Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৭ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

আইসিসি এখনও জানে না ভারত কোয়ার্টার ফাইনাল কোথায় খেলবে

আইসিসি-র তৈরি অদ্ভুত ফিক্সচার অনুযায়ী কোয়ার্টার ফাইনালিস্ট বাকি দলগুলো মোটামুটি জানে, শেষ চারে ওঠার জন্য কোন ভেন্যুতে তারা খেলবে। ভারত গতবার

গৌতম ভট্টাচার্য
হ্যামিল্টন ১১ মার্চ ২০১৫ ০৪:০২
Save
Something isn't right! Please refresh.
Popup Close

আইসিসি-র তৈরি অদ্ভুত ফিক্সচার অনুযায়ী কোয়ার্টার ফাইনালিস্ট বাকি দলগুলো মোটামুটি জানে, শেষ চারে ওঠার জন্য কোন ভেন্যুতে তারা খেলবে। ভারত গতবারের চ্যাম্পিয়ন হয়ে এবং পাঁচে পাঁচটা ম্যাচ জিতেও জানে না তাদের কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচ কোথায় পড়বে! মেলবোর্ন না, সিডনি?

অস্ট্রেলিয়া জানে বিপক্ষে যারাই উঠুক তারা কোয়ার্টার ফাইনাল খেলবে অ্যাডিলেডে।

নিউজিল্যান্ড জানে অকল্যান্ডে খেলবে।

Advertisement

শ্রীলঙ্কা জানে তারা খেলবে সিডনিতে।

এমনকী ইংল্যান্ড জানত তারা উঠলে খেলবে মেলবোর্নে।

অথচ ভারত জানে না।

হ্যামিল্টনে এ দিন আইসিসি মুখপাত্র জানালেন, ভারতের কোয়ার্টার ফাইনাল ভেন্যু এখনও অনিশ্চিত। কোন দলের বিরুদ্ধে তারা পড়বে তার ওপর নির্ভর করছে খেলাটা কোথায়। যদি বাংলাদেশ হয় তা হলে খেলা এমসিজিতে। যদি শ্রীলঙ্কা হয় তা হলে এসসিজিতে। এমন অদ্ভুত ক্রীড়াসূচির ফাঁদে বাকি টিমগুলো পড়ছে না। ভারত কেন এর বলি হচ্ছে? প্রাক্তন ক্রিকেটাররাও এই সূচির খামখেয়ালিপনায় ক্ষুব্ধ। গাওস্কর থেকে সৌরভ সবাই। আইসিসি যদিও বলছে সব দলের স্বার্থ দেখেই ক্রীড়াসূচি হয়েছে এবং আগের বিশ্বকাপের মডেলকেই অনুসরণ করে।

আইসিসির পক্ষে সামিউল হাসান জানালেন, ২০১১ বিশ্বকাপেও তার আগেরবারের চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়ার জন্য কোনও ভেন্যু নির্দিষ্ট ছিল না। অস্ট্রেলিয়া আমদাবাদে কোয়ার্টার ফাইনাল খেলেছিল যেহেতু অন্যতম সংগঠক দেশ হিসেবে ভারত নিজের দেশে খেলবে ঠিক হয়েছিল। বাংলাদেশ উঠলে কথা ছিল তারা খেলবে ঢাকায়। শ্রীলঙ্কাও খেলে নিজের দেশে। এ বারও সে ভাবে প্রথমেই ঠিক হয়ে যায় অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড খেলবে নিজের দেশে। এর পর ঠিক হয় ইংল্যান্ড যেহেতু গ্রুপের শেষ ম্যাচ খেলবে সিডনিতে। তাদের আবার সেখানে কোয়ার্টার ফাইনাল দিলে তারা অন্যায় সুবিধে পেতে পারে। তাই ইংল্যান্ডকে সরানো হয় মেলবোর্নে। শ্রীলঙ্কা যেহেতু গ্রুপ্রে শেষ ম্যাচ খেলছে হোবার্টে। সিদ্ধান্ত হয় সিডনিতে তাদের কোয়ার্টার ফাইনাল দেওয়া হবে। আইসিসি মনে করে একমাত্র এই ভাবেই তাদের পক্ষে সব দিক বাঁচানো সম্ভব ছিল। যেহেতু সংগঠক দেশই বারবার বিশ্বকাপে নির্দিষ্ট ভেন্যু পেয়ে এসেছে, গতবারের চ্যাম্পিয়নরা নয়, তাই ভারতের প্রতি কোনও অন্যায় হচ্ছে বলে তারা মনে করে না।

কিন্তু অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের বাইরেও তো দুটো টিমকে নির্দিষ্ট ভেন্যু দেওয়া হল। ভারতকে তার মধ্যে ঢোকানো যায়নি কেন? সামিউল বলেন, “টুর্নামেন্টের আগের রেটিং ও ফর্ম দুটোই মাথায় রাখা হয়েছিল তখন।” মনে হল, টিম ইন্ডিয়া-র ফর্ম একেবারেই আশানুরূপ ছিল না বলে প্রথম চারে তাদের ভাবা হয়নি।

আপাতত যা দাঁড়াল, মেলবোর্নে উজ্জীবিত বাংলাদেশের সামনেই পড়া উচিত ভারতের। কিন্তু যদি তারা দৈবাৎ শেষ ম্যাচে নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে দেয়। আর শেষ ম্যাচে শ্রীলঙ্কা হেরে যায় বা পয়েন্ট ভাগাভাগি করে স্কটল্যান্ডের সঙ্গে। তা হলে ভারতকে পাওয়া যাবে স্টিভ ওয়র শহর সিডনিতে!

এই দোলাচল মহেন্দ্র সিংহ ধোনির একেবারেই ভাল লাগার কথা নয়। আরওই না কারণ চেন্নাই নিবাসী আইসিসির সর্বোচ্চ কর্তার কাছে সচরাচর তিনি এমন ব্যবহার পেতে অভ্যস্ত নন!



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement