Advertisement
২৭ জানুয়ারি ২০২৩

আমাকে ফাঁসিয়েছে মারাদোনা, অভিযোগ প্রাক্তন বান্ধবীর

গত মাসে রিও-তে রোসিও অলিভা আর মারাদোনাকে একসঙ্গে দেখার পর থেকেই জল্পনা চলছিল, প্রাক্তন বান্ধবীর সঙ্গে ঝগড়া মেটাতে চান আর্জেন্তিনীয় কিংবদন্তি। কিন্তু সেই প্রয়াস যে ব্যর্থ হয়ে এত দ্রুত অন্য দিকে মোড় নেবে, কে ভেবেছিল!

তখন সুদিন। অলিভার সঙ্গে মারাদোনা।

তখন সুদিন। অলিভার সঙ্গে মারাদোনা।

সংবাদ সংস্থা
বুয়েনস আইরেস শেষ আপডেট: ১৯ জুলাই ২০১৪ ০৩:৫২
Share: Save:

গত মাসে রিও-তে রোসিও অলিভা আর মারাদোনাকে একসঙ্গে দেখার পর থেকেই জল্পনা চলছিল, প্রাক্তন বান্ধবীর সঙ্গে ঝগড়া মেটাতে চান আর্জেন্তিনীয় কিংবদন্তি। কিন্তু সেই প্রয়াস যে ব্যর্থ হয়ে এত দ্রুত অন্য দিকে মোড় নেবে, কে ভেবেছিল!

Advertisement

সটান প্রাক্তন বান্ধবীর বিরুদ্ধে দুবাইয়ের বাড়ি থেকে বহু মূল্যবান ঘড়ি, অলংকার, হীরের দুল চুরির অভিযোগই করে বসবেন মারাদোনা, সেটাই বা কে জানত! যার ভিত্তিতে গ্রেফতার করা হয় অলিভাকে। এ দিন কোর্টে জামিন পাওয়ার পর অবশ্য পাল্টা অভিযোগ এনেছেন রোসিও। তাঁর দাবি, মারাদোনাই তাঁকে ফাঁসিয়েছেন। ২২ বছরের রোসিও বলে দেন, “আমার জন্য ফাঁদটা পাতা হয়েছে। মারাদোনা ভাল করেই জানে আমি কিছুই নিইনি।” সঙ্গে মারাদোনার বিরুদ্ধে তাঁকে মারধর করার অভিযোগও এনেছেন তিনি।

ঘটনার সূত্রপাত ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের গোলকিপার দাভিদ ডি গিয়ার সঙ্গে রোসিওর ঘনিষ্ঠতা নিয়ে। গত মরসুমে প্রস্তুতি নিতে ম্যান ইউ দুবাইয়ে শিবির করেছিল। রোসিওর সঙ্গে মারাদোনাও হাজির হন ম্যান ইউ শিবিরে। সেখানেই রোসিওর সঙ্গে ডি গিয়ার ঘনিষ্টতা দেখে প্রচণ্ড চটে যান মারাদোনা। সেই অশান্তির পরই নাকি মারাদোনার দুবাইয়ের বাড়ি ছেড়ে চলে যান রোসিও। আর্জেন্তিনা টিভিকে মারাদোনা জানিয়েছেন, “ওই ঘটনার পর তিন মাস অপেক্ষা করেছিলাম। যদি ও মূল্যবান জিনিসগুলো ফেরত দিত, ব্যাপারটা অন্য দিকে যেতে পারত।” মারাদোনার দাবি, রোসিও যা চুরি করেছেন তার মূল্য প্রায় আড়াই লক্ষ পাউন্ড।

মারাদোনার অভিযোগের ভিত্তিতে আরব আমিরশাহি প্রশাসন গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে রোসিওর বিরুদ্ধে। বুধবার বুয়েনস আইরেসের ইজেইজা বিমানবন্দর থেকে তিনি গ্রেফতার হন। রোসিও নিজেও এক জন ফুটবলার। তাঁর দাবি, মারাদোনাই রিও-তে গিয়ে তাঁর সঙ্গে দেখা করার জন্য খরচ দিয়েছিলেন। তবে ৫৩ বছর বয়সি আর্জেন্তিনীয় কিংবদন্তির অবশ্য সাফ কথা, অলিভা তাঁর মূল্যবান জিনিসপত্র ফেরত দিলে ‘সমস্যা মিটে যাবে’। না হলে ‘পরিণাম’ ভুগতে হবে তাঁকে। গত পাঁচ মাস ধরে এই নিয়েই অশান্তি চলছে তাঁদের মধ্যে, সেটাও স্বীকার করে নিয়েছেন আর্জেন্তিনীয় কিংবদন্তি।

Advertisement

তবে আরব আমিরশাহির সঙ্গে বন্দি প্রত্যার্পণ চুক্তি নেই আর্জেন্তিনার। জানিয়েছেন অলিভার আইনজীবী হোসে ভেরা। তাঁর মক্কেলকে ঘিরে যে ভাবে প্রত্যার্পণ করার ব্যাপারে চাপ দেওয়া হচ্ছে তাকে ‘বাড়াবাড়ি’ বলার পাশাপাশি মারাদোনার মতো ‘প্রভাবশালী ব্যক্তি’ পিছনে আছেন বলেই নাটকীয় ভাবে অলিভাকে গ্রেফতার করা হল বলে অভিযোগ তাঁর।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.