Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৫ অক্টোবর ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

বলবন্তকে চাইছে কলকাতা

ক্লাবের দোষে আইএসএলে খেলা হচ্ছে না সুনীলদের

সুনীল ছেত্রীর খেলা তো হচ্ছে-ই না। রবিন সিংহ-সহ আই লিগ চ্যাম্পিয়ন টিমের কোনও ফুটবলারকেই আই এস এলে খেলতে দেখা যাবে না। এবং সেটা হচ্ছে না, যে ট

রতন চক্রবর্তী
মুম্বই ২৫ জুলাই ২০১৪ ০৩:১৯
Save
Something isn't right! Please refresh.
আইএসএলে নেই রবিন-সুনীল।

আইএসএলে নেই রবিন-সুনীল।

Popup Close

সুনীল ছেত্রীর খেলা তো হচ্ছে-ই না। রবিন সিংহ-সহ আই লিগ চ্যাম্পিয়ন টিমের কোনও ফুটবলারকেই আই এস এলে খেলতে দেখা যাবে না। এবং সেটা হচ্ছে না, যে টিমকে তারা আই লিগ চ্যাম্পিয়ন করেছেন সেই বেঙ্গালুরু এফ সি-র টিম ম্যনেজমেন্টের ভুলেই।

এখানে ফুটবলের বাজার শুরু হওয়ার আগে শেষ মুহূর্তে একশো আশি ডিগ্রি ঘুরে বেঙ্গালুরু কর্তারা সেখানকার ফ্রাঞ্চাইজিদের সঙ্গে যুক্ত হয়ে গিয়েছেন। মূলত স্পাইস জেটের মালিক সান গ্রুপ বেঙ্গালুরু ফ্রাঞ্চাইজির মালিকানা কিনে নেওয়ার পরই চুক্তি করতে বাধ্য হয় অ্যাসলে ওয়েস্টউডের ক্লাব। কিন্তু সুনীলরা ব্রাত্য-ই থেকে যাচ্ছেন সাতশো কোটির জাঁকজমকের এই টুর্নামেন্ট থেকে। সংগঠক এবং ক্লাবের ইগোর লড়াইয়ের শিকার তারা।

এ যেন, সেই রাজায় রাজায় যুদ্ধ হয়, উলুখাগড়ার প্রাণ যায়-এর মতো ব্যাপার।

Advertisement

সুব্রত পাল থেকে মেহতাব হোসেন, লেনি থেকে ক্লিফোর্ড মিরান্ডা, শিল্টন পাল থেকে সঞ্জু প্রধান—ভারতীয় ফুটবলের প্রায় সব তারকা মুখ, সবাই খেলবেন অক্টোবরে শুরু হতে যাওয়া সুপার লিগে। কিন্তু দেশের অধিনায়ক, জাতীয় দলের জার্সিতে গোল করার লড়াইয়ে ভাইচুং ভুটিয়াকে টপকে যাওয়া মহা-তারকা সুনীল তাদের টুর্নামেন্টে খেলতে পারছেন না, এটা যন্ত্রণা দিচ্ছে আই এম জি আর কর্তাদেরও। কিন্তু সুনীল-রবিনদের ক্লাব বেঙ্গালুরু কর্তাদের সঙ্গে এতটাই লড়াই লেগে গিয়েছে সংগঠকদের যে, তারা ঘোষণা করে দিয়েছেন রিজার্ভ পুল থেকে ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে ফুটবলার নেওয়া যাবে কিন্তু আই লিগ ক্লাবের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ আর কোনও ভারতীয় ফুটবলারকে নেওয়া যাবে না। সেই গেরোয় তাই আটকে গেলেও যেতে পারতেন মোহনবাগানের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হওয়া বলবন্ত সিংহ। কিন্তু বৃহস্পতিবারের খবর, বলবন্তের ব্যাপারটা অন্যভাবে দেখছে আইএমজি। কারণ প্রথমে ফ্রি প্লেয়ার হিসাবে তালিকায় নাম ছিল পঞ্জাব ফুটবলারের। পরে মোহনবাগানের সঙ্গে চুক্তি হয় বলবন্তের। সেক্ষেত্রে ভারতীয় ফুটবলারদের পুলে বলবন্তকে রাখতে হলে নতুন চুক্তি করতে হত সংগঠকদের। লোন ফুটবলার হিসাবে। সেই সময় পাওয়া যায়নি। জানা গিয়েছে, সংগঠকরা বলবন্তের আই এস এলে খেলার ব্যাপারে সবুজ-সঙ্কেত দিলেও দিতে পারেন। সে ক্ষেত্রে আটলেটিকো দ্য কলকাতার জার্সি পরে দেশের অন্যতম সেরা স্ট্রাইকারকে খেলতে দেখা যেতে পারে। বলবন্তকে ছাড়লেও কিন্তু আইএমজি আর কর্তাদের যা মনোভাব তাতে সুনীল-রবিনদের টিমের কোনও ফুটবলারের সুপার লিগে খেলার কোনও সম্ভাবনা নেই।

কেন এমন হল?

