Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৮ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

বিশপ দেখছেন ভারত বনাম ওয়েস্ট ইন্ডিজ ফাইনাল

চেতন নারুলা
ঢাকা ০৩ এপ্রিল ২০১৪ ০৩:২০
ক্যারিবিয়ান জোড়া তাস নারিন-বদ্রী। ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্র্যাকটিসে বুধবার। ছবি: এএফপি।

ক্যারিবিয়ান জোড়া তাস নারিন-বদ্রী। ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্র্যাকটিসে বুধবার। ছবি: এএফপি।

টুর্নামেন্ট এখন কাজের সময়ে ঢুকে পড়েছে। মিরপুরের শের-ই বাংলা স্টেডিয়াম আগামী চার দিনে ২০১৪ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শেষ তিন ম্যাচ দেখবে। যাতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, শ্রীলঙ্কা, ভারত আর দক্ষিণ আফ্রিকা চার দেশের কোনও একটায় সুদৃশ কাপ উড়ে যাবে।

যদিও প্রাক্তন ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ফাস্ট বোলার-অধুনা টিভি ভাষ্যকার ইয়ান বিশপের মনে হচ্ছে, গত রাতে পাকিস্তানকে যে প্রবল দাপটে তাঁর দেশ হারিয়েছে, তাতে ক্যারিবিয়ানরা দারুণ ছন্দ পেয়ে গিয়েছে। যার জোরে সেমিফাইনালে শ্রীলঙ্কা-বধ করে গেইল-ব্র্যাভোরা গত বারের ফাইনালের রি-ম্যাচই উপহার দেবে। ২০১২ কাপ ফাইনালে উদ্যোক্তা শ্রীলঙ্কাকে হারিয়েই বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়েছিলেন গেইলরা। বিশপ বলছিলেন, “ভারতের কাছে হারার পর থেকেই কিন্তু ওয়েস্ট ইন্ডিজ জেগে উঠেছে। বিশেষ করে আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধেও এ বছরের গোড়ার দিকে ওয়েস্ট ইন্ডিজ হেঁচকি খাওয়ার পর কিন্তু এই মুহূর্তে দল হিসেবে দারুণ জমে উঠেছে আমাদের দেশ। ইংল্যান্ডের সঙ্গে ঘরের মাঠের সিরিজ ওয়েস্ট ইন্ডিয়ানদের কিছুটা সাহায্য করেছে নিজেদের পরিকল্পনা করার। এবং সেই পরিকল্পনাগুলো এই বিশ্বকাপে আমাদের দল তেমন কোনও সমস্যা ছাড়াই প্রয়োগ করতে পারছে।”

পাকিস্তানেরও আগে অস্ট্রেলিয়াকে ওয়েস্ট ইন্ডিয়ানদের হারানোর পিছনে বিশপের ধারণা, জেমস ফকনারের আজব মন্তব্য বরং ক্যারিবিয়ানদেরই বেশি উজ্জীবিত করে তুলেছিল। “আজ গিলেসপির একটা টুইট দেখছিলাম। তাতে ও ঠিকই লিখেছে যে, ‘তোমার প্রতিপক্ষ উজ্জীবিত হয়ে উঠতে পারে এমন কোনও বেফাঁস মন্তব্য কখনও কোরো না।’ আমার মনে হয় ফকনার ঠিক সেই কাজটাই করেছিল। আমরা কখনও কোনও প্রতিপক্ষকেই অশ্রদ্ধা করি না। ফলে ফকনারের মন্তব্য স্যামিদের উল্টে তাতিয়েই দিয়েছিল।” শেষ পর্যন্ত মূলপর্বে একটাও ম্যাচ জিততে না পারা বাংলাদেশকে হারিয়ে ফকনারের অস্ট্রেলিয়া সান্ত্বনা জয় পায়।

Advertisement

সেমিফাইনাল শুরুর আগের দিনও বিশপ বুঝতে পারছেন না, চট্টগ্রামের পেস আর বাউন্সি পিচ থেকে মিরপুরের স্পিন বোলিং সহায়ক পিচে এসে পড়া মাত্র শ্রীলঙ্কা ও (দ্বিতীয় সেমিফাইনালে) দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে সাততাড়াতাড়ি পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়াটা সমস্যা হবে কি না। “বিশেষ করে শ্রীলঙ্কা এই উপমহাদেশের দল এবং গত জানুয়ারি থেকে বাংলাদেশে পড়ে আছে। এশিয়া কাপও এখানেই জিতেছে। তবু যদি দু’দলের স্পিন আক্রমণ ধরি, তা হলে নারিন-বদ্রী আর মেন্ডিস-সেনানায়েকে কিংবা হেরাথ জুটি কাটাকাটি হয়ে যেতে পারে। কিন্তু দু’দলের ব্যাটিংয়ের কথা ধরলে পাকিস্তান ম্যাচের পারফরম্যান্স বিচারে ওয়েস্ট ইন্ডিজের গভীরতা একটু হলেও বেশি।”

অন্য সেমিফাইনাল নিয়ে বিশপের বিশ্লেষণ, ‘‘দক্ষিণ আফ্রিকাকে সমস্যায় ফেলবে মিরপুরের স্পিন সহায়ক উইকেটেও দলে মাত্র এক জনই কোয়ালিটি স্পিনার থাকাটা। সে-ই ইমরান তাহিরও ভারতের দুর্ধর্ষ ব্যাটিং লাইন আপের সামনে কতটা ভয়ের কারণ হয়ে উঠবে সন্দেহ!”

বিশপ শেষ করলেন এই বলে যে, “শেষমেশ নিজে ভুল প্রতিপন্ন হতে পারি ধরে নিয়েও বলছি, এখানে বিশ্বকাপ ফাইনাল হবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ বনাম ভারত।”

আরও পড়ুন

Advertisement