Advertisement
২৭ জানুয়ারি ২০২৩
মারাদোনার বোমা

ব্রাজিলকে যে ভাবে হোক ফাইনালে তুলতে চাইছে ফিফা

বিশ্বকাপে মাঠের ভেতর চৌষট্টিটা ম্যাচ হলেও মাঠের বাইরে যেন একটাই ম্যাচ! আর সেই ম্যাচ মারাদোনা বনাম ফিফা চলছেই! মারাদোনার ক্রমাগত আক্রমণাত্মক মন্তব্যের জেরে ফিফা ফুটবল রাজপুত্রের চলতি বিশ্বকাপে মিডিয়ায় প্রবেশাধিকার কেড়ে নিয়েছে। বাতিল করা হয়েছে মারাদোনার বিশ্বকাপ প্রেস কার্ড। তবু মারাদোনার মুখ বন্ধ করা যাচ্ছে না। এ বার তিনি ব্রাজিল-কলম্বিয়া ম্যাচে স্প্যানিশ রেফারি কার্লোস ভেলাস্কো কার্বালোর মাঠে বাঁশি মুখে ভূমিকাকে তীব্র সমালোচনার আড়ালে ফিফাকে একহাত নিয়েছেন। পাশাপাশি ব্রাজিল দলকেও ছাড়েননি।

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ০৮ জুলাই ২০১৪ ০২:৫৩
Share: Save:

বিশ্বকাপে মাঠের ভেতর চৌষট্টিটা ম্যাচ হলেও মাঠের বাইরে যেন একটাই ম্যাচ! আর সেই ম্যাচ মারাদোনা বনাম ফিফা চলছেই! মারাদোনার ক্রমাগত আক্রমণাত্মক মন্তব্যের জেরে ফিফা ফুটবল রাজপুত্রের চলতি বিশ্বকাপে মিডিয়ায় প্রবেশাধিকার কেড়ে নিয়েছে। বাতিল করা হয়েছে মারাদোনার বিশ্বকাপ প্রেস কার্ড। তবু মারাদোনার মুখ বন্ধ করা যাচ্ছে না। এ বার তিনি ব্রাজিল-কলম্বিয়া ম্যাচে স্প্যানিশ রেফারি কার্লোস ভেলাস্কো কার্বালোর মাঠে বাঁশি মুখে ভূমিকাকে তীব্র সমালোচনার আড়ালে ফিফাকে একহাত নিয়েছেন। পাশাপাশি ব্রাজিল দলকেও ছাড়েননি।

Advertisement

“ওই রেফারিটা আর ফিফা তো দেখলাম কোয়ার্টার ফাইনালে ব্রাজিলিয়ান ফুটবলারদের বিপক্ষকে লাথি মারার লাইসেন্স দিয়েছিল!” বলেছেন মারাদোনা। ওই ম্যাচেই কলম্বিয়ান ফুটবলারের লাথি পিঠে খেয়ে নেইমার বিশ্বকাপ থেকেই ছিটকে গিয়েছেন। তথাপি মারাদোনার বক্তব্য, ফিফার ওই স্প্যানিশ রেফারিকে ব্রাজিলের কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচের দায়িত্ব দেওয়ার মধ্যে নাকি অভিসন্ধি লুকিয়ে ছিল। মারাদোনার অভিযোগ, ব্রাজিলের মাঠে অর্ধ শতাব্দীরও বেশি (চৌষট্টি বছর) পর বিশ্বকাপ হওয়ায় ফিফা উদ্যোক্তা দেশকে নিদেনপক্ষে ফাইনালে তুলতে চাইছে!

“আমি মনে করি, ওই ম্যাচের পরিপ্রেক্ষিতে ফিফা একেবারে সঠিক রেফারিকেই সে দিন দায়িত্ব দিয়েছিল। কারণ, টুর্নামেন্টের ফর্ম আর পারফরম্যান্সের ভিত্তিতে কলম্বিয়ার ব্রাজিলকে হারাবার বেশি সুযোগ ছিল।” এর পর মারাদোনা আরও বিস্ফোরক; “গত দশ বছরের মধ্যে আমার দেখা নিকৃষ্টতম রেফারিং সে দিনের ম্যাচে হয়েছে! জুলিও সিজার আর হাল্ককে সে দিন লাল কার্ড দেখিয়ে বার করে দেওয়া উচিত ছিল। যা ফাউল ওরা ওই ম্যাচে করেছিল! আর দাভিদ লুইজ তো প্রায় সিস্টেম বানিয়ে ফেলেছিল, হামেস রদ্রিগেজকে লাথি মেরে-মেরে কী ভাবে মাঠ থেকে বার করে দেওয়া যায়! কিন্তু ফিফার বাছা রেফারি ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডারের উপর সে ভাবে কড়া হয়নি।”

এ দিকে, মঙ্গলবার ব্রাজিলের সেমিফাইনালের দায়িত্বেও এ বারের টুর্নামেন্টের এক বিতর্কিত রেফারি। তিনিমার্কো রদ্রিগেজ হলেন সেই মেক্সিকান রেফারি, মাঠে যাঁর সামনেই ইতালির চিয়েলিনিকে কামড়ে দিয়েছিলেন উরুগুয়ের সুয়ারেজ। কিন্তু মার্কো কিছু ধরতে পারেননি। হলুদ কার্ডও দেখাননি সুয়ারেজকে। বরং তার একটু আগেই মারচিসিওকে বিতর্কিত লাল কার্ড দেখিয়েছিলেন!

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.