আই এম জি-র এক কর্তা জানালেন, “জিন্দালদের বেঙ্গালুরু আই লিগ চ্যাম্পিয়ন হয়ে ভেবেছিল আমাদের টুর্নামেন্টকেও হাতের মুঠোয় নেবে। সেটা হবে না।”

কী ঘটেছিল ছয় মাস আগে?

ফ্র্যাঞ্চাইজি নির্বাচনের সময় আইএমজিআরের পক্ষ থেকে জে এস ডব্লু-র মালিকানাধীন বেঙ্গালুরুকেই সেখানকার টিম কেনার ব্যাপারে প্রথম প্রস্তাব দিয়েছিল। কিন্তু আই লিগ জয়ী ক্লাবের কর্তারা টিভি সম্প্রচার থেকে টিকিট বিক্রি সব কিছুর টাকার ভাগ দাবি করে বসেন। তা নিয়ে আলোচনার সময় সেটা তর্কাতর্কির পর্যায়ে চলে যায় বলে খবর। ক্ষুব্ধ আইএমজি কর্তারা এতে ভীষণ চটে যান। তারা বেঙ্গালুরুর জন্য অন্য ফ্র্যাঞ্চাইজির খোঁজ শুরু করেন। বড় কর্পোরেট কোম্পানিকে পেয়েও যান তাঁরা। এর পর ঝামেলা আরও গড়ায় যখন নতুন ফ্র্যাঞ্চাইজিদের মাঠ দিতে অস্বীকার করে বেঙ্গালুরু। নানা সমস্যাও তৈরি করে ক্লাবটি। সুনীল-রবিনদের সুপার লিগে ছাড়া হবে না বলেও জানিয়ে দেওয়া হয়। অনেকেই ধরে নিয়েছিলেন বেঙ্গালুরুকে বাদ দিয়েই শেষ পর্যন্ত সুপার লিগ সাত দলের হবে। কারণ ফ্র্যাঞ্চাইজিরা অন্য কোনও স্টেডিয়ামে খেলতে রাজি ছিলেন না।

কিন্তু আইএসএলের নিলামের আগের দিনই পরিস্থিতি অন্য দিকে মোড় নেয়। সোমবার ফুটবলার বাজার বসার প্রথম দিন দেখা যায় বেঙ্গালুরু এফ সি-র দুই কর্তা বসে আছেন ফ্র্যাঞ্চাইদের সঙ্গে। তখনই গুঞ্জন ওঠে ব্যাপারটা কী? পরে দু’তরফের পক্ষ থেকেই বলা হয় ফ্র্যাঞ্চাইজির সঙ্গে বেঙ্গালুরুর চুক্তি হয়েছে। দু’জনেই এক সঙ্গে আইএসএল সংগঠন করবে। ডেম্পো, শিলং, পুণে, ইস্টবেঙ্গল, মোহনবাগান, মুম্বই এফ সি-র পর বেঙ্গালুরুও যুক্ত হয়ে গিয়েছে সুপার লিগের সঙ্গে। এবং আই এম জি আর কর্তাদের মনোভাব বুঝে এবং তীব্র সমালোচনার মুখে পড়ে বেঙ্গালুরু কর্তারা মুখ বাঁচাতে নিজস্ব ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জানিয়ে দিয়েছেন, “সান গ্রুপের সঙ্গে চুক্তি হয়েছে আমাদের। তবে পরিকাঠামোগত সাহায্য দিলেও এ বছর ফুটবলার বা কোচের ব্যাপারে আমরা সাহায্য দিতে পারছি না। পরের বার থেকে তা দেব।”

সুনীল এখন কোভারম্যান্সের টিমের হয়ে এশিয়াডের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে বিদেশে। তিনি ক্লাবের বিরুদ্ধে কোনও প্রতিক্রিয়া দিতে চাইছেন না। রবিনও তাই। তবে আইএসএল আলোর মাঝে আই লিগ চ্যাম্পিয়ন টিমের কোনও ফুটবলার নেই, এটা কিন্তু ভাল বিজ্ঞাপন নয়। অন্তত ভারতীয় ফুটবলের জন্য।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement