Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৭ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

শেষ চারের কথা ভেবে আজও আগে নামুক ধোনি

পর পর তিনটে ম্যাচ জিতে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করে ফেলে আজ অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে নামছে ভারত। অন্য দিকে, অস্ট্রেলিয়ার সামনে শেষ চারের রাস্তাটা শুধ

সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়
৩০ মার্চ ২০১৪ ০৩:২৫
Save
Something isn't right! Please refresh.
দুই মাথা। শনিবার মিরপুরে প্র্যকটিসে। ছবি: এএফপি

দুই মাথা। শনিবার মিরপুরে প্র্যকটিসে। ছবি: এএফপি

Popup Close

পর পর তিনটে ম্যাচ জিতে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করে ফেলে আজ অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে নামছে ভারত। অন্য দিকে, অস্ট্রেলিয়ার সামনে শেষ চারের রাস্তাটা শুধু কঠিন নয়, ড্যারেন স্যামি-বাহিনীর কাছে নাটকীয় হারের পর প্রায় বন্ধই হয়ে গিয়েছে। এই টুর্নামেন্টে অস্ট্রেলিয়া খুব ভাল ব্যাট করেছে। কিন্তু দলের আসল দুর্বলতা হয়ে দাঁড়িয়েছে ওদের চার পেসারে সাজানো বোলিং আক্রমণ। যা স্পিন সহায়ক মিরপুরের উইকেটের জন্য একেবারেই উপযুক্ত নয় বলে আমি মনে করি। উল্টো দিকে, ভারতকে দেখে এখনও পর্যন্ত টুর্নামেন্টের সেরা দল বলে মনে হচ্ছে। যার পিছনে মিরপুরের পিচে ভারতীয় স্পিনারদের সাফল্য সবচেয়ে বড় কারণ।

মিরপুরের পিচ আর পরিবেশ দারুণ ভাবে কাজে লাগিয়েছে অমিত মিশ্র-রবিচন্দ্রন অশ্বিনরা। ভারতের সব কিছু এখনও পর্যন্ত একদম পরিকল্পনা মাফিক চলেছে। ঠিক যেমনটা ধোনি চেয়েছিল। সব ক’টা টস জিতেছে ও। আর শিশিরের সমস্যা মাথায় রেখে প্রতিবার আগে বল করেছে। ভারতীয় ব্যাটসম্যানরাও রান তাড়ার কাজটা অসম্ভব দায়িত্ব নিয়ে করে জয় নিশ্চিত করেছে।

তবে এত কিছু সত্ত্বেও একটা অস্বস্তি কোথাও কাজ করছে যে, ভারত এখনও পর্যন্ত কোনও সত্যিকারের কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েনি। শেষ চারের লড়াইয়ে নামার আগে অবশ্য আজকের অস্ট্রেলিয়া ম্যাচটাই হয়ে উঠতে পারে সেই কঠিন চ্যালেঞ্জ। কিন্তু ওই যে বললাম, মিরপুরের পিচে জর্জ বেইলিদের বোলিং আক্রমণকে ভীষণ ভারসাম্যহীন দেখাচ্ছে। অস্ট্রেলীয় পেসারদের দক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তুলছি না। কিন্তু স্পিনের আদর্শ পিচে চাপের মুখে বল করতে গিয়ে বারবার ধাক্কা খাচ্ছে ওরা। সত্যি বলতে কী, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ব্র্যাড হগকে খেলানো হল না দেখে অবাক হয়েছিলাম। মানছি, পাকিস্তান ম্যাচে ও দাগ কাটতে পারেনি কিন্তু সঙ্গে এটাও মনে রাখা দরকার, উপমহাদেশের দলগুলো স্পিনটা যত ভাল খেলে, অন্য টিমগুলো তত ভাল খেলতে পারে না। পাকিস্তানি ব্যাটসম্যানরা ওকে যে ভাবে সামলেছিল, ক্যারিবিয়ানরা সে ভাবে পারত না। আশা করি আজ ভারতের বিরুদ্ধে সেই এক ভুল আর করবে না অস্ট্রেলিয়া। কারণ টুর্নামেন্ট যত গড়াচ্ছে, ততই ভাঙছে উইকেটটা আর প্রতিদিন আরও বেশি স্পিন সহায়ক হয়ে উঠছে।

Advertisement

অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যানরা অবশ্য রীতিমতো পরীক্ষা নিতে পারে ভারতীয় বোলারদের। যেখানে জেমস ফকনার সাতে নামে আর ব্র্যাড হ্যাডিন আটে আসে, সেই ব্যাটিংয়ের গভীরতা নিয়ে প্রশ্ন তোলার কোনও জায়গাই নেই, তা সে যে ফর্ম্যাটেই হোক। ওদের প্রথম চার ব্যাটসম্যান তো এক কথায় অসাধারণ। আমার কাছে ওরাই টি-টোয়েন্টির সেরা টপ অর্ডার। সেমিফাইনালের আগে এই ব্যাটিংয়ের বিরুদ্ধে নিজেদের শক্তি যাচাই করে নেওয়ার একটা দারুণ সুযোগ পাচ্ছে ভারতীয় বোলাররা।

ভারতীয় ব্যাটিংও অবশ্য কম যায় না। পর পর দু’টো ভাল ইনিংস খেলে রোহিত শর্মা দারুণ ছন্দে। এই টুর্নামেন্টে ওর আর বিরাট কোহলির জুটিকে দারুণ জমাট দেখাচ্ছে। শিখর ধবন এখনও পর্যন্ত সে ভাবে রান পায়নি। কিন্তু ওর মতো দক্ষ আর প্রতিভাবান ব্যাটসম্যানের জন্য রানে ফেরাটা স্রেফ সময়ের ব্যাপার। আমি নিশ্চিত খুব শীঘ্রই আমরা শিখরকে আবার ওর সেরা ফর্মে দেখতে পাব। বাংলাদেশ ম্যাচে ক্যাপ্টেন ধোনিকে চার নম্বরে ব্যাট হাতে নামতে দেখে ভাল লাগল। আগের দু’টো ম্যাচে ও ব্যাট করার সুযোগই পায়নি। কিন্তু শেষ চারের যুদ্ধে নামার আগে ওর মতো ব্যাটসম্যানের পিচে কিছুটা সময় কাটিয়ে রাখা দরকার ছিল। সেমিফাইনাল আর ফাইনালে ধোনির ছন্দে থাকা ভারতীয় ব্যাটিংকে আরও বেশি চাগিয়ে দেবে। আজ অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধেও ধোনি আগে নামবে বলেই আশা করছি।



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement