Advertisement
৩০ জানুয়ারি ২০২৩

অস্ট্রেলিয়া সিরিজ থেকে শিখে অলিম্পিকেও পদক জিতব: সর্দার

ইনচিওনের পুরস্কার মঞ্চে ভারতীয় হকি দলের গলায় হলুদ রঙা পদক ঝোলার পিছনে সর্দার সিংহদের টানা চব্বিশ মাসের কঠোর পরিশ্রম, পরিকল্পনা আর ট্যাকটিক্যাল উত্‌কর্ষতা ছিল। ষোলো বছর পর এশিয়ান গেমসে দেশকে হকি চ্যাম্পিয়ন করে ফেরার পর এক বিস্তারিত সাক্ষাত্‌কারে এ কথা ফাঁস করেছেন স্বয়ং ভারত অধিনায়ক সর্দার।

আশাবাদী। এশিয়াডে সর্দার। —ফাইল চিত্র

আশাবাদী। এশিয়াডে সর্দার। —ফাইল চিত্র

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ১৭ অক্টোবর ২০১৪ ০৩:৩৯
Share: Save:

ইনচিওনের পুরস্কার মঞ্চে ভারতীয় হকি দলের গলায় হলুদ রঙা পদক ঝোলার পিছনে সর্দার সিংহদের টানা চব্বিশ মাসের কঠোর পরিশ্রম, পরিকল্পনা আর ট্যাকটিক্যাল উত্‌কর্ষতা ছিল।

Advertisement

ষোলো বছর পর এশিয়ান গেমসে দেশকে হকি চ্যাম্পিয়ন করে ফেরার পর এক বিস্তারিত সাক্ষাত্‌কারে এ কথা ফাঁস করেছেন স্বয়ং ভারত অধিনায়ক সর্দার।

“দু’হাজার বারোর অলিম্পিক হকিতে সবার শেষে থাকার পর আমরা গত দু’বছর ধরে নিজেদের সমস্ত পরিকল্পনা আর চেষ্টাটা দিয়েছিলাম দু’হাজার চোদ্দো এশিয়ান গেমসের সোনার পদকের জন্য। যাতে দু’হাজার ষোলোয় রিও অলিম্পিকে সরাসরি খেলার যোগ্যতা ইনচিওন থেকেই পেয়ে যায় ভারত। আর সেই আসল সময়টা যখন ইনচিওনে আমাদের সামনে এসেছিল, আমরা নিজেদের সেরাটা দিয়ে সেই লক্ষ্য পূরণে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলাম,” বলে দিয়েছেন সর্দার।

পরের অলিম্পিক হকিতে ভারতই প্রথম দেশ হিসেবে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে। মহাদেশীয় চ্যাম্পিয়ন হিসেবে। সর্দারের কথায়, “আমরা এ বার ভীষণ ভাবে আগেভাগে অলিম্পিক হকিতে খেলার টিকিট পেতে চাইছিলাম। কারণ, লন্ডন অলিম্পিকের সময় আমরা দেখেছি, যত শেষের দিকে সেই যোগ্যতা পাওয়া যায়, ততই গেমসের প্রস্তুতিতে খামতি পড়ে।” সঙ্গে সর্দার আরও যোগ করেছেন, “এশিয়াডে টিমের প্রতিটা ছেলে দেশকে মহাদেশীয় সেরা করার গুরুদায়িত্ব নিয়ে কঠোর পরিশ্রম করেছে টানা গত দু’বছর। বিশেষ করে আমাদের চিফ কোচ টেরি ওয়ালশের ট্রেনিং ভীষণ রকম কার্যকরী হয়েছে। সুতরাং ইনচিওন থেকে সোনা জিতে আসাটা এ সব কিছুরই মিলিত ফল।”

Advertisement

গ্রুপ লিগের হারের শোধ তুলে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানকে ফাইনালে হারানো সম্পর্কে ভারত অধিনায়কের প্রতিক্রিয়া, “আমাদের দলের প্রতিটা খেলোয়াড়ের ওটাই জীবনের সেরা মুহূর্ত। সর্বোত্তম অভিজ্ঞতা। বিশ্বকাপে আমরা ভাল ফল করতে পারিনি। কমনওয়েলথ গেমসে রানার আপ হলেও ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার কাছে বিশ্রী ভাবে চার গোলে হেরেছি। কিন্তু এই সব রেজাল্টকে যতই খারাপ দেখাক, আসল কথাটা হল, আমাদের খেলার কিন্তু ধাপে ধাপে উন্নতি ঘটেছে এই সব টুর্নামেন্টের মধ্য দিয়েই। গত দু’বছরে আমরা কোনও সময়ই নিজেদের ফোকাস থেকে সরে যাইনি যে, এশিয়াড সোনা জিতে রিও অলিম্পিকে আগেভাগে কোয়ালিফাই করাটাই আমাদের গোল।”

সর্দার খানিকটা আবেগের সঙ্গে আরও বলেছেন, “আমার আট বছরের আন্তর্জাতিক হকি কেরিয়ারে অনেক খারাপ আবার অনেক ভাল মুহূর্তও দেখেছি। কিন্তু এখন থেকে মনে হচ্ছে, বেশি ভাল মুহূর্তই দেখব। কারণ ভারতীয় হকির সুদিন ফিরেছে। ভারতীয় দল সামনেই বিশ্বচ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে হকি সিরিজ খেলবে। নিশ্চয়ই ওই সিরিজ থেকে অনেক ভাল কিছু পাব আমরা। যেগুলো রিওতে কাজে লাগিয়ে অলিম্পিকের পোডিয়ামেও আশা করি দাঁড়াব।”

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.