Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৯ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

পাহাড় জয়ের শপথ সঞ্জয়ের

বেঙ্গালুরু জয় এখন অতীত। মঙ্গলবার পাহাড় জয় করতে শিলং রওনা হল মোহনবাগান। যে ম্যাচে সঞ্জয় সেনের তুরুপের তাস হয়ে উঠতে তৈরি সনি নর্ডি। কলকাতা ছাড়

নিজস্ব সংবাদদাতা
২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০২:৪৬
Save
Something isn't right! Please refresh.
Popup Close

বেঙ্গালুরু জয় এখন অতীত। মঙ্গলবার পাহাড় জয় করতে শিলং রওনা হল মোহনবাগান। যে ম্যাচে সঞ্জয় সেনের তুরুপের তাস হয়ে উঠতে তৈরি সনি নর্ডি।

কলকাতা ছাড়ার আগে বাগানের হাইতি স্ট্রাইকার সনি ফোনে বলে দিলেন, “শিলং লাজং ভাল দল। ওদের হালকা ভাবে নেওয়ার প্রশ্নই ওঠে না।” বেঙ্গালুরুকে ৪-১ হারানোর পিছনে অন্যতম নায়ক ছিলেন সনি। জোড়া গোলও ছিল তাঁর। তবে শিলংয়ের বিরুদ্ধে গোলের ধারা বজায় রাখার চেয়েও বেশি করে সনির লক্ষ্য তিন পয়েন্ট তোলা। “আমি গোল করি কি না, সেটা জরুরি না। আসল হল দলকে সাহায্য করা। তিন পয়েন্ট পেলেই খুশি হব,” বলেন সনি।

লাজংয়ের প্রধান দুই অস্ত্র হচ্ছেন কর্নেল গ্লেন ও হাওকিপ। সম্প্রতি চোট সারিয়ে ফিরেছেন কর্নেল। সঙ্গে হাওকিপও দুর্দান্ত ফর্মে। তাঁদের গোলেই গত ম্যাচে ডেম্পোকে ২-০ হারিয়ে ছন্দে থাংবোই সিংটোর দল। তবে কর্নেল-হাওকিপের যুগলবন্দি নিয়ে চিন্তিত নন সনি। বরং বাগান নায়কের দাবি, তাঁর সঙ্গে কাতসুমির কম্বিনেশনই জয় ছিনিয়ে আনবে। “প্রতিটা ম্যাচে আমার সঙ্গে কাতসুমির কম্বিনেশন আরও জমে উঠছে। কাতসুমি বিশ্বমানের প্রতিভা। ও কোথায় পাস দিতে পারে আমি বুঝতে পারি।” ফেডারেশন কাপে লাজংকে হারিয়েছিল সবুজ-মেরুন। তাতে অবশ্য আত্মতুষ্ট হয়ে পড়ছেন না সনি। বাগান স্ট্রাইকার বলেন, “ফেডারেশন কাপে লাজং ম্যাচটা খুব কঠিন ছিল। এ বার আই লিগে ওরা জেতার জন্য আরও ঝাঁপাবে। তাই আমাদের সতর্ক থাকতে হবে।”

Advertisement

লাজংয়ের মাঠ কী অবস্থায় আছে, দেখার জন্য শিলংয়ে দু’দিন অনুশীলন করবে সবুজ-মেরুন। চোটের জন্য দলের সঙ্গে শিলং যেতে পারেননি শৌভিক ঘোষ ও শিল্টন পাল। কিন্তু দুই গুরুত্বপূর্ণ ফুটবলার না থাকলেও, মাথাব্যথা নেই কোচ সঞ্জয়ের। তাঁর বিশ্বাস, দলে ভাল ফুটবলারের কমতি নেই। “আমার দল এক বা দু’জনের উপর নির্ভর করে নেই। রিজার্ভ বেঞ্চও শক্তিশালী। যখন যে খেলেছে, দলের জন্য সব কিছু উজাড় করে দিয়েছে।” সঙ্গে তিনি যোগ করেন, “বেঙ্গালুরু সঙ্গে জিতেছি, ভাল। কিন্তু ওটা ধরে বসে থাকলে হবে না। রিয়াল মাদ্রিদ, ম্যাঞ্চেস্টার সিটির মতো ক্লাবগুলোও তো বড় ব্যবধানে জেতে। আই লিগের লড়াইয়ে টিকে থাকতে হলে প্রতিটা ম্যাচ জিততে হবে।”

এ দিকে, সোমবার ক্লাব সচিব অঞ্জন মিত্র জানিয়েছিলেন পুরস্কারঅর্থ স্বরূপ আইএফএ থেকে চল্লিশ লক্ষ টাকা পাওয়ার কথা ক্লাবের। যার উত্তরে এ দিন আইএফএ সচিব উৎপল গঙ্গোপাধ্যায় বলেন, “ব্যবস্থা করা হচ্ছে। মোহনবাগান ঠিক টাকা পেয়ে যাবে।”



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement