোনও টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচ খুব গুরুত্বপূর্ণ হয়। আর সেটা যদি অ্যাওয়ে ম্যাচ হয়, তা হলে তো কথাই নেই। কিন্তু অনেক সমস্যার মধ্যেও চেন্নাইয়ান এফসি যে তিন পয়েন্ট নিশ্চিত করতে পেরেছে, তা ভেবেই খুশি মাতেরাজ্জি। বলছিলেন, “আমরা ট্রেনিং করার জন্য পুরো সময় পাইনি। তবে মাঠের বাইরে কিংবা ভিতরে, আমার একটা পেশাদার টিম আছে। এবং এই জয় সবার পরিশ্রমে।”

মাতেরাজ্জির স্ট্র্যাটেজিরও প্রশংসা করতে হবে। বিশেষ করে যে ভাবে তিনি গোটা ম্যাচে গোয়ার মার্কি ফুটবলার রবার্ট পিরেসকে আটকেছেন। চেন্নাইয়ান এফসি-র ম্যানেজার বলছিলেন, “পিরেসের জন্য আমি শারীরিক চ্যালেঞ্জের উপর বেশি জোর দিয়েছিলাম। ও যদিও ইংল্যান্ডে খেলেছে। তাই এ সব চ্যালেঞ্জ সামলানোর অভিজ্ঞতাও আছে। তবে আমি খুশি, এখানে ম্যাচে কাজে লেগে গেল স্ট্র্যাটেজিটা।” চেন্নাইয়ান এফসি তাঁর সঙ্গে ফুটবলার হিসেবে চুক্তি করলেও, মাঠে নামেননি মাতেরাজ্জি। কবে দেখা যাবে ফুটবলার মাতেরাজ্জিকে? তারকা ইতালিয়ান ডিফেন্ডার বলছিলেন, “আমাকে ছাড়াই তো টিম জিতেছে। এখনই মনে হয় না দরকার আছে আমাকে।”

Advertisement

ঠিকই তো। মাতেরাজ্জির অভাব যে মাঠের মধ্যে ভুলিয়ে দিচ্ছেন বলবন্ত-এলানোরা! আইএসএলের প্রথম ভারতীয় গোলদাতা বলবন্ত অবশ্য বলছিলেন, “এটা আমার কাছে দারুণ গর্বের একটা ব্যাপার। যে টিমে এত বড় মাপের বিদেশিরা খেলছেন, সেই দলে জায়গা পাওয়াই তো কঠিন। ভাল লাগছে, শেষ পর্যন্ত আমার পরিশ্রম কাজে দিয়েছে। গোলটা কোচ এবং আমার পরিবারকে উত্‌সর্গ করলাম।” গোয়ার স্টেডিয়াম-ভর্তি সমর্থকদের সামনে খেলার যে অভিজ্ঞতা, সেটাও দারুণ উপভোগ করেছেন বলবন্ত। তাঁর কথায়, “ফতোরদার সমর্থকরা ওদের টিমের জন্য চিত্‌কার করছিল। কিন্তু বিশ্বাস করুন, তাতে আমরা বিন্দুমাত্র চাপে পড়িনি। বরং সেটা আমাদের আরও উদ্বুদ্ধ করছিল। আমাদের ফোকাস ছিল শুধু পারফরম্যান্সের দিকে।”



মাতেরাজ্জির দল যখন আনন্দে-উল্লাসে মত্ত, তখন গোয়ার টিমে কেবল বিষণ্ণতা। আইএসএলের প্রথম টিম হিসেবে ঘরের মাঠে হারের ধাক্কা মেনে নিতে পারছে না জিকোর দল। তবে গোয়ার পর্তুগিজ ফুটবলার মার্সেলিনো বলছিলেন, “সমর্থকরা জয় দেখতে এসেছিল। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত সেটা দিতে পারিনি আমরা। ওরা প্রত্যেকটা সেকেন্ড আমাদের জন্য চিত্‌কার করে গিয়েছে। পরের ম্যাচে আমাদের আরও বেশি চেষ্টা করতে হবে।” একটু থেমে তিনি আরও যোগ করলেন, “আমরা শুরুটা ভাল করেছিলাম। প্রথম ২০-৩০ মিনিট ঠিক ছিল। কিন্তু দু’টো গোল খেয়ে যাওয়াটা একেবারেই ঠিক হয়নি। যদিও আমরাও প্রথমার্ধে তিন-চারটে সুযোগ পেয়েছিলাম। সেটা কাজে লাগাতে পারিনি।দুর্ভাগ্য!”

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement