Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৯ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

মুদগল কমিশনে ধোনিদের বিবৃতির রেকর্ডিং চাইল বিসিসিআই

শ্রীনিবাসন ও বোর্ড কর্তাদের বিরুদ্ধে নয়া মামলার হুমকি

আইসিসি বোর্ডের সভায় যোগ দিয়েও শান্তি নেই শ্রীনিবাসনের। অশান্তি বাড়তে পারে ভারতীয় বোর্ডেরও। এ বার বোর্ডের পদাধিকারীদের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননা

নিজস্ব প্রতিবেদন
১০ এপ্রিল ২০১৪ ০৩:৪০
Save
Something isn't right! Please refresh.
Popup Close

আইসিসি বোর্ডের সভায় যোগ দিয়েও শান্তি নেই শ্রীনিবাসনের। অশান্তি বাড়তে পারে ভারতীয় বোর্ডেরও। এ বার বোর্ডের পদাধিকারীদের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ এনে মামলা করার হুমকি দিলেন বিহার ক্রিকেট সংস্থার সচিব আদিত্য বর্মা। পাল্টা প্রস্তুতি শুরু হয়েছে বোর্ড মহলেও। দেশের সর্বোচ্চ আদালতের রায়ে শ্রীনির আইসিসি সিংহাসনে বসার স্বপ্ন যাতে চুরমার না হয়ে যায়, সে জন্য তাঁর শিবিরও ঘুঁটি সাজানো শুরু করে দিয়েছে। বুধবার মুদগল কমিশনে ধোনি, শ্রীনি-র বিবৃতির বিবরণ ও রেকর্ডিং চেয়ে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানাল তারা।

যে আইপিএলের কেলেঙ্কারি নিয়ে তোলপাড় দেশের ক্রিকেট মহল, সেই আইপিএলের সপ্তম মরসুম শুরুর দিনই, অর্থাৎ আগামী বুধবার স্পট ফিক্সিং কেলেঙ্কারি মামলার শুনানি আছে। তার আগেই আবার আসরে নেমে পড়লেন আদিত্য। সুপ্রিম কোর্ট বিসিসিআই-এর যাবতীয় কার্যকলাপ থেকে তাঁকে সরে দাঁড়ানোর নির্দেশ দেওয়া সত্ত্বেও শ্রীনিবাসনকে আইসিসি-র সভায় পাঠানো হল কী করে, এই প্রশ্ন তুলে ফের আদালতে যাওয়ার হুমকি দিলেন তিনি। বুধবার আইসিসি থেকে যে ই-মেল পাঠানো হয়েছে, তাতে দেখা যাচ্ছে মিটিংয়ে ভারতীয় বোর্ডের প্রতিনিধিত্ব করেছেন শ্রীনি।

আনন্দবাজারকে সন্ধ্যায় আদিত্য বলেন, “এটা আদালত অবমাননা ছাড়া কিছুই না। আদালত যেখানে স্পষ্ট বলে দিয়েছে, শ্রীনিবাসন বোর্ডের কোনও কাজে হাত দিতে পারবে না এবং ইন্ডিয়া সিমেন্টসের সঙ্গে যুক্ত কেউই বোর্ডের প্রশাসনিক কাজ করতে পারবে না, সেখানে শ্রীনির আইসিসি-র সভায় যাওয়ার কোনও প্রশ্নই ওঠে না। সে জন্যই পরবর্তী শুনানির আগেই সুপ্রিম কোর্টে ‘কনটেম্পট্ পিটিশন’ করছি। এবং এটা শ্রীনির বিরুদ্ধে নয়, বোর্ডের সমস্ত পদাধিকারীর বিরুদ্ধে। বোর্ডই তো শ্রীনিকে দুবাই যাওয়ার অনুমতি দিয়েছে। আদালতকে ওরাই অসম্মান করেছে। সব দেখেশুনে তো মনে হচ্ছে বোর্ড সর্বোচ্চ আদালতকেও পরোয়া করে না।”

Advertisement

অন্য দিকে শ্রীনি শিবিরও তৈরি হচ্ছে আগামী বুধবারের শুনানিতে বিরোধীদের টক্কর দেওয়ার জন্য। মুকুল মুদগল কমিটির সামনে মহেন্দ্র সিংহ ধোনি যা যা বলেছিলেন, তার লিখিত বিবরণ বা ‘ট্রান্সস্ক্রিপ্ট’ এবং তার অডিও রেকর্ডিং চেয়ে বুধবার সুপ্রিম কোর্টের কাছে আবেদন জানালেন বোর্ডের আইনজীবীরা। শুক্রবার তাঁদের বক্তব্য শুনে এই আবেদন গ্রাহ্য করা হবে কি না, তা জানাতে পারে আদালত। শুধু ধোনি নন। শ্রীনিবাসন এবং আইপিএল সিওও সুন্দর রামনের বিবৃতির বিবরণ চেয়েও আবেদন করা হয় এ দিন।

“এটা আদালত অবমাননা ছাড়া কিছুই না। আদালত যেখানে স্পষ্ট বলে দিয়েছে,

শ্রীনিবাসন বোর্ডের কোনও কাজে হাত দিতে পারবে না এবং ইন্ডিয়া সিমেন্টসের সঙ্গে যুক্ত

কেউই বোর্ডের প্রশাসনিক কাজ করতে পারবে না, সেখানে শ্রীনির আইসিসি-র

সভায় যাওয়ার কোনও প্রশ্নই ওঠে না।” —আদিত্য বর্মা

গত ২৭ মার্চ এই মামলার শুনানিতে আবেদনকারীর আইনজীবী হরিশ সালভে মুদগল কমিশনের রিপোর্ট উদ্ধৃত করে বলেন, “ধোনি মুদগল কমিশনের সামনে মিথ্যা সাক্ষী দিয়ে বলেছিলেন গুরুনাথ মইয়াপ্পন শুধুই একজন ক্রিকেটপ্রেমী, চেন্নাই সুপার কিংস দলের কোনও কর্তা নন।” পরের দিন ধোনির বিরুদ্ধে তোলা অভিযোগ মিথ্যা বলে পাল্টা দাবি করেন বোর্ডের আইনজীবীরা। এমনকী আদালতের বাইরে সালভের বিরুদ্ধে দায়িত্বজ্ঞানহীন মন্তব্যের অভিযোগও আনেন। সালভে পরে সংবাদমাধ্যমে ও নিজের টুইটারেও দাবি করেন, “ধোনিকে বাঁচাতে গিয়ে বোর্ড একজন অবসরপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির রিপোর্টের সত্যতা অস্বীকার করে বসল। যা আদালতের পক্ষে মোটেই সম্মানজনক নয়।”

আগামী শুনানিতে ধোনির বিবৃতি নিয়ে আদালতে ঝড় তুলতে পারেন দুঁদে আইনজীবী সালভে। তার জন্য তৈরি থাকতেই হয়তো এ দিন ধোনির বিবৃতির লিখিত বিবরণ ও রেকর্ডিং চাইল বোর্ড, ধারণা আইনজ্ঞ মহলের। পাশপাশি বোর্ডের ‘ডিলে ট্যাকটিক্স’-এর আশঙ্কাও দেখতে পাচ্ছেন কেউ। বিসিসিআই-এর একাধিক মামলা লড়ার অভিজ্ঞতা আছে যাঁর, সেই ঊষানাথ বন্দ্যোপাধ্যায় এ দিন বলেন, “আরও সময় আদায় করার জন্য এটা করতে পারে বোর্ড। না হলে এত দিন পর কেন ধোনির বিবৃতির বিবরণ চাওয়া হল? সুপ্রিম কোর্ট মে-র দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে জুলাইয়ের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। তার মধ্যে আবার বিচারপতি পট্টনায়ক অবসর নিয়ে নেবেন। জুলাই পর্যন্ত এই মামলাকে টেনে নিয়ে গেলে আখেরে শ্রীনিবাসনেরই লাভ। জুনে আইসিসি-র চেয়ারম্যান পদে তিনি তত দিনে বসে পড়বেন।”



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement