Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৮ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

ফুল লেংথ বোলিংটা এ বার পাখিপড়া করে শেখাতে হবে

সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়
১১ ডিসেম্বর ২০১৪ ০৩:২৩
অ্যাডিলেডে বিধ্বস্ত অ্যারন। দর্শক অসহায় কোহলি। বুধবার। ছবি: এএফপি

অ্যাডিলেডে বিধ্বস্ত অ্যারন। দর্শক অসহায় কোহলি। বুধবার। ছবি: এএফপি

প্রথম দু’দিনের খেলার শেষে অ্যাডিলেড টেস্টের রাশ পুরোপুরি অস্ট্রেলিয়ার হাতে। যার জন্য ধন্যবাদটা প্রাপ্য ওদের ব্যাটসম্যানদের। অস্ট্রেলীয় ব্যাটিংয়ের টপ আর মিডল অর্ডারের দাপটের সামনে এলোমেলো হয়ে গিয়েছে ভারতীয় বেলিং।

অ্যাডিলেডের মতো ভাল ব্যাটিং সারফেসে টস জেতার সুযোগ দারুণ কাজে লাগাল অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যানরা। বিশেষ করে ডেভিড ওয়ার্নার। তিন সেঞ্চুরিকারীর মধ্যে ও-ই সবচেয়ে বেশি ছন্দে রয়েছে বলে আমার মনে হল। নিজের ব্যাটিং নিয়েও খেটেছে। এক দিনের ক্রিকেটের বিগ হিটার থেকে টেস্ট ব্যাটসম্যান হিসাবে ওর রূপান্তর রীতিমতো চমকপ্রদ! নতুন বলে বরুণ অ্যারনের বিরুদ্ধে ওয়ার্নারের প্রথম শটটাই ওর ইনিংসের সুর বেঁধে দিয়েছিল। তার পর থেকে ভারতীয় বোলারদের বিরুদ্ধে এক বারের জন্যও অস্বস্তিতে পড়েনি। এ বছরে এটা ওয়ার্নারের পাঁচ নম্বর সেঞ্চুরি। তবে তার চেয়েও বড় কথা, সেঞ্চুরিগুলো এসেছে উপমহাদেশে বাইরের পাশাপাশি উপমহাদেশের উইকেটেও। এটা একজন ব্যাটসম্যানের পরিণত হয়ে ওঠার সবচেয়ে বড় লক্ষণ যে, সে সিমিং উইকেটের পাশাপাশি ঘূর্ণি পিচেও সমান ভাল খেলছে।

গত দু’দিন ভারতীয় বোলিং বেশ এলোমেলো হল। প্রথম দিনের প্রথম দু’টো সেশনে নিজেদের লাইন আর লেংথ খুঁজে পেতে গিয়ে ভারতীয় পেসাররা বারবার সমস্যায় পড়ল। দিনের শেষ সেশনে ওরা খানিকটা ছন্দ পেয়েছিল। তবে দ্বিতীয় দিন আবার খারাপ লেংথে ফিরে যাওয়ার বড় মূল্য দিতে হল। যার সুযোগে রানের পাহাড় গড়ে ফেলল অস্ট্রেলিয়া। আসলে ভারতের তিন পেসারের বোলিংয়েই গতির কোনও অভাব নেই। কিন্তু এদের এটা বুঝতে হবে যে বোলিংয়ে গতিটাই সব নয়। তুমি যতই ফাস্ট বোলিং করো না কেন, যদি লেংথ ঠিক না থাকে মার খেতে হবে। আমি আগেই বলেছিলাম, ভারতীয় বোলারদের বলটা ফুল লেংথে রাখতে হবে। ওদের শিখতে হবে যে কন্ডিশন যা-ই হোক, পুরো লেংথে বল না করলে সাফল্য আসবে না। বোলিং কোচকে কিন্তু এই কথাটা পাখিপড়া করে ওদের মাথায় ঢুকিয়ে দিতে হবে। না হলে গোটা সিরিজে এ ভাবেই ভারতীয় পেসারদের নিয়ে ছেলেখেলা করবে অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যানরা।

Advertisement

প্রথম এগারোয় কর্ণ শর্মাকে রাখা একদম ঠিক হয়েছে। কিন্তু এটা যতটা তারিফ করার মতো, আমার কাছে ততটাই বিস্ময়কর উমেশ যাদবের বাদ পড়া। ভারতে খেলে আসা এক দিনের সিরিজে উমেশ রীতিমতো ভাল ফর্মে ছিল। এর আগে অস্ট্রেলিয়ায় খেলে যাওয়ার সুবাদে এখানকার পিচ আর আবহাওয়া সম্পর্কে ওর অভিজ্ঞতাও আছে। যা দলের কাজে লাগত। সবচেয়ে বড় কথা, উমেশ হল উইকেট টেকিং বোলার। পরের টেস্ট ম্যাচগুলোর দল বাছার সময় ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্টকে কিন্তু উমেশের মতো জাত বোলারের নামটা বিবেচনা করতেই হবে।

আমার ধারণা, বৃহস্পতিবার সকালেই ভারতকে ব্যাট করতে পাঠাবে অস্ট্রেলিয়া। যদি কোনও রকম লড়াই দেখাতে হয়, তা হলে ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের দায়িত্ব নিয়ে ব্যাটিং করে নিজেদের সেরাটা দিতে হবে। না হলে প্রথম টেস্টেই কঠিন পরীক্ষার মুখে পড়বে ভারত। টেস্ট সিরিজে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ভারত কী ভাবে ব্যাট করল, সেটাই কিন্তু হবে বাদবাকি সিরিজের সাফল্য বা ব্যর্থতার চাবিকাঠি!

আরও পড়ুন

Advertisement