Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৩ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

নতুন অধিনায়ক আর সবুজ পিচ নিয়ে গাব্বা ভারতের অপেক্ষায়

নতুন অধিনায়ক, সবুজ পিচ এবং তেইশের আগুন। ব্রিসবেনে ভারতকে ওড়াতে এটাই আপাতত অস্ট্রেলিয়ার গেমপ্ল্যান। মাইকেল ক্লার্কের হ্যামস্ট্রিংয়ে অস্ত্রোপচ

সংবাদ সংস্থা
ব্রিসবেন ১৬ ডিসেম্বর ২০১৪ ০৩:১৯
Save
Something isn't right! Please refresh.
Popup Close

নতুন অধিনায়ক, সবুজ পিচ এবং তেইশের আগুন। ব্রিসবেনে ভারতকে ওড়াতে এটাই আপাতত অস্ট্রেলিয়ার গেমপ্ল্যান।

মাইকেল ক্লার্কের হ্যামস্ট্রিংয়ে অস্ত্রোপচার। কবে মাঠে ফিরবেন, কেউ জানে না। প্রত্যাশিত ছিল সহ-অধিনায়ক ব্র্যাড হাডিনই গাব্বায় অস্ট্রেলিয়ার নেতৃত্ব দেবেন। কিন্তু প্রত্যাশিত রাস্তায় না হেঁটে অস্ট্রেলিয়ার নির্বাচকেরা অধিনায়ক হিসাবে বেছে নিয়েছেন স্টিভ স্মিথকে।

আর অধিনায়ক হয়েই স্মিথ প্রথম যে সিদ্ধান্তটা নিতে চলেছেন, তা নিজের ব্যাটিং অর্ডার নিয়ে। মাইকেল ক্লার্কের জায়গায় নিজেকে সম্ভবত চার নম্বরে তুলে আনছেন। আবার অনেকে বলছেন, তিন নম্বরেও স্মিথকে দেখা গেলে অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না। আর অধিনায়ক নিজে কী বলছেন? “আমি ব্যাপারটা নিয়ে ভাবছি। তবে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত নিইনি। আগে দেখি নির্বাচকেরা আমাদের কী দল দেন। তার পর ব্যাটিং অর্ডার নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেব।” স্মিথ তিন নম্বরে নামলে শন মার্শকে চার নম্বরে ব্যাট করতে দেখা যাবে। দেখা যাবে দুই ভাইকে (শন এবং মিচেল) এক সঙ্গে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে টেস্ট ক্রিকেটে খেলতে।

Advertisement

পঁচিশ বছর বয়সে স্মিথ হতে চলেছেন কিম হিউজের পর অস্ট্রেলিয়ার সর্বনিষ্ঠ ক্যাপ্টেন। কী রকম লাগছে অভিজ্ঞতাটা? “রোমাঞ্চকর বলতে পারেন। শেষ আঠারোটা মাস আমার এবং আমার দলের কাছে ঘূর্ণিঝড়ের মতো গিয়েছে। নিউ সাউথ ওয়েলস আর সিডনি সিক্সার্সের হয়ে অধিনায়কত্ব করেছি আমি। ওখানে ব্রেট লি এবং স্টুয়ার্ট ম্যাকগিলের মতো অভিজ্ঞ ক্রিকেটারের সাহায্য পেয়েছি। আমি নিশ্চিত, গাব্বায় আমার সিনিয়রদের একশো ভাগ সাহায্য পাব। আর হাডিনের সঙ্গে আমার সম্পর্কটা দারুণ ভাল। আমি জানি, আমার ভাইস ক্যাপ্টেন সব সময় আমার সঙ্গে থাকবে,” এ দিন সাংবাদিক সম্মেলনে বলেছেন স্মিথ।

হাডিনকে সহ-অধিনায়ক রেখে দিয়ে স্টিভ স্মিথকে অধিনায়ক বানিয়ে দেওয়ার পিছনে অস্ট্রেলীয় নির্বাচকদের একটা ভাবনাই কাজ করছে। ভবিষ্যতের লগ্নি। আর টেস্ট অধিনায়ক হিসাবে স্মিথের অভিষেক স্মরণীয় করে রাখার জন্য কী কী গেমপ্ল্যান নেওয়া হচ্ছে?

সবিস্তার দেখতে ক্লিক করুন...



গাব্বার সবুজ বাউন্সি পিচ। এবং ৬ ফুট ৪ ইঞ্চি লম্বা ফাস্ট বোলার জশ হ্যাজেলউড। এই দুইয়ের কম্বিনেশন তৈরি হয়ে থাকছে কোহলিদের জন্য। তেইশ বছরের এই ফাস্ট বোলারকে গাব্বায় পিটার সিডলের জায়গায় খেলতে দেখলে অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না। সোমবার অস্ট্রেলীয় নেটে গতির সঙ্গে বাউন্সও ভাল রকম পেতে দেখা গেল হ্যাজেলউডকে। বছর কুড়ি আগে ব্রিসবেনে ভারতকে শুইয়ে দেওয়ার পিছনে যাঁর অন্যতম ভূমিকা ছিল, সেই ক্রেগ ম্যাকডরমট বলেছেন, “জশের উত্থানের পিছনে আমারও কিছু হাত আছে। আগে ওর শর্ট বল করার প্রবণতাটা বেশি ছিল। এখন কিন্তু ফুল লেংথ বল করছে। বলটা সুইং করছে।” দলের সহকারী বোলিং কোচের সঙ্গে গলা মিলিয়ে কোচ ডারেন লেম্যানও বলেছেন, “জশের সবচেয়ে সুবিধা হল ওর উচ্চতা। ছেলেটা তাজা অবস্থায় আছে আর নিয়মিত ১৪০-এর উপর গতিতে বল করছে। তবে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। কাল প্র্যাকটিস করার পর নেব।”

সোমবার ভারতীয় ক্রিকেটারদের দেখা গিয়েছে গাব্বায়। এবং পিচ দেখে তাঁদের খুশি হওয়ার কোনও কারণ নেই। সবুজ ঘাসে মোড়া পিচ। অস্ট্রেলিয়ার সংবাদপত্রে পিচ কিউরেটর কেভিন মিচেল বলেছেন, “উইকেটে যথেষ্ট ঘাস আছে। আমরা একটা টিপিক্যাল গাব্বা উইকেট বানাতে চাইছি। ঘাস থাকবে, বাউন্স থাকবে, গতি থাকবে। এই মুহূর্তে আমরা সে দিকে ভাল মতোই এগোচ্ছি।”



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement