Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৮ নভেম্বর ২০২১ ই-পেপার

আইপিএল নিলাম

গম্ভীর, কালিসের ভোটে নাইট শিবিরে আড়াই কোটির ‘কারি’

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০২:৫৮
কেকেআরে নতুন চমক

কেকেআরে নতুন চমক

একে সুনীল নারিন। তার উপর কেসি কারিয়াপ্পা। আরও এক রহস্য স্পিনার কেকেআর সংসারে। গত বছর নাইট শিবিরের ট্রায়ালে ২০ বছর বয়সি এই লেগ স্পিনারকে দেখার পর যাঁর নামের পাশে টিক দিয়ে খোদ গৌতম গম্ভীর নাকি বলেছিলেন, “একে আমার চাই-ই”। না হলে দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের সঙ্গে টানা হ্যাঁচড়ায় তাঁর দর দশ লাখ থেকে দু’কোটি চল্লিশ লাখ ওঠা সত্ত্বেও কেকেআর কর্তারা কারি-কে নিয়ে লড়াই চালিয়ে যাবেন কেন?

কুর্গে নিজের বাড়ি থেকে ফোনে এবিপি-র সঙ্গে কথা বলার সময়ও বিস্ময় ফুটে উঠল রহস্য স্পিনারের গলায়। “বিশ্বাস করবেন না, ওই মুহূর্তে টিভিতে যেন অন্ধকার দেখছিলাম। মনে হল, সত্যিই আমাকে নিয়ে বিডিং হচ্ছে তো?”

কিন্তু কেন কারিয়াপ্পা?

Advertisement

কেকেআর এমডি বেঙ্কি মাইসোর যদিও বললেন, “কালিসের ওকে খুব ভাল লেগেছিল।” তবে নাইটদের শিবির থেকে জানা গেল, সেপ্টেম্বরে হায়দরাবাদে কেকেআরের ট্রায়ালে গম্ভীরের পছন্দ হয় এই তরুণকে। নেটে কারিকে খেলার সময় নাকি তাঁর কয়েকটা বল ঠিকমতো বুঝতেই পারেননি নাইট অধিনায়ক। কারিয়াপ্পা বললেন, “সে দিন নেট থেকে বেরিয়ে গম্ভীর স্যর বলেন, ভাল বল করেছিস। আরও ভাল বল করতে হবে। তখন থেকেই আশায় ছিলাম।”

নিজের বোলিংয়ের বৈশিষ্ট সম্পর্কে কারিয়াপ্পা বলেন, “মূলত তিন আঙুলে স্পিন করি। মাঝে মাঝে অফ স্পিনও দিতে পারি। এ জন্যই ব্যাটসম্যানদের আমার বল খেলতে অসুবিধা হয়। পরে শুনি সে দিন আমার কয়েকটা বল খেলতে গম্ভীর স্যরেরও অসুবিধা হয়েছিল।” গত বছর কর্নাটক প্রিমিয়ার লিগে বিজাপুর বুলসের হয়ে খেলে ছ’টা ম্যাচে এগারোটা উইকেট নেন কারিয়াপ্পা, ইকনমি রেট ৬। গত বারের দলের ১৩জনকে রেখেই দিয়েছিল কেকেআর। এ বার এলেন নিউজিল্যান্ডের অলরাউন্ডার জেমস নিশাম ও অস্ট্রেলিয়ার ব্র্যাড হগও। তবে টিম ম্যানেজমেন্টে একটা বদল হয়েছে। জাক কালিস ব্যাটিং মেন্টর হওয়ার ফলে এ বার ডব্লিউ ভি রামনকে আর রাখছে না কেকেআর।



কারিয়াপ্পা যদি হয়ে থাকেন দিনের বিস্ময়, তা হলে নায়ক অবশ্যই যুবরাজ সিংহ। তাঁকে ১৬ কোটি টাকায় নিল দিল্লি। রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুও তাদের মার্কি প্লেয়ারকে পেতে ঝাঁপিয়েছিল। কিন্তু ১৫.৫ কোটিতে গিয়ে থেমে যায়। ছেলের এই চাহিদা দেখে মহেন্দ্র সিং ধোনির বিরুদ্ধে ক্ষোভে ফেটে পড়েন যুবির বাবা যোগরাজ। তাঁর বক্তব্য, “ধোনির সঙ্গে আমার ছেলের ব্যক্তিগত সম্পর্কের জন্যই ওকে বাদ পড়তে হল।” পরে অবশ্য অবস্থা সামাল দিতে যুবি টুইট করেন, “বাবা বড্ড আবেগপ্রবণ। মাহির নেতৃত্বে খেলা বরাবর উপভোগ করেছি।” সান রাইজার্স হায়দরাবাদে এ বার কেভিন পিটারসেনের সঙ্গে ড্রেসিংরুম ভাগ করে নেওয়ার সুযোগ পাবেন বাংলার ক্যাপ্টেন লক্ষ্মীরতন শুক্ল। যিনি ৩০ লাখ পাচ্ছেন। কেপি পেলেন দু’কোটি।

আরও পড়ুন

Advertisement