×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

৩১ জুলাই ২০২১ ই-পেপার

গরমে কাহিল বাগানে ছুটি ঘোষণা

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ৩০ মার্চ ২০১৪ ০৩:৪২

গায়ে প্রায় ছ্যাঁকা লাগানো গরমে যখন নাজেহাল শহর, তখন সূর্যের তীব্র রোষ থেকে বাঁচতে অনুশীলনে কাঁটছাট বা ছুটি ঘোষণা করে দিতে বাধ্য হচ্ছেন কোচেরা!

মোহনবাগান, ইস্টবেঙ্গলই হোক, বা মহমেডান, ইউনাইটেড স্পোর্টস--- আই লিগের মাঝে চার টিমের প্রধান সমস্যা এখন একটাই। চৈত্রের দাবদাহ। শনিবার কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৯.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যার জেরে হাঁসফাস অবস্থা ফুটবল মাঠেও।

আই লিগ চ্যাম্পিয়ান হওয়ার সুযোগ রয়েছে ইস্টবেঙ্গলের। রবিবার স্পোর্টিংয়ের বিরুদ্ধে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ খেলতে নামার আগের দিন অবশ্য মাত্র এক ঘণ্টা অনুশীলন করালেন লাল-হলুদ কোচ আর্মান্দো কোলাসো। কারণ, গরমের হাত থেকে ফুটবলারদের বাঁচানো। পরে বললেন, “গরম একটা ফ্যাক্টর তো বটেই। এই গরমে বেশিক্ষণ অনুশীলন করলে ফুটবলাররা ক্লান্ত এবং অসুস্থ হয়ে পড়তে পারে।” ৬ এপ্রিলের আগে মোহনবাগানের কোনও ম্যাচ নেই। তার ওপর এই অসহ্য গরম। সে জন্য ওডাফা-ক্রিস্টোফারদের দু’দিনের ছুটি দিয়েছেন করিম বেঞ্চারিফা। “একেই আমাদের ম্যাচ নেই। সঙ্গে অসম্ভব গরম। ফুটবলাররাও ম্যাচ খেলে খেলে ক্লান্ত। তাই উইক এন্ডে ছুটি দিয়েছি।” স্বীকার করলেন বাগান কোচ। সোমবার থেকে ফের অনুশীলনে নামছেন ওডাফারা।

Advertisement

মহমেডান-ইউনাইটেডকে কল্যাণীতে শনিবার দুপুর আড়াইটের কড়া রোদের মধ্যেই খেলতে হল। তবে খেলার মাঝে ৪৫ মিনিট পরের নির্ধারিত বিরতি ছাড়াও আরও দু’বার জল খাওয়ার ও মুখে-চোখে জল দেওয়ার জন্য বিরতি দিতে বাধ্য হলেন রেফারি। ম্যাচের পর ইউনাইটেডের টিডি সুব্রত ভট্টাচার্য বলে দিলেন, “এই গরমের মধ্যে দুপুর আড়াইটেতে ম্যাচ দেওয়া অন্যায়।” মহমেডান কোচ সঞ্জয় সেনের গলাতেও একই রেকর্ড বাজছে। “এই গরমে দুপুরে খেলতে সবারই খুব কষ্ট হয়েছে। আমাদের তো দাঁঁড়িয়ে থাকতেই কষ্ট হচ্ছিল, ফুটবলারদের তো খেলতে গেলে সমস্যায় পড়তে হবেই।”

র‌্যান্টিদের কাছে হার সালগাওকরের
নিজস্ব সংবাদদাতা • কলকাতা

ইস্টবেঙ্গলের আশা বাঁচিয়ে রাখলেন র্যান্টি মার্টিন্সই। শনিবার সালগাওকরের বিরুদ্ধে জোড়া গোল করে দলকে জিতিয়ে এক দিকে যেমন নিজের দলকে অক্সিজেন দিলেন নাইজিরিয়ান স্ট্রাইকার, তেমনই স্পোর্টিংয়ের বিরুদ্ধে খেলতে নামার আগে চিডি-সুয়োকাদেরও উদ্দীপ্ত করলেন। ম্যাচের আট মিনিট বাকি থাকতে সালগাওকরকে ১-০ এগিয়ে দিয়েছিলেন ফ্রান্সিস। এর পরই জোড়া গোল করেন র্যান্টি। এ দিনের জয়ের ফলে সালগাওকরের পয়েন্ট দাঁড়াল ২১ ম্যাচে ৩৪। মোহনবাগানের সমান পয়েন্ট নিয়ে (২১ ম্যাচে ২৪) রাংদাজিদ রয়েছে লিগ তালিকার আটে।



Advertisement