Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৩ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

ট্রেন্ট ব্রিজে আজ হয়তো বিনির টেস্ট অভিষেক

চেতন নারুলা
নটিংহ্যাম ০৯ জুলাই ২০১৪ ০৩:০৬
টেস্ট সিরিজের ট্রফি হাতে দুই অধিনায়ক। মঙ্গলবার। ছবি: এএফপি

টেস্ট সিরিজের ট্রফি হাতে দুই অধিনায়ক। মঙ্গলবার। ছবি: এএফপি

পাঁচ বোলারে প্রথম টেস্ট খেলতে নামবে ভারত? বুধবার ট্রেন্ট ব্রিজে প্রথম টেস্ট খেলতে নামার আগে এমনই ইঙ্গিত দিয়ে রাখলেন ভারত অধিনায়ক মহেন্দ্র সিংহ ধোনি। অর্থাৎ আজ, বুধবার স্টুয়ার্ট বিনির টেস্ট অভিষেক হতে পারে।

প্রায় তিন মাসের সফরে ইংল্যান্ডে পা রাখার পর থেকে বোলাররাই বেশি চিন্তায় রেখেছে ধোনিকে। ব্যাটসম্যানরা রানের মধ্যে থাকলেও বোলাররা দুটি প্রস্তুতি ম্যাচে তিনটি ইনিংস মিলিয়ে গোটা দশেকের বেশি উইকেট নিতে পারেননি। কিন্তু ইংল্যান্ডে টেস্ট জিততে হলে যে দু’ইনিংসে কুড়ি উইকেট নিতেই হবে শামি, ভুবি, ইশান্তদের, তা ভাল করেই জানেন ধোনি। সম্ভবত সে জন্যই দলে বোলারের সংখ্যা বাড়াতে চাইছেন তিনি। মঙ্গলবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি যে ছ’নম্বরে ব্যাট করতে তিনি রাজি, তা জানিয়ে বলেন, “স্টুয়ার্ট (বিনি) সেই সিমিং অল রাউন্ডার, যাকে আমাদের দরকার। ও জাক কালিস নয় ঠিকই, কিন্তু সারা দিনে দশ ওভার বল করে ব্যাটও তো করতে পারবে। আগামী ৬-৮ মাসে ওকে তৈরি করে নিতে পারি আমরা। বিদেশে ওর মতো একজন দলে প্রয়োজন। বিদেশের পরিবেশে পাঁচ বোলারে খেলা যেতেই পারে।”

দক্ষিণ আফ্রিকা ও নিউজিল্যান্ড সফরে ভারতীয় বোলাররা কোনও টেস্টেই কুড়ি উইকেট নিতে পারেননি। সেই কথা মনে করিয়ে দিতে ধোনি বললেন, “আমরা তা নিয়ে আলোচনা করেছি। ওখানে আমাদের তিন সিমার ও এক স্পিনার ছিল, যারা যথাসম্ভব ভাল বল করেছে। তবে এটাও দেখতে হবে যে বিপক্ষও ভাল ব্যাট করেছে। আমরা ওই সফরে অনেক কিছু শিখেছি, যা এ বার কাজে লাগাতে হবে।” এ বার দুই প্রস্তুতি ম্যাচে বোলাররা ব্যর্থ হলেও ধোনির আশা, জাহির খানের অভাব পূরণ করতে পারবেন ইশান্তরা। “ওরা এখানে এসে ১০-১২ দিন ধরে যথেষ্ট খেটেছে। ইশান্তকে নেটে খারাপ লাগেনি। ও ঠিকঠাক লেংথে বল করছে। অন্যদের চেয়ে বেশি বাউন্সও পাবে বলেই মনে হচ্ছে। দেখা যাক কী হয়”, বললেন ধোনি।

Advertisement

কিন্তু এখানকার উইকেটে যেহেতু বল সুইং করে বেশি, তাই ইশান্তের চেয়ে ভুবনেশ্বর কুমার বেশি কার্যকরি হয়ে উঠতে পারেন। এখানকার পিচ কিউরেটর স্টিভ বার্কসও বলছেন, পাঁচ দিনই এখানে বল সুইং করতে পারে। বললেন, “আজ রাতে ও কাল ভোরে যদি বৃষ্টি হয়, তা হলে ম্যাচের শুরুতে বল খুব সুইং করবে। সারা ম্যাচেই আবহাওয়া একই রকম থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। কখনও বৃষ্টি, কখনও শুকনো। সুতরাং এখানে বল ভালই সুইং করবে। উইকেট শুকনো দেখতে লাগলেও আসলে কিন্তু তা নয়। এখানে বল স্পিন করার সম্ভাবনা কম।” বার্কসের কথা ঠিক হলে কিন্তু ভারতীয় শিবিরে জেমস অ্যান্ডারসন ও স্টুয়ার্ট ব্রডকে নিয়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ার সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে। এমনিতেই এই মাঠে অ্যান্ডারসনের রেকর্ড বেশ ভাল। স্টুয়ার্ট ব্রডও কিন্তু এমন রসাল উইকেট পেলে ছেড়ে কথা বলবেন না। তবে প্রথমে ব্যাট করে ৩০০-৩৫০ রান তুলতে পারলে ‘সেফ জোন’-এ থাকা যাবে বলে মনে করেন বার্কস। এটা আবার ইংল্যান্ডের চিন্তার কারণ হয়ে উঠতে পারে। কারণ, ইংল্যান্ডের ব্যাটিং বিভাগের ফর্ম, বিশেষ করে ক্যাপ্টেন অ্যালিস্টার কুকের ফর্ম মোটেই ভাল যাচ্ছে না। তবে কুকের আশা, তিনি ও তাঁর দল এই সিরিজেই ফর্মে ফিরবেন। কারণ, “পিচটা তো শুধু আমাদের তৈরি নয়, ভারতের জন্যও তৈরি”, বলছেন কুক।

আরও পড়ুন

Advertisement