Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৭ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

‘রবেন আমাদের মেসি’

আর্জেন্তিনার সাড়ে পাঁচ ফুটের মহানায়ক থাকলে তাদেরও আছে। তিনিও আর্জেন্তিনীয়র মতো বাঁ পায়ের ম্যাজিশিয়ান, ড্রিবলে একই রকম দক্ষ, অনায়াসে কেটে যায়

নিজস্ব প্রতিবেদন
০৯ জুলাই ২০১৪ ০২:৫৯
Save
Something isn't right! Please refresh.
ডাচ প্র্যাকটিসে রবেন-স্নাইডার।

ডাচ প্র্যাকটিসে রবেন-স্নাইডার।

Popup Close

আর্জেন্তিনার সাড়ে পাঁচ ফুটের মহানায়ক থাকলে তাদেরও আছে। তিনিও আর্জেন্তিনীয়র মতো বাঁ পায়ের ম্যাজিশিয়ান, ড্রিবলে একই রকম দক্ষ, অনায়াসে কেটে যায় তিন-চার জন ডিফেন্ডার। শুধু উচ্চতাটাই যা একটু বেশি! ছ’ফুটের কাছাকাছি।

তিনি আর্জেন রবেন। লিওনেল মেসির মতোই বাঁ পায়ের শিল্পী এবং ওয়েসলি স্নাইডারের কথায় ‘আমাদের মেসি’।

“এই বিশ্বকাপে আর্জেন্তিনার কাছে মেসির যা গুরুত্ব, আমাদের কাছে রবেনেরও সেটা। রবেন টিমে থাকার সবচেয়ে সুবিধে হল, ও একাই প্রতিপক্ষের তিন-চার জনকে ব্যস্ত রেখে দেবে। বাকিদের জন্য জায়গা তৈরি করে দেবে। কোস্টারিকার বিরুদ্ধে কোয়ার্টার ফাইনালটাই মনে করুন না। কতগুলো সুযোগ ও তৈরি করে দিয়েছিল,” আর্জেন্তিনার বিরুদ্ধে বিশ্বকাপ সেমিফাইনালের চব্বিশ ঘণ্টা আগে রবেনকে সামনে রেখে এ ভাবেই মনস্তাত্ত্বিক যুদ্ধ চালু করে দিলেন স্নাইডার।

Advertisement

শুধু অসাধারণ ফর্মের জন্যই নয়, প্রতিভা এবং গতি দুটোর জন্যই রবেন প্রভূত বন্দিত হচ্ছেন ব্রাজিল বিশ্বকাপে। কারও কারও মনে হচ্ছে, তিনি মেসির সমকক্ষ। মনে করা হচ্ছে সেমিফাইনালে মেসি যদি দুটো টিমের মধ্যে ডিসাইডিং ফ্যাক্টর হয়ে ওঠেন, সেই একই ক্ষমতা বায়ার্নের তিরিশ বছরের উইঙ্গারেরও আছে। যে ক্ষমতা টিমে আমদানি করেছে অফুরন্ত আত্মবিশ্বাস। যার জোরে রবিন ফান পার্সি থেকে ডার্ক কাউট পরিষ্কার বলে দিচ্ছেন, আর্জেন্তিনার বিরুদ্ধে সেমিফাইনাল খেলা মোটেও স্বপ্ন নয়। স্বপ্ন বিশ্বকাপটাকে হাতে ধরা।

“আমরা জানি সেমিফাইনালে চল্লিশ হাজার আর্জেন্তিনীয় সমর্থক থাকবে। যারা মেসির জন্য চেঁচাবে। তাতে আমাদের সুবিধেই হয়। চিলি বা মেক্সিকো ম্যাচেও দেখেছি, আমরা সংখ্যালঘু। কিন্তু সেটা আমাদের শক্তি বাড়িয়ে দেয়। এ বারও দেবে,” বলে দিয়েছেন কাউট। এ বারের বিশ্বকাপে সেমিফাইনাল লাইন-আপ দেখে যাঁর সত্যিই এটাকে বিশ্বকাপ সেমিফাইনাল বলেই মনে হচ্ছে। বলছেন, “বিশ্বের চারটে সেরা টিম সেমিফাইনাল খেলছে। ব্রাজিল, জার্মানি, আর্জেন্তিনা আর নেদারল্যান্ডস। এ সব ম্যাচেই তো নিজেদের প্রমাণ করব। সেরাদের হারিয়ে নিজেরা সেরা হওয়ার মধ্যে একটা আলাদা ব্যাপার আছে। আমরা এখন আর্জেন্তিনাকে হারাব। তার পর বিশ্বকাপটা ঘরে আনব।”

স্নাইডার এবং কাউট দু’জনেরই মনে আছে আটাত্তরের ফাইনালের ইতিহাস। যখন আর্জেন্তিনার কাছে ৩-১ হেরে রানার্স-আপ হয়ে সন্তুষ্ট হতে হয়েছিল ডাচদের। তার পর দু’দলের দেখা হয়েছিল ২০০৬ বিশ্বকাপে। যে ম্যাচ গোলশূন্য ভাবে শেষ হয়। এ বার কী হবে? কাউটের ভবিষ্যদ্বাণী, “জার্মানি বিশ্বকাপ একদম আলাদা ছিল। এখন দুটো টিমই কোয়ালিফাই করে গিয়েছে। এখন তুমি জিতবে, নইলে বাড়ি যাবে। ব্রাজিল বিশ্বকাপটা এমনিতেই অসাধারণ হচ্ছে। প্রচুর গোল হচ্ছে, ভাল ম্যাচ হচ্ছে। আর এ বার আর্জেন্তিনা দেখবে নেদারল্যান্ডস কী জিনিস!”



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